ঢাকার অবৈধ স্থাপনা চিহ্নিত করে উচ্ছেদ করা হবে: এলজিআরডি মন্ত্রী

ঢাকা, সোমবার   ০১ মার্চ ২০২১,   ফাল্গুন ১৬ ১৪২৭,   ১৬ রজব ১৪৪২

ঢাকার অবৈধ স্থাপনা চিহ্নিত করে উচ্ছেদ করা হবে: এলজিআরডি মন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:০৫ ২৪ জানুয়ারি ২০২১   আপডেট: ১৮:০৭ ২৪ জানুয়ারি ২০২১

স্থানীয় সরকার মন্ত্রী তাজুল ইসলাম। ফাইল ছবি

স্থানীয় সরকার মন্ত্রী তাজুল ইসলাম। ফাইল ছবি

স্থানীয় সরকার মন্ত্রী তাজুল ইসলাম বলেছেন, ঢাকা শহরের বিভিন্ন এলাকায় অবৈধ স্থাপনাগুলো সিএ ও আরএস দেখে চিহ্নিত করে ধাপে ধাপে উচ্ছেদ করা হবে। সরকারের সব প্রতিষ্ঠানের সহযোগিতা নিয়ে সিটি কর্পোরেশন উচ্ছেদ অভিযান চালাবে।

রোববার সচিবালয়ে স্থানীয় সরকার বিভাগের সম্মেলন কক্ষে ঢাকা শহরের জলাবদ্ধতা নিরসনকল্পে ঢাকা উত্তর সিটি ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের গৃহীত কর্মপরিকল্পনা পর্যালোচনা সভা শেষে নিজ দফতরে তিনি এসব কথা বলেন।

স্থানীয় সরকার মন্ত্রী বলেন, ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশন উচ্ছেদ অভিযান চালাচ্ছে। সামগ্রিক কর্মপরিকল্পনা নিয়ে পরিকল্পনা প্রণয়ন করে আজ তারা উপস্থাপন করেছে, এজন্য অনেকগুলো প্রকল্প নিতে হবে, সেজন্য তারা মতামতও দিয়েছে। সেজন্য ঢাকার ডিসি, পূর্ত মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা সভায় উপস্থিত ছিলেন।

ঢাকায় বেশ কিছু ব্রিজ ও কালভার্ট দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা না নিয়ে নির্মাণ করা হয়েছে জানিয়ে তাজুল ইসলাম বলেন, সেগুলো প্রয়োজনে চিহ্নিত করে পুনর্নিমাণ করা হবে। যেসব বক্স কালভার্টের ভেতরে ২৫ থেকে ৩০ বছরের ময়লা জমে আছে, সেখানে সংস্কারের কাজ শুরু হয়েছে।

স্থানীয় সরকারমন্ত্রী বলেন, ঢাকায় ৩৯টি খাল সংস্কার করতে আমরা কাজ করছি। এর মধ্যে ২৬টি ওয়াসার কাছে ছিল, ১৩টি খাল পূর্ত মন্ত্রণালয় এবং রাজউকের অধীনে আছে। পূর্ত মন্ত্রণালয় এবং রাজউকের কাছে থাকা খালগুলো যাতে সিটি কর্পোরেশনের কাছে হস্তান্তরের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, খালগুলো সংস্কারে কর্মপরিকল্পনা করতে আজ সভা ডাকা হয়েছে। দুই মেয়র বেশ কিছু পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে। এগুলো বাস্তবায়নে তারা খুবই আন্তরিক। আমরা মন্ত্রণালয় থেকে সব ধরনের সহযোগিতা করব। আমরা সমন্বিতভাবে কাজ করব।

সভায় ডিএসসিসি মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস, ডিএনসিসি মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম, স্থানীয় সরকার বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ, ঢাকা ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক তাকসিম এ খান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডআর