জাপানকে উচ্চশিক্ষার জেডিএস বৃত্তির সংখ্যা বাড়ানোর অনুরোধ

ঢাকা, শুক্রবার   ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১,   ফাল্গুন ১৩ ১৪২৭,   ১৩ রজব ১৪৪২

জাপানকে উচ্চশিক্ষার জেডিএস বৃত্তির সংখ্যা বাড়ানোর অনুরোধ

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:৪১ ২২ জানুয়ারি ২০২১  

টোকিওর বাংলাদেশ দূতাবাসে রাষ্ট্রদূত শাহাবুদ্দিন আহমদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন জাপান ইন্টারন্যাশনাল কোঅপারেশন সেন্টারের (জাইস) প্রেসিডেন্ট সাচিকো ইয়ামানো

টোকিওর বাংলাদেশ দূতাবাসে রাষ্ট্রদূত শাহাবুদ্দিন আহমদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন জাপান ইন্টারন্যাশনাল কোঅপারেশন সেন্টারের (জাইস) প্রেসিডেন্ট সাচিকো ইয়ামানো

জাপান সরকারের ওডিএ অর্থায়নের মাধ্যমে বাংলাদেশের সরকারি কর্মকর্তাদের উচ্চশিক্ষার জন্য পরিচালিত জেডিএস বৃত্তির পরিধি ও সংখ্যা বৃদ্ধির অনুরোধ জানানো হয়েছে।

শুক্রবার স্থানীয় সময় বিকেলে টোকিওর বাংলাদেশ দূতাবাসে জাপান ইন্টারন্যাশনাল কোঅপারেশন সেন্টারের (জাইস) প্রেসিডেন্ট সাচিকো ইয়ামানো সাক্ষাৎ করতে এলে জাপানে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত শাহাবুদ্দিন আহমদ এ অনুরোধ জানান।

রাষ্ট্রদূত শাহাবুদ্দিন জাইসের প্রেসিডেন্টকে দূতাবাসে স্বাগত জানান এবং বাংলাদেশের মানবসম্পদ উন্নয়নে বিশেষ করে সরকারি কর্মকর্তাদের সক্ষমতা বৃদ্ধিতে উচ্চশিক্ষার বৃত্তি প্রদানসহ বিভিন্ন কার্যক্রমের জন্য জাইসের প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন।

জাইস ২০০১ সাল থেকে জাপান সরকারের ওডিএ অর্থায়নের মাধ্যমে বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস, বিচার বিভাগ ও বাংলাদেশ ব্যাংকের কর্মকর্তাদের জন্য হিউম্যান রিসোর্স ডেভেলপমেন্ট স্কলারশিপ বাই জাপানিজ গ্রান্ট এইড (জেডিএস) প্রদান করে আসছে। প্রতি বছর ৩০ জন কর্মকর্তা জাপানের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে জনপ্রশাসন, অর্থনীতি, আইন, ফিন্যান্স ইত্যাদি বিষয়ে মাস্টার্স কোর্স সম্পন্ন করেন। এছাড়া সাম্প্রতিককালে জাইস জেডিএস ফেলোদের জন্য পিএইচডি প্রোগ্রামও চালু করেছে। এখন পর্যন্ত মোট ৪১৭ জন কর্মকর্তা মাস্টার্স কোর্স এবং নয়জন পিএইচডি কোর্সে অংশগ্রহণ করার সুযোগ পেয়েছেন।

রাষ্ট্রদূত শাহাবুদ্দিন জাইসের প্রেসিডেন্টকে জানান, জাপানে উচ্চশিক্ষা শেষ করে জেডিএস ফেলোরা সরকারের বিভিন্ন পর্যায়ে সুনামের সঙ্গে কাজ করছেন। জেডিএস ফেলোরা তাদের অর্জিত জ্ঞান ও অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে জাপান-বাংলাদেশ সম্পর্ক আরো শক্তিশালী করতে সাহায্য করবেন বলে রাষ্ট্রদূত আশা প্রকাশ করেন।

জেডিএস প্রোগ্রামের তৃতীয় পর্ব এ বছর সমাপ্ত হবে। তার পরিপ্রেক্ষিতে রাষ্ট্রদূত জেডিএস বৃত্তির চতুর্থ পর্ব যথাসময়ে চালু এবং যথাসম্ভব এর পরিধি ও সংখ্যা বৃদ্ধি করার জন্য জাইসের প্রেসিডেন্টকে অনুরোধ করেন।

জাইসের প্রেসিডেন্ট গুরত্বসহকারে রাষ্ট্রদূতের বক্তব্য শোনেন এবং তাকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান। সাচিকো ইয়ামানো আশা প্রকাশ করেন, জাইস ও বাংলাদেশ দূতাবাস আরো গভীরভাবে সম্পৃক্ত থেকে কাজ করবে।

পরে তিনি মুজিববর্ষ উপলক্ষে দূতাবাসে স্থাপিত ‘বঙ্গবন্ধু কর্নার’ পরিদর্শন এবং পরিদর্শন বইতে স্বাক্ষর প্রদান করেন।

রাষ্ট্রদূত তাকে জাপানি ভাষায় প্রকাশিত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ ও মুজিববর্ষের স্মারক উপহার দেন।

এ সময় জাইসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইশিরো জুন, উপ-পরিচালক সাকুরাই তাকিইউকি ও দূতাবাসের ইকনমিক মিনিস্টার সৈয়দ নাসির এরশাদসহ অন্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএইচ