বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে শায়িত হলেন মাহবুবে আলম

ঢাকা, সোমবার   ২৬ অক্টোবর ২০২০,   কার্তিক ১১ ১৪২৭,   ০৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে শায়িত হলেন মাহবুবে আলম

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:৫০ ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০   আপডেট: ১৪:৫৪ ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলমের দাফন সম্পন্ন হয়েছে। সোমবার বেলা ১টার দিকে মিরপুর বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে দাফনের মাধ্যমে চিরদিনের জন্য শায়িত হলেন তিনি।

এর আগে দুপুর ১২টার দিকে সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণে তার জানাজা সম্পন্ন হয়। পরে তার মরদেহে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, সহকর্মী এবং বিভ্ন্নি সংগঠনের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা আর ভালোবাসা জানানো হয়।

এছাড়া প্রধান বিচারপতি, আইনমন্ত্রী আনিসুল হক, রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী অ্যাডভোকেট শ ম রেজাউল করিম, অ্যাটর্নি জেনারেল কার্যালয়, ঢাকা দক্ষিণের মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস প্রমুখ মরদেহে শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা জানান।

গতকাল রোববার  সন্ধ্যা ৭টা ২৫ মিনিটে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান মাহবুবে আলম। সোমবার সকালে বেইলি রোডের সরকারি বাসায় তার মরদেহ আনা হয়। সেখান থেকে সকাল ১০টা ৪১ মিনিটের দিকে তাকে বহনকারী গাড়িটি সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণে পৌঁছায়।

করোনায় আক্রান্ত হয়ে গত ৪ সেপ্টেম্বর অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম হাসপাতালে ভর্তি হন। এরপর গত ১৮ সেপ্টেম্বর ভোরে হার্ট অ্যাটাক হলে তাকে দ্রুত আইসিইউতে স্থানান্তর করা হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার হৃদযন্ত্র স্বাভাবিকভাবে কাজ করছিল না বলে জানান চিকিৎসকরা। তবে গত ১৯ সেপ্টেম্বর থেকে আগের তুলনায় তার শারীরিক অবস্থার উন্নতি ঘটতে শুরু করে। পরে গত ২০ সেপ্টেম্বর তার করোনা নেগেটিভ রিপোর্ট আসে। তবে এরপর আবার তার শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটতে থাকে।

মাহবুবে আলম ২০০৯ সালের ১৩ জানুয়ারি থেকে অ্যাটর্নি জেনারেলের দায়িত্বে ছিলেন। পদাধিকার বলে বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের চেয়ারম্যানও তিনি। বাংলাদেশে এত সময় ধরে অ্যাটর্নি জেনারেলের পদে আর কেউই ছিলেন না। এছাড়া সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি মাহবুবে আলম এক মেয়াদে সমিতির সম্পাদকও নির্বাচিত হয়েছিলেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডআর