জলাতঙ্ক নির্মূলে টিকা পাবে ৫ লাখ কুকুর

ঢাকা, বুধবার   ২১ অক্টোবর ২০২০,   কার্তিক ৬ ১৪২৭,   ০৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

জলাতঙ্ক নির্মূলে টিকা পাবে ৫ লাখ কুকুর

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৩:৩৮ ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

দেশব্যাপী জলাতঙ্ক প্রতিষেধক টিকাদান (এমডিভি) কার্যক্রমের আওতায় ২০২০-২১ অর্থবছরে আনুমানিক পাঁচ লাখ কুকুরকে টিকা দেয়ার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে সরকার।

জলাতঙ্ক রোগ থেকে রক্ষা পেতে বৈশ্বিক কর্মকৌশলে বিজ্ঞানভিত্তিক উপায়ে এই অবহেলিত রোগটির বিরুদ্ধে জাতীয় জলাতঙ্ক নির্মূল কর্মসূচি পরিচালনা করেছে স্বাস্থ্য অধিদফতরের রোগ নিয়ন্ত্রণ শাখা। 

চারটি জেলায় প্রথম রাউন্ড ও ১৬টি জেলায় দ্বিতীয় রাউন্ডে এ টিকা দেয়া হবে। অধিদফতরের জুনোটিক ডিজিজ কন্টোল প্রোগ্রামের ডেপুটি প্রোগ্রাম ম্যানেজার ডা. শ ম গোলাম কায়ছার এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এক প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে ডা. শ ম গোলাম কায়ছার জানান, টিকার মাধ্যমে জলাতঙ্ক প্রতিরোধ হয়। এই সচেতনতা বাড়ার ফলে সারাদেশে ৬৭টি কেন্দ্রের মাধ্যমে জলাতঙ্ক প্রতিরোধী টিকার চাহিদা দ্বিগুণেরও বেশি বেড়েছে। 

তিনি বলেন, ২০১২ সালে বিনামূল্যে প্রায় ১ লাখ ২০ হাজারও বেশি রোগী টিকা পেয়েছে। ২০১৮ সালে তা বেড়ে ২ লাখ ৫৩ হাজার ৪০৯-তে উন্নীত হয়েছে। ২০১৯-২০ অর্থবছরে সিডিসির মাধ্যমে সারাদেশে প্রায় তিন লাখ ভায়াল টিকা দেশের বিভিন্ন জেলা সদর হাসপাতাল ও সংক্রামক ব্যাধি হাসপাতালে দেয়া হয়েছে।  

এদিকে সংক্রামক ব্যাধি হাসপাতালের বার্ষিক প্রতিবেদনে দেখা গেছে, সারাদেশে ২০১০ থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত জলাতঙ্কে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ২ হাজার ১৪৭ থেকে এক হাজার ৪৪৫ জনে নেমে এসেছে। সেটা ২০১৯ সালে কমে দুইশ জনে নেমে এসেছে এবং সংক্রামক ব্যাধি হাসপাতালেও এই রোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সংখ্যা আগের তুলনায় প্রায় ৬৮ শতাংশ হ্রাস ১৪৮ থেকে ৪৯ জনে নেমেছে।

প্রসঙ্গত, বিশ্বে একজন এবং প্রতিবছর প্রায় ৫৫ হাজার মানুষ জলাতঙ্ক রোগে মারা যায়। দেশে প্রতিবছর প্রায় চার থেকে পাঁচ লাখ মানুষ কুকুর, বিড়াল, শিয়ালের কামড় বা আঁচড়ের শিকার হয়। যাদের মধ্যে বেশিরভাগই শিশু।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডআর