বিদেশি ডাক টিকিটে বঙ্গবন্ধু

ঢাকা, মঙ্গলবার   ২০ অক্টোবর ২০২০,   কার্তিক ৫ ১৪২৭,   ০৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

বিদেশি ডাক টিকিটে বঙ্গবন্ধু

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:৪৬ ১৭ মার্চ ২০২০   আপডেট: ১৪:৪৮ ১৭ মার্চ ২০২০

গ্রাফিক্স: ডেইলি বাংলাদেশ

গ্রাফিক্স: ডেইলি বাংলাদেশ

বাংলাদেশের স্বাধীনতার স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯২০ সালের ১৭ মার্চ গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় জন্ম গ্রহন করেন। আজ দেশজুড়ে পালিত হচ্ছে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ এই বাঙালির শততম জন্মবার্ষিকী।

আজীবন বাংলার মানুষের অধিকার আদায় ও স্বাধীন একটি রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার জন্য সংগ্রাম করে গেছেন তিনি। তার দৃঢ় নেতৃত্বের কারণেই আমরা অর্জন করতে পেরেছি মহান স্বাধীনতা।

দেশ ও দেশের মানুষের জন্য যেসব নেতারা গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানানো ও তাদেরকে স্মরণীয় করে রাখার এক অনুপম মাধ্যম হলো ডাক টিকিট। বাংলাদেশের স্বাধীনতার পথপ্রদর্শক হিসেবে তাকে নিয়ে দেশে ডাক টিকিট প্রকাশ হওয়াটাই স্বাভাবিক। কিন্তু বঙ্গবন্ধুর ক্ষেত্রে শুধু বাংলাদেশ থেকেই নয়, বিদেশেও প্রকাশিত হয়েছে ডাক টিকিট।

বাঙালির প্রতি বঙ্গবন্ধুর অবদানকে সম্মান জানিয়ে প্রথম কোনো বিদেশি রাষ্ট্র হিসেবে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে ডাক টিকেট প্রকাশ করে ল্যাতিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিল। ২০১৭ সালের ১৬ ডিসেম্বর সেখান থেকে প্রকাশিত হয় ১২টি ডাক টিকিটের একটি শিটলেট।

এরপর দ্বিতীয় রাষ্ট্র হিসেবে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে ডাক টিকিট প্রকাশ করে অস্ট্রেলিয়া। ২০১৮ সালের ২৮ সেপ্টেম্বর বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭২তম জন্মদিন উপলক্ষে সেটি প্রকাশিত হয়। অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন নিয়ে এই ডাক টিকিট প্রকাশের উদ্যোগ নেয়। ব্রাজিল ও অস্ট্রেলিয়া থেকে প্রকাশিত দুটি ডাক টিকিটই ছিল পার্সোনালাইজড।

বঙ্গবন্ধুর জীবন, আদর্শ ও কর্মকে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে দেয়ার জন্য বাংলাদেশ ডাক বিভাগও এ পর্যন্ত ৪৪টি স্মারক ডাক টিকিট, ৪৬টি উদ্বোধনী খাম, ১২টি স্যুভেনির শিট, ৪টি বিশেষ খাম, ৪টি বিশেষ সিলমোহর, ২টি ফোল্ডার, ৮টি এরোগ্রাম ও ৫টি পোস্টকার্ড প্রকাশ করেছে।

তবে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে প্রথম ডাক টিকিট প্রকাশ হয়েছিল ১৯৭১ সালের ২৯ জুলাই। মুক্তিযুদ্ধকালে বাংলাদেশের নামে বের হওয়া আটটি ডাক টিকিটের মধ্যে সেটি ছিলো একটি। লন্ডনপ্রবাসী বাঙালি বিমান মল্লিক এর নকশা করেছিলেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এস