পানি আনতে দেরি হওয়ায় স্ত্রীকে মারধরের পর শ্বাসরোধে হত্যা

ঢাকা, রোববার   ১৭ অক্টোবর ২০২১,   কার্তিক ২ ১৪২৮,   ০৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

পানি আনতে দেরি হওয়ায় স্ত্রীকে মারধরের পর শ্বাসরোধে হত্যা

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৩:৩১ ১৪ অক্টোবর ২০২১  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে পারিবারিক কলহের জেরে শ্বাসরোধে স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে গোলাম মোস্তফা বাপ্পী নামের এক যুবকের বিরুদ্ধে। ঘটনার পর থেকেই বাপ্পী আত্মগোপনে রয়েছেন।

মঙ্গলবার রাতে উপজেলার গোড়াই টেকিপাড়া এলাকার একটি ভাড়া বাসায় এ ঘটনা ঘটে। বুধবার (১৩ অক্টোবর) পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেছে।

মৃত লাবনী আক্তার গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার ছোটনারিচাগারি গ্রামের লাল মিয়ার মেয়ে।

পুলিশ জানায়, গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার আখিরাপাড়া গ্রামের নাজিম উদ্দিনের ছেলে গোলাম মোস্তফা বাপ্পী প্রেমের সম্পর্ক করে গত চার মাস আগে লাবনীকে বিয়ে করেন। বিয়ের পর কিছুদিন তারা বাপ্পীর বড় ভাইয়ের বাড়িতে থাকেন। এরপর চাকরির উদ্দেশ্যে মির্জাপুরে আসেন তারা। পরে এক আত্মীয়ের মাধ্যমে বাপ্পী গোড়াই এলাকায় একটি কারখানায় চাকরি নেন। চাকরির পর গোড়াই টেকিপাড়া এলাকায় বাসা ভাড়া নিয়ে বসবাস শুরু করেন। এরমধ্যে শুরু হয় তাদের পারিবারিক কলহ।

পুলিশ আরও জানায়, মঙ্গলবার রাতে পানি আনতে দেরি হওয়ায় বাপ্পী লাবনীকে মারধর করেন। এরপর রাতের কোন এক সময় বাপ্পী লাবনীকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেন বলে দাবি করেন নিহতের আত্মীয়রা। 
তাদের দাবি, মঙ্গলবার দিবাগত রাত পৌনে ৪টার দিকে বাপ্পী লাবনীর বড় ভাইকে ফোন করে জানান, লাবনী আত্মহত্যা করেছে। এরপর থেকেই বাপ্পী ফোন বন্ধ করে আত্মগোপনে রয়েছেন।

বিয়ের পর থেকে লাবনী ও বাপ্পীর মধ্যে ঝগড়া লেগেই থাকতো বলে পুলিশকে জানিয়েছেন লাবনীর বড় ভাই রায়হান মিয়া। তিনি বাদী হয়ে বাপ্পীকে আসামি করে হত্যা মামলা করেছেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম