শরীয়তপুরে শেখ হাসিনা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় অনুমোদন দেওয়ায় আনন্দ মিছি

ঢাকা, মঙ্গলবার   ২৬ অক্টোবর ২০২১,   কার্তিক ১১ ১৪২৮,   ১৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

শরীয়তপুরে শেখ হাসিনা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় অনুমোদন দেওয়ায় আনন্দ মিছিল

শরীয়তপুর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২১:০২ ১৩ অক্টোবর ২০২১   আপডেট: ২১:০৬ ১৩ অক্টোবর ২০২১

বঙ্গবন্ধুর কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নামে কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় অনুমোদন দেওয়ায় আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ করেছে সখিপুর থানা ছাত্রলীগ

বঙ্গবন্ধুর কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নামে কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় অনুমোদন দেওয়ায় আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ করেছে সখিপুর থানা ছাত্রলীগ

শরীয়তপুরে শেখ হাসিনা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করার নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। বঙ্গবন্ধুর কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নামে কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় অনুমোদন দেওয়ায় আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ করেছে সখিপুর থানা ছাত্রলীগ।

বুধবার দুপুর ১২টার দিকে ভেদরগঞ্জ উপজেলার সখিপুর থানা আওয়ামী লীগ কার্যালয় থেকে আনন্দ মিছিলটি বের হয়ে প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে হাজী শরীয়তউল্লাহ কলেজের সামনে গিয়ে শেষ হয়। পরে স্থানীয়দের মাঝে মিষ্টি বিতরণ করা হয়।

এ সময় সখিপুর থানা ছাত্রলীগের সভাপতি আতিকুর রহমান সুমেল, সাধারণ সম্পাদক তুষার ইমরান বেপারী, সহসভাপতি রাজু সরদার, রিশাদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাফর আজিজ, নুরুল আমীন, কবিতা, সাংগঠনিক সম্পাদক রিয়াসহ অন্যান্য নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে, দুপুরে নড়িয়া উপজেলা ও কলেজ শাখা ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে একটি আনন্দ মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি নড়িয়া উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের সামনে থেকে বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে নড়িয়া বাজার বটতলায় এসে রঙ ছিটিয়ে মিষ্টি বিতরণ ও উল্লাস করে। এ সময় বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি নূরে-এ-আলম আশিক, উপজেলা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক বিপ্লব ও নড়িয়া কলেজ শাখা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক ইমরানসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, পানিসম্পদ উপমন্ত্রী ও শরীয়তপুর-২ আসনের এমপি একেএম এনামুল হক শামীম ২০২০ সালে জাতীয় সংসদের অধিবেশনে একটি কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের দাবি জানান। শেখ হাসিনা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের জন্য তিনি গত ১০ জুন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনির কাছে একটি আধা সরকারি পত্র (ডিও লেটার) দেন। এরপরই শিক্ষা মন্ত্রণালয় বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের কার্যক্রম শুরু করেন। শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে একটি সারসংক্ষেপ পাঠানো হলে গত ৬ অক্টোবর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তা নীতিগত অনুমোদন দিয়েছেন। পরে পুলিশ মঙ্গলবার শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনকে চিঠি দেওয়া হয়েছে। ওই চিঠিতে উল্লেখ করা হয় শেখ হাসিনা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের নীতিগত অনুমোদন দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। শিক্ষামন্ত্রণালয় মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সরকারি সাধারণ বিশ্ববিদ্যালয় শাখার উপসচিব মাহমুদুল আলম এ সংক্রান্ত চিঠিটিতে স্বাক্ষর করেন।

শরীয়তপুরের জেলা প্রশাসক (ডিসি) পারভেজ হাসান বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মভূমি, পদ্মার পললে গড়া উর্বর বৃহত্তর ফরিদপুর অঞ্চল অনাদিকাল হতে কৃষিসম্পদে সমৃদ্ধ। এই অঞ্চলে কৃষি শিক্ষাকে আরো সমৃদ্ধ করতে প্রধানমন্ত্রীর নামে একটি কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের খবর অনেক আনন্দের।

পানিসম্পদ উপমন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীম বলেন, দেশের দক্ষিণাঞ্চল কৃষি ও নদী প্রধান এলাকা। এ অঞ্চলের পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীকে আরো সমৃদ্ধ করতে এবং নতুন প্রজন্মের উচ্চ শিক্ষা গ্রহণের সুযোগ সৃষ্টি করার চেষ্টা ছিল আমাদের। আমাদের সেই স্বপ্নকে ধারণ করে বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সম্মতি দিয়েছেন কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় করার। আমরা তার কাছে কৃতজ্ঞ।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ