হুইল চেয়ারই ছিল লাল মিয়ার ‘গাঁজার দোকান’

ঢাকা, মঙ্গলবার   ২৬ অক্টোবর ২০২১,   কার্তিক ১১ ১৪২৮,   ১৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

হুইল চেয়ারই ছিল লাল মিয়ার ‘গাঁজার দোকান’

বরগুনা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৭:০৫ ১২ অক্টোবর ২০২১  

গ্রেফতারকৃত লাল মিয়া

গ্রেফতারকৃত লাল মিয়া

বরগুনার বেতাগী পৌর শহরের কাঁচাবাজার সংলগ্ন পাবলিক টয়লেটের কেয়ারটেকার প্রতিবন্ধী লাল মিয়া। দুই পা না থাকায় দীর্ঘ ১০-১২ বছর হুইল চেয়ারে করে নানা স্থানে গিয়ে ভিক্ষা করতেন। পরে ভিক্ষাবৃত্তি ছেড়ে পাবলিক টয়লেটের লিজ নিয়েছেন তিনি। সেখানেই বিক্রি করতেন পান-সিগারেট। আর এ ব্যবসার আড়ালে বিক্রি করতেন গাঁজা। প্রতিবন্ধী লাল মিয়ার হুইল চেয়ারই ছিল গাঁজার দোকান।

সোমবার দুপুরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে লাল মিয়ার হুইল চেয়ারে তল্লাশি চালায় পুলিশ। ঐ সময় সেখান থেকে ১০ গ্রাম গাঁজা উদ্ধার করা হয়। এরপর তাকে গ্রেফতার করা হয়। মঙ্গলবার সকালে আদালতে পাঠানো হয়েছে লাল মিয়াকে।

স্থানীয়রা জানায়, লাল মিয়া প্রতিবন্ধী হওয়ায় বিত্তবান লোকজন তাকে বিভিন্নভাবে সাহায্য-সহযোগিতা করত। দীর্ঘদিন ধরে মানুষের ভালোবাসার আড়লে সে গাঁজা বিক্রি করে আসছিল। তার পেছনে বড় বড় মাদক কারবারিদের হাত থাকতে পারে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, জন্ম প্রতিবন্ধী লাল মিয়ার বয়স ৪৭। স্ত্রী, তিন ছেলে ও এক মেয়ে নিয়ে তার পরিবার। লাল মিয়ার বাড়ি বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলার শিয়ালবুনিয়া গ্রামে। সেখান থেকে ২০০৪ সালে বরগুনার বেতাগীতে আসেন তিনি।

বেতাগী থানার ওসি কাজী শাখাওয়াত হোসেন তপু বলেন, লাল মিয়ার কাছে ১০ গ্রাম গাঁজা পাওয়া গেছে। তার বিরুদ্ধে মাদক দ্রব্য সেবন ও বিক্রির অপরাধে মামলা করে আদালতে পাঠানো হয়েছে। লাল মিয়া কিভাবে গাঁজা সংগ্রহ করত- সে তথ্য বের করার চেষ্টা চলছে। সব কিছুই সঠিকভাবে তদন্ত করে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর