জাদুর শহরের সেরা চিকেন চাপ

ঢাকা, শুক্রবার   ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১,   ফাল্গুন ১৪ ১৪২৭,   ১৩ রজব ১৪৪২

জাদুর শহরের সেরা চিকেন চাপ

নুরুল করিম ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৫:০০ ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১  

বিসমিল্লাহ কাবাবের চিকেন চাপ বেশ জনপ্রিয়। ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

বিসমিল্লাহ কাবাবের চিকেন চাপ বেশ জনপ্রিয়। ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

পুরান ঢাকার ঐতিহ্যবাহী খাবারের সুনামের পাল্লা মেলা ভার। তেহারি, নেহারি, ডালপুরি, মালাই চা আরো কত কী! এমন উদাহরণ তো ভূরি ভূরি মেলে। এতসব মুখরোচক খাবার আর স্বনামধন্য দোকানের ভিড়ে ভোজনরসিকদের কাছে ‘বিসমিল্লাহ কাবাব ঘর’ এখনও অনন্য।

প্রাচীন শহর ঢাকার বায়ান্ন বাজার তিপ্পান্ন গলির মধ্যে খাবারের জন্য নাজিরা বাজারের পরিচিতি মেলা ভার। জায়গাটির অলিতে গলিতে বিভিন্ন সময়ে গড়ে উঠেছে রসনাবিলাসী মানুষের জন্য নামিদামি হোটেল-রেস্তোরাঁ। তারপরও ‘ভালো খেতে’ লোকজন ঢুঁ মারেন এ ঠিকানায়- ২৭/বি, কাজী আলাউদ্দিন রোড।

জাদুর শহরে ভোর নামলেই বেশিরভাগ দোকানের তালা খোলা হয়। তবে বিসমিল্লাহ কাবাব ঘরের ভোর শুরু হয় বিকেল পাঁচটায়। এরপরই শুরু হয় হাঁকডাক! ভোজবিলাসীরা ঢুকছে-বেরোচ্ছে। এখানে তরুণ-তরুণীদের বেশি দেখা যায়। সন্ধ্যার পর কাবাব/চাপ থেকে দাঁড়িয়েও থাকতে হয়।

নাজিরা বাজারের চৌরাস্তায় দোকানটির অবস্থান। ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

বিকাল ৫টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত খোলা থাকে কাবাব ঘরটি। বর্তমান মালিক হাবিবুর রহমান বলেন, সবসময় কম পয়সার মধ্যে ভালো রুচিসম্মত ও টাটকা খাবার পরিবেশন করার চেষ্টা থাকে। আমাদের কোথাও কোনো শাখা নেই।

ভিড়ভাট্টা ঠেলে কথা বলতে গেলাম ভোজনরসিকদের সঙ্গে। দুই বন্ধু নিয়ে চিকেন চাপ থেকে এখানে এসেছেন পলাশ আহমেদ। বাসা মোহাম্মদপুর হলেও এখানকার চাপের টানে প্রায়ই আসেন নাজিরাবাজারে। খাবারের কথা জিজ্ঞেস করতেই বলেন ‘এখানকার চাপ আমার খুব প্রিয়। তাছাড়া ফ্রি সালাদটাও দারুণ।’

নিশাত শৈলী জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়েন। ক্যাম্পাস থেকে দোকানটি কাছে হওয়ায় যখন-তখন খেতে আসেন তিনি। তিনি জানান, দুবছর আগে প্রথম খেতে এসেছিলেন তিনি। এরপর থেকে নিয়মিত আসেন। কখনও এ দোকানের খাবারের স্বাদে হেরফের হয়নি।

শুরুর কথা

১৯৯০ সালে এখানেই ব্যবসাটি শুরু করেন মো. খোরশেদ। এর পাঁচ বছর পরই মারা যান তিনি। বাবা মারা যাওয়ার পর ব্যবসার হাল ধরেন ছেলে হাবিবুর রহমান। শুরু থেকেই দোকানের প্রধান খাবার ছিল চিকেন কাবাব ও বিফ কাবাব। সেসময় থেকেই ভোজনবিলাসীদের কাছে জনপ্রিয় হয়ে ওঠে কাবাব ঘরটি।

হাবিবুর রহমান জানালেন, আশেপাশের মানুষজন তো বটেই; উত্তরা, বনানী, গুলশান, ধানমন্ডি থেকেও খেতে আসেন। তবে কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা বেশি আসে।

বিসমিল্লাহ কাবাব ঘরের সালাদ, গরুর চাপ ও খাসির ঘিরি কাবাব। ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

বিসমিল্লাহ কাবাব ঘরে বেশ কয়েকটি পদের খাবার পাওয়া যায়। এর মধ্যে চিকেন চাপ প্রতি পিস ১০০ ও ১১০ টাকা, গরুর বটি কাবাব ১০০ টাকা, গরুর চাপ ৯০ টাকা, খাসির গুদ্দা কাবাব প্রতি হাফ ১৪০ টাকা, খাসির ঘিরি কাবাব হাফ ১৩০ টাকা, মগজ ভুনা ১২০ টাকা, পরাটা ৮ টাকা ও সালাদ ফ্রি পাওয়া যায়। এগুলোর মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় চিকেন চাপ।

কাবাব ঘরে যেতে

গুলিস্তান এসে বংশালের প্রধান সড়কে ঢুকে হাতের ডান দিকে আলু বাজার হয়ে ঠিক শেষ মাথায় চৌরাস্তার বাম পাশে তাকালে বিসমিল্লাহ কাবাব ঘরটি দেখা যাবে। অপরদিকে বঙ্গবাজার এসে কাজী আলাউদ্দিন রোডে ঢুকেই শেষ মাথার চৌরাস্তায় এটি দেখা যাবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এনকে