অর্থপাচারের মামলায় এনু-রুপনের বিরুদ্ধে সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু 

ঢাকা, শনিবার   ০৬ মার্চ ২০২১,   ফাল্গুন ২১ ১৪২৭,   ২১ রজব ১৪৪২

অর্থপাচারের মামলায় এনু-রুপনের বিরুদ্ধে সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু 

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৭:০৮ ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২১  

এনামুল হক এনু ও রুপন ভূঁইয়া। ফাইল ছবি

এনামুল হক এনু ও রুপন ভূঁইয়া। ফাইল ছবি

অর্থ পাচার মামলায় ক্যাসিনো ব্রাদার’ পুরান ঢাকার এনামুল হক এনু ও রুপন ভূঁইয়ার বিরুদ্ধে মামলার বাদী র‍্যাবের ওয়ারেন্ট অফিসার মোকলেছুর রহমান আদালতে সাক্ষ্য দিয়েছেন। এর মধ্য দিয়ে এ মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হলো।

সোমবার ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫ এর বিচারক মো. ইকবাল হোসেনের আদালতে তিনি এ সাক্ষ্য দেন।

এর আগে কারাগারে আটক আসামিদের আদালতে হাজির করা হয়। এসময় তাদের উপস্থিতিতে সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়। সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হলে আদালত পরবর্তী সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য আগামী ১৫ মার্চ দিন ধার্য করেন। তবে এ মামলার এনু-রুপন দুই ভাই বাদে অন্য আসামিরা হলেন- হারুন উর রশিদ অরফে হারুন, শেখ সানি মোস্তফা, তুহিন মুন্সি, নবীর হোসেন শিকদার, সাইফুল ইসলাম, জয় গোপাল সরকার, পাভেল রহমান, শহিদুল হক ভূইয়া, রফিকুল হক ভূইয়া, মেরাজুল হক ভূইয়া।

গত বছরের ২৫ ফেব্রুয়ারি এনু-রুপনের লালমোহন সাহা স্ট্রিটের বাসায় অভিযান চালিয়ে ২৬ কোটি ৫৫ লাখ ৬০০ টাকা, পাঁচ কোটি ১৫ লাখ টাকার এফডিআরের কাগজ এবং এক কেজি সোনা উদ্ধার করে র‌্যাব। এ ঘটনায় তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়। 
মামলাগুলো তদন্ত করে গত বছরের ২১ জুলাই আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেয় পুলিশের অপরাধ ও তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। 
এদিকে অর্থ পাচারের পৃথক দুটি মামলায় গত ২৬ জানুয়ারি একই আদালত এনু ও রুপনসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন। একই সঙ্গে মামলা দুটি সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য ২২ ফেব্রুয়ারি ও অন্যটি ২৮ ফেব্রুয়ারি দিন ধার্য করেন।

এর আগে গত ৫ জানুয়ারি আদালত ১১ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে বিচারের আদেশ দেন। এ মামলায় মামলাটি মোট ২০ জন সাক্ষীর মধ্যে ছয় জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হয়েছে। আগামী ৯ মার্চ পরবর্তী সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য দিন ধার্য রয়েছে। 

২০১৯ সালের ১৩ জানুয়ারি কেরানীগঞ্জের একটি ভবন থেকে এক সহযোগীসহ এনু-রুপন দুই ভাই গ্রেফতার হন।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএইচ