কম সময়ে চুল লম্বা করার কার্যকরী উপায়

ঢাকা, মঙ্গলবার   ০২ মার্চ ২০২১,   ফাল্গুন ১৭ ১৪২৭,   ১৭ রজব ১৪৪২

কম সময়ে চুল লম্বা করার কার্যকরী উপায়

লাইফস্টাইল ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৩:১৬ ২৮ জানুয়ারি ২০২১   আপডেট: ১৩:১৯ ২৮ জানুয়ারি ২০২১

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

ঘন কালো মসৃণ চুল কে না চায়। নারীর সৌন্দর্যের অন্যতম এক দিক হচ্ছে তার চুল। বড় চুল অনেকেই পছন্দ করেন। তবে সময়ের অভাবে চুলের যত্ন নেয়া হয়ে ওঠে না, ফলে ঘন লম্বা চুলের স্বপ্ন স্বপ্নই থেকে যায়। 

চুল লম্বা করতে চাইলে অতিরিক্ত যত্নের প্রয়োজন হয়। কিছু ঘরোয়া নিয়ম মেনে চললেই কম সময়ে আপনার চুল হয়ে উঠতে পারে লম্বা। তবে কিছু উপায়ে আপনি দ্রুত চুল লম্বা ও ঘন করতে পারবেন। চলুন দেখে নেয়া যাক উপায়গুলো- 

মাথার স্ক্যাল্প ম্যাসাজ 
অনেকেই চুল বড় করতে নানান ধরনের নামিদামি পণ্য ব্যবহার করেন। এটা একেবারেই ভুল ধারণা! বরং বাজেরের কেমিকেলযুক্ত পণ্য ব্যবহারে চুলের আরো ক্ষতি হয়। চুল বাড়াতে চাইলে আপনাকে জানতে হবে কিছু পদ্ধতি। হেলদি স্ক্যাল্প ছাড়া চুল ভালো হয় না। তাই স্ক্যাল্প হেলদি রাখতে ম্যাসাজ খুব জরুরি। চুল বৃদ্ধির একটি সহজ উপায় হল, স্ক্যাল্প ম্যাসাজ। এটি আপনার মাথার ত্বকে রক্ত প্রবাহ বাড়িয়ে তুলবে, চুলের গোড়া শক্ত করবে। অয়েল ম্যাসাজ করতে পারেন। তেল চুল বাড়াতেও সাহায্য করে।

ডিমের মাস্ক 
ডিমে থাকে লেসিথিন এবং প্রোটিন, যা চুলকে শক্তিশালী করে, পুষ্টি জোগায় এবং ড্যামেজ চুলকে সারিয়ে তোলে। চুল মজবুত নাহলে কখনোই বাড়বে না। তাই চুল হেলদি রাখতে ডিমের মাস্ক দারুন কাজ করবে। দুটি ডিম নিয়ে তাতে দুই টেবিল চামচ অলিভ অয়েল মেশান। মিশ্রণে হাফ কাপ পানি দিন। শুকনো চুলে মাস্ক লাগিয়ে ৩০ মিনিট রেখে দিন। তারপর ভালো কোনো শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন, অবশ্যই কন্ডিশনার ব্যবহার করতে হবে। 

চুলের জন্য সঠিক তাপমাত্রার পানি
ঠাণ্ডা পানিতে চুল ধোয়া সবচেয়ে ভালো। গরম পানি ব্যবহারে চুল শুষ্ক হয়ে যেতে পারে। তাই ঠাণ্ডা পানি দিয়ে সব সময় চুল ধোবেন। এতে চুল সোজাও হবে।

ক্যাস্টর অয়েল 
চুল বড় করতে ক্যাস্টর অয়েলের জুড়ি মেলা ভার। ক্যাস্টর অয়েলে অ্যান্টি-ফাংগাল এবং আন্টি ব্যাকটেরিয়াল উপাদান থাকে, যা স্ক্যাল্প ইনফেকশন হতে দেয় না, স্ক্যাল্প ইনফেকশন চুল না বাড়ার একটা বড় কারণ। ক্যাস্টর অয়েলে থাকা ওমেগা-৬ ফ্যাটি অ্যাসিড, ভিটামিন ই, প্রোটিন এবং অন্যান্য উপাদান থাকে যা চুলকে আর্দ্র রাখে। চুলের গোড়ায় ক্যাস্টর অয়েল ম্যাসাজ করলে চুল বাড়বে সহজে।

চুলে বেশি তাপ লাগাবেন না 
চুল শুকোতে বা বিভিন্ন স্টাইল করতে আমরা হেয়ার ড্রায়ার, স্ট্রেটনার, কালার ব্যবহার করি। ইলেক্ট্রনিক্সের এইসব জিনিস ব্যবহার করলে চুলের মারাত্মক ক্ষতি হয়, চুলের বৃদ্ধি কমে যায়।

বেশি শ্যাম্পু নয় 
বেশি শ্যাম্পু করলে চুল শুষ্ক হয়ে যাবে, ভেঙে যাবে। চুলের স্বাভাবিক আর্দ্রতা হারিয়ে যাবে। চুলের পুষ্টি কমে গেলে বাড়তে চাইবে না।

আরো কিছু সতর্কতা

> চুলে জট পড়া খুব স্বাভাবিক। কিন্তু এই জট ক্ষতি করে চুলের। জট ছাড়াতে চুলের ওপর চাপ দিই আমরা, এতে চুলের গোড়া আলগা হয়ে যায়, হেয়ার ফলও হতে পারে। চুল মোছার জন্য নরম তোয়ালে ব্যবহার করুন।

> অতিরিক্ত স্ট্রেস চুল পড়ার কারণ। তাই চুল বড় করতে নিজেকে স্ট্রেস মুক্ত রাখার চেষ্টা করুন।

> ধূমপান শুধু স্বাস্থ্যের পক্ষে নয়, চুলের জন্য ক্ষতিকর। ধূমপান করলে যে টক্সিন তৈরি হয় শরীরে, তা চুলের বৃদ্ধিতে বাধা দেয়।

> পুষ্টিকর খাবার খান। শাকসবজি এবং ফলমূল, মাছ বেশি করে খান। সেই সঙ্গে প্রচুর পানি পান করুন। চা কফি থেকে নিজেকে দূরে রাখুন। 

ডেইলি বাংলাদেশ/কেএসকে