৬০ বছরেও তাদের ত্বক ৩০ এর মতো দেখানোর রহস্য

ঢাকা, বুধবার   ২৮ অক্টোবর ২০২০,   কার্তিক ১৩ ১৪২৭,   ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

৬০ বছরেও তাদের ত্বক ৩০ এর মতো দেখানোর রহস্য

লাইফস্টাইল ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৬:৪১ ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০   আপডেট: ১৬:৪৬ ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০

ছবি: জাপানি নারী

ছবি: জাপানি নারী

ঝকঝকে কাচের মতো মসৃণ ত্বক। বয়স যতই ঊর্ধ্বমুখী হোক, মুখে বিন্দুমাত্র রেখাপাত নেই। মানে মুখ দেখে বোঝা সম্ভবই নয় তাদের বয়স কত। এরকম আকর্ষণীয় ত্বক পেতে আপনারও নিশ্চয়ই ইচ্ছে করে! 

তার জন্যই যত কাঠখড় পোড়ানো, কতরকম ত্বকের পরিচর্যা, কতরকম ট্রিটমেন্ট! অথচ প্রতিবেশী দেশ জাপানের মেয়েদের দিকে দেখুন!জাপানি নারী আছেন যাদের বয়স ৬০ বছর, অথচ দেখলে মনে হবে ৩০ বছরের একজন নারী। তাদের ত্বকের উজ্জ্বলতা, টানটান ভাব ও চুল দেখে বলে থাকি কী এমন রূপচর্চা করেন বা কী খান তারা যে এতো সুন্দর? চলুন তবে জেনে নেই  যাক সে সম্পর্কে- 

খাবার

একবার চিন্তা করেই দেখুন জাপানিজদের খাবার-দাবার নিয়ে। তারা সাধারণত মাছ, ভাত ও সামুদ্রিক শৈবাল খেয়ে থাকেন। এই খাবারগুলোই তাদের ঐতিহ্যগত খাবার এবং এগুলো দিয়েই তারা ডায়েট করে থাকেন। সৌন্দর্য রক্ষায় অতরিক্ত মাংস, চিনি, পাউরুটি ইত্যাদি কোনো কিছুই তারা খান না। 

এই খাবারগুলোর বদলে তারা ওমেগা ৩ ফ্যাটি এসিড, স্বাস্থ্যের জন্য ভালো এমন খাবার, অ্যান্টি এজিং উপাদান সমৃদ্ধ খাবার, ফাইবার, ভিটামিন এবং প্রচুর পরিমাণে মিনারেলযুক্ত খাবার খেয়ে থাকেন। মূলত তাদের স্বাস্থ্য ও সৌন্দর্যের জন্য যা ভালো তাই তারা খেয়ে থাকেন। জাপানিজ নারীদের রূপের রহস্য
 
ভাত

জাপানিজদের সবচেয়ে প্রিয় খাবার হলো ভাত। ভাত শুধু স্বাস্থ্যকর খাবার নয়, এটিতে আছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ও মিনারেল যা ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করে। জাপানিজরা ভাত রান্না করার পর ভাতের মাড় ঠাণ্ডা করে তা দিয়ে মুখ ধুয়ে এবং গোসলের পানির সঙ্গেও তারা ভাতের মাড় মিশিয়ে গোসল করে। কারণ ভাতের মাড়ে যে মিনারেল উপাদান থাকে তা শরীরকে ঠাণ্ডা করে।
 
তারা বিভিন্ন উপায়ে ত্বকের যত্ন নেয়সৌন্দর্যচর্চায় প্রাকৃতিক তেল

আমরা তো ত্বকের চর্চায় সবসময় অয়েল ফ্রি দ্রব্য বেছে নিই। তবে জাপানিরা তাদের সৌন্দর্যচর্চায় ব্যবহার করে থাকেন প্রাকৃতিক তেল যা হার্বাল তেল হিসেবে পরিচিত যেমন- ক্যামেলিয়া অয়েল, এই তেলটি তারা মেকআপ পরিষ্কার করার জন্য ব্যবহার করে থাকেন।
 
সূর্যের আড়ালে থাকে

আমরা জানি, ভিটামিন ডি নবজাতক ও ছোট বাচ্চাদের জন্য ভালো তবে অতিরিক্ত ভালো নয়। তবে জাপানিজ নারীরা এই বিষয়ে খুব সচেতন তারা বহু বছর আগে থেকেও ধারণা করে আসছেন যে সূর্যের  রশ্মি ত্বকের জন্য ক্ষতিকর। 

তবে এখন তারা বেশিরভাগ সময় বাইরেই থাকেন, তবে সানস্ক্রিন ব্যবহার করতে ভোলেন না। আর যদি সানস্ক্রিন লাগাতে ভুলে যান তাহলে এমন ভাবে নিজেদের রক্ষা করেন যেন সূর্যের আলো গায়ে না লাগে।
 
চুলের সৌন্দর্যে কাঠের চিরুনি 

জাপানি নারীরা তাদের চুলের সৌন্দর্যে বিশেষ করে কাঠের চিরুনি ব্যবহার করে থাকেন। যা সম্পূর্ণ হাতে তৈরি করা হয়ে থাকে। এই কাঠের চিরুনির ক্ষুদ্র সামান্য ছিদ্র মাথার স্কাল্পের প্রাকৃতিক তেল ধারণ করে থাকে এবং চুল আঁচড়ানোর সময় প্রতিটি চুলে তা ছড়িয়ে দেয়। 

এই কারণে চুল থাকে ময়েশ্চারযুক্ত, উজ্জ্বল, মজবুত ও স্বাস্থ্যবান। জাপানিজ নারীরা তাদের চুল পরিষ্কার করার জন্য সামুদ্রিক শৈবালের গুঁড়া ব্যবহার করে থাকেন। তারা কেমিকেলযুক্ত কোনো শ্যাম্পু ব্যবহার করেন না। চুলের সৌন্দর্যে জাপানিজরা চুলে ক্যামেলিয়া অয়েল ব্যবহার করে থাকেন। এই তেল তাদের চুলের সৌন্দর্য দ্বিগুণ বাড়িয়ে দেয়।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএমএস