৮ দেশের বৈদেশিক মুদ্রাসহ গ্রেফতার জাহাঙ্গীরের স্বীকারোক্তি

ঢাকা, শুক্রবার   ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১,   আশ্বিন ২ ১৪২৮,   ০৮ সফর ১৪৪৩

৮ দেশের বৈদেশিক মুদ্রাসহ গ্রেফতার জাহাঙ্গীরের স্বীকারোক্তি

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৭:৫৪ ৩০ জুলাই ২০২১  

গ্রেফতারকৃত জাহাঙ্গীর গাজী - ডেইলি বাংলাদেশ

গ্রেফতারকৃত জাহাঙ্গীর গাজী - ডেইলি বাংলাদেশ

হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আড়াই কোটি টাকা মূল্যমানের আট দেশের বৈদেশিক মুদ্রাসহ গ্রেফতার জাহাঙ্গীর গাজী আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

শুক্রবার ঢাকা মহানগর হাকিম রাজেশ চৌধুরীর আদালত তার জবানবন্দি রেকর্ড করেন। সংশ্লিষ্ট আদালতের সাধারণ নিবন্ধন শাখা সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। 

এদিন রিমান্ড শেষে আসামি জাহাঙ্গীরকে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করা হয়। এসময় আসামি স্বেচ্ছায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে সম্মত হন। এরপর মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ফৌজদারি কার্যবিধি ১৬৪ ধারায় তার জবানবন্দি রেকর্ড করার আবেদন করেন। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত তার জবানবন্দি রেকর্ড করেন। এরপর তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। 

এর আগে গত ২৬ জুলাই টার্কিশ এয়ারলাইন্সের ফ্লাইটে তুরস্ক যাওয়ার সময় বিমানবন্দর আর্মড পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে। এরপর ২৭ জুলাই আসামিকে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করা হয়। এরপর বিমানবন্দর থানায় অর্থপাচার প্রতিরোধ আইনের মামলার সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে আসামির দশ দিনের রিমান্ড নিতে আবেদন করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকা মহানগর হাকিম মো. আশেক ইমামের আদালত তার দুই দিনের রিমান্ডের আদেশ দেন।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, বিমান যাত্রী জাহাঙ্গীর আগে কাপড়ের ব্যবসা করতেন। গত ২৬ জুলাই ভোর সাড়ে ৬টায় ফ্লাইটে যাওয়ার সময় ইমিগ্রেশন শেষে উড়োজাহাজে ওঠার আগ মুহূর্তে তাকে আটক করা হয়। তার সঙ্গে মুদ্রা থাকার কথা জিজ্ঞাসা করলে জাহাঙ্গীর অস্বীকার করেন। পরবর্তী সময়ে তল্লাশি করা হলে তার ব্যাগের ভেতরে শার্টের মধ্যে লুকানো অবস্থায় আটটি দেশের মুদ্রা পাওয়া যায়। এরমধ্যে ১১ লাখ ৬৫ হাজার সৌদি রিয়াল ছিল। এছাড়া ইউএস, মালয়েশিয়া, ইউরো, ওমান, কুয়েত, থাইল্যান্ড, দুবাইয়ের মুদ্রা ছিল। যার বাজার মূল্য ২ কোটি ৫০ লাখ বাংলাদেশি টাকা। 

বিমান যাত্রী জাহাঙ্গীর গত দুই বছরে ১৩৫ বার বিভিন্ন সময় আসা যাওয়া করেন। তিনি মূলত ব্যাগেজ সুবিধায় বিভিন্ন মূল্যবান জিনিস শুল্ক ফাঁকি দিয়ে আনা নেওয়ার কাজ করতেন। 

এর আগে, গত ২০ জুলাই প্রায় ১৪ কেজি তরল সোনা আটক করে আর্মড পুলিশ। এই সোনাও তুরস্ক থেকে নানা হয়। আটক মুদ্রাপাচারকারীও সোনা চোরাচালানের কাজে এই টাকা ব্যবহার করতে পারেন বলে ধারণা পুলিশের।

ডেইলি বাংলাদেশ/টিআরএইচ