চাঁদাবাজির মামলায় ঢাবি শিক্ষার্থী রুবেল রিমান্ডে

ঢাকা, রোববার   ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১,   আশ্বিন ৪ ১৪২৮,   ১০ সফর ১৪৪৩

চাঁদাবাজির মামলায় ঢাবি শিক্ষার্থী রুবেল রিমান্ডে

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৯:২৪ ২৭ জুলাই ২০২১  

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আকতারুল করিম রুবেল- ফাইল ফটো

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আকতারুল করিম রুবেল- ফাইল ফটো

চাঁদা না পেয়ে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের কর্মচারীকে মারধরের অভিযোগে করা মামলায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আকতারুল করিম রুবেলের এক দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। 

মঙ্গলবার ঢাকা মহানগর হাকিম মো. আশেক ইমামের আদালত এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এদিন আসামি রুবেলকে ঢাকা মহানগর আদালতে হাজির করা হয়। এরপর রাজধানীর শাহবাগ থানায় করা মামলার সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে এবং ঘটনার মূল রহস্য উদঘাটনসহ ঘটনায় জড়িত অজ্ঞাতনামা পলাতক আসামিদের শনাক্তসহ গ্রেফতারের লক্ষ্যে বিভিন্ন স্থানে অভিযান পরিচালনার জন্য আসামির পাঁচ দিনের রিমান্ডে নিতে আবেদন করেন তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই মোহাম্মদ রইচ হোসেন। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত তার একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। এসময় আসামিপক্ষে কোনো আইনজীবী ছিলেন না।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ভুক্তভোগী মনির হোসেন শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাষ্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউট এর ওয়ার্ড বয় হিসেবে কর্মরত। গতকাল সোমবার সকাল ৯টার দিকে মনির ও তার সহকর্মী মো. সোহেল, হারুন নাস্তা করার উদ্দেশ্যে হাসপাতাল থেকে আনন্দবাজার খাবার হোটেলে যাওয়ার উদ্দেশ্যে বের হয়। এ সময় আসামি আকতারুলসহ আরো অজ্ঞাতনামা দুই থেকে তিনজন ভুক্তভোগীর গতিরোধ করে তার কাছে পাঁচ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে। চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানালে আসামিরা বাদীকে হত্যা করার উদ্দেশ্য হাতে থাকা কাট ও রড দিয়ে মারাত্মক আঘাত করে। তখন ভুক্তভোগীকে বাচাঁতে তার সহকর্মীরা এগিয়ে আসলে তাদেরও শরীরের বিভিন্ন স্থানে কাঠ ও রড দিয়ে পিটিয়ে আঘাত করে হামলাকারী চাঁদাবাজরা। একপর্যায়ে তাদের চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে আসামি রুবেলকে আটক করলেও অন্য আসামিরা কৌশলে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের কর্মচারী মনির হোসেন বাদী হয়ে শাহবাগ থানায় মামলা করেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকেএ