আরমানিটোলার আগুন: আসামি ফিরোজের জামিন

ঢাকা, রোববার   ২০ জুন ২০২১,   আষাঢ় ৮ ১৪২৮,   ০৮ জ্বিলকদ ১৪৪২

আরমানিটোলার আগুন: আসামি ফিরোজের জামিন

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৯:৩৯ ৯ জুন ২০২১  

আরমানিটোলার আগুন

আরমানিটোলার আগুন

রাজধানীর পুরান ঢাকার আরমানিটোলার হাজি মুসা ম্যানসনে কেমিকেল গোডাউনে আগুনের ঘটনায় করা মামলায় আসামি ফিরোজ শহিদুল ইসলাম ফিরোজের জামিন দিয়েছেন আদালত।

বুধবার ঢাকার অতিরিক্ত মহানগর হাকিম আসাদুজ্জামান নূরের ভার্চুয়াল আদালত শুনানি শেষে এই আদেশ দেন। সংশ্লিষ্ট আদালতের সাধারণ নিবন্ধন শাখা সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

এদিকে এ মামলায় গত রোববার আসামি বাপ্পি, আশরাফ হোসেন গাফফার, সাইদুল ইসলামের জামিন দেন। তার পরদিন সোমবার আসামি মোস্তাক আহমেদ চিশতি ও বদরুজ জামান তারেকের জামিন দেয়া হয়। গত ২৩ এপ্রিল বংশাল থানার উপ-পরিদর্শক মোহাম্মদ আলী শিকদার ৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। মামলায় অজ্ঞাতনামা আরো ১৫/২০ জনকে আসামি করা হয়েছে। আদালত এ মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আগামী ১০ জুন দিন ধার্য করেছেন।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, গত ২২ এপ্রিল রাত ৩টার দিকে হাজী মুসা ম্যানশনে নিচতলায় আগুন লাগে। ফায়ার সার্ভিসের ১৯টি টিম প্রায় সাড়ে ছয় ঘণ্টা চেষ্টা করে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার পর ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধার কর্মীরা থানা পুলিশের সহায়তায় বিল্ডিংয়ের ভেতর প্রবেশ করে আহত অবস্থায় ২১ জনকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য দ্রুত শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সাজারি ইন্সটিটিউটে পাঠায়। পরে বিল্ডিং তল্লাশি করে তিনজন পুরুষ ও একজন মহিলার লাশ উদ্ধার করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বিভাগীয় প্রধান স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক মেডিসিন বিভাগে পাঠানো হয়।

হাসপাতালের মর্গে রাসেল (২৮), সুমাইয়া (২২), অলিউল্লাহ (৪৫) ও কবির (৪০) মরদেহের সুরতহাল রিপোর্ট প্রস্তুত করে মৃত্যু সঠিক কারণ নির্ণয়ের জন্য ফরেনসিক বিভাগে পাঠানো হয়।

মামলার অভিযোগে আরো বলা হয়, মুসা ম্যানশনের মালিক মোস্তফা আহম্মেদসহ অন্যান্য কেমিকেল ব্যবসায়ীরা মুসা ম্যানশনের নিচতলায় দাহ্য পদার্থ এবং কেমিকেল সংরক্ষণের জন্য দোকান/গোড়াউন হিসাবে তাচ্ছিল্যভাবে ব্যবহার করে। কেমিকেলের গোডাউনের আগুন আগুন লাগার ফলে বিষাক্ত ধোয়ায় শ্বাসরুদ্ধ হয়ে ও আগুনে দগ্ধ হয়ে রাসেল, সুমাইয়া, আলিউল্লাহ ও কবিরদের মৃত্যু হয়। ওই বাড়িতে বসবাসরত আবাসিক ভাড়াটিয়াদের বিভিন্ন আসবাবপত্র আগুনে পোড়ে ও ভাংচুর হয়ে অনুমানিক ৫০ লাখ টাকা ক্ষতি হয়।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএইচ