হজে পাঠানোর প্রলোভনে অর্থ আত্মসাৎ: প্রতারক নজরুল রিমান্ডে 

ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৫ জুন ২০২১,   আষাঢ় ২ ১৪২৮,   ০৩ জ্বিলকদ ১৪৪২

হজে পাঠানোর প্রলোভনে অর্থ আত্মসাৎ: প্রতারক নজরুল রিমান্ডে 

নিজস্ব প্রতিবেদক  ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২০:৩১ ৫ মে ২০২১   আপডেট: ২০:৩২ ৫ মে ২০২১

গ্রেফতার মো. নজরুল ইসলাম- ফাইল ফটো

গ্রেফতার মো. নজরুল ইসলাম- ফাইল ফটো

সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজে পাঠানোর প্রলোভন দেখিয়ে মুসল্লিদের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগে গ্রেফতার মো. নজরুল ইসলামের দুদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

বুধবার ঢাকা মহানগর হাকিম দেবব্রত বিশ্বাসের আদালত শুনানি শেষে এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এদিন আসামি নজরুলকে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করা হয়। এরপর মামলার সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে শাহবাগ থানার মামলায় তদন্তকারী কর্মকর্তা আসামির সাতদিনের রিমান্ডে নিতে আবেদন করেন। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত তার দুদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। 

এর আগে খুলনা মেট্রোপলিটন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) ডিবি সাইবার অ্যান্ড স্পেশাল ক্রাইম বিভাগ। এসময় তার কাছ থেকে দুটি মোবাইল, তিনটি সিম কার্ড ও সাড়ে পাঁচ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়।

সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজ পালনের জন্য নিবন্ধনের নামে প্রতারণার অভিযোগে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা মুহা. ইয়াকুব আলী জুলমাতির বাদী হয়ে সোমবার শাহবাগ থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, হজ মৌসুমকে কেন্দ্র করে একটি প্রতারক চক্র বিভিন্ন মাওলানা, বিশেষ করে মসজিদের ইমাম ও ধর্মপ্রাণন মুসলমানদের সরকারিভাবে হজের জন্য নিবন্ধিত হয়েছেন মর্মে ফোন করেন। সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজ পালনে নিবন্ধনের কাজ দ্রুত করতে সাড়ে সাত হাজার টাকা পাঠানোর জন্য একটি বিকাশ বা নগদ নাম্বার প্রেরণ করেন। টাকা প্রেরণ না করলে নিবন্ধন বাতিল হবে বলে জানায় প্রতারকরা। এমনকি তারা নোয়াখালী ১ আসনে এমপির এপিএস পরিচয় দিয়ে প্রতারণা করেছে।

মামলার সূত্রে আরো জানা যায়, প্রতারকরা ধর্ম মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা ও এমপিদের ব্যক্তিগত সহকারী পরিচয় দিয়ে হজ গমনেচ্ছু লোকদের ফোন করেন। সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজে পাঠানোর প্রলোভন দেখিয়ে হজ গমনেচ্ছুদের ফোন করে বিকাশ ও নগদের মাধ্যমে টাকা হাতিয়ে নিচ্ছিল একজন প্রতারক। এমন অভিযোগের ভিত্তিতে নজরুলকে গ্রেফতার করা হয়।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকেএ