সহকর্মীর শরীরে মজা করে বালি ছিটানোয় হত্যা

ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৩ এপ্রিল ২০২১,   চৈত্র ৩০ ১৪২৭,   ২৯ শা'বান ১৪৪২

স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি

সহকর্মীর শরীরে মজা করে বালি ছিটানোয় হত্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:১২ ৭ এপ্রিল ২০২১   আপডেট: ১৪:১৬ ৭ এপ্রিল ২০২১

পিটেয়ে হ্ত্যা। প্রতীকী ছবি

পিটেয়ে হ্ত্যা। প্রতীকী ছবি

রাজধানী ঢাকার বিমানবন্দরে শ্রমিক হিসেবে কাজ করতো মামুন ও লেলিন। মজা করে সহকর্মী লেলিনের শরীরে বালু ছিটান মামুন। আর এতেই হত্যার শিকার হন মামুন।

আসামি লেলিনের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দির বরাত দিয়ে বুধবার এ ঘটনা জানিয়েছেন বিমানবন্দর থানার এসআই মো. কবির হোসেন।

তিনি জানান, রাজধানীর বিমানবন্দর এলাকায় শ্রমিক মামুনকে হত্যা মামলায় আসামি লেলিন স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট দেবদাস চন্দ্র অধিকারী তার জবানবন্দি গ্রহণ করেন। পরে আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেন দেন।

এছাড়া বুধবার আদালতের সংশ্লিষ্ট থানার সাধারণ নিবন্ধন (জিআর) শাখা থেকেও এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে। 

এসআই জানান, নির্মাণাধীন ভবনের নিচে লেলিন দাঁড়িয়ে ছিল। এ সময় মজা করতে গিয়ে উপর থেকে লেলিনের শরীরে বালি দেয় মামুন। এ নিয়ে তাদের মধ্যে হাতাহাতি হয়। মামুন এক পর্যায়ে লেলিনের মাথায় রড দিয়ে আঘাত করলে তার মাথা ফেটে যায়। পরে লেলিনকে হাসপাতালে নেয়া হয়।

কবির হোসেন আরো বলেন, পরে এ ঘটনার মীমাংসাও করা হয়। কিন্তু দুপুরে মামুন বাসায় খেতে গেলে লেলিন তার বুকে-পিঠে-মাথায় আঘাত করে। এতে অচেতন মামুন হয়ে যায়। প্রথমে তাকে স্থানীয় হাসপাতালে নেয়া হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

জানা গেছে, গতকাল মঙ্গলবার বিমানবন্দর থানার মামলায় তদন্ত কর্মকর্তা এসআই আব্দুর রহিম আসামি লেলিনকে আদালতে হাজির করেন। একই সঙ্গে স্বেচ্ছায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে সম্মত হওয়ায় তা রেকর্ড করার আবেদন করেন। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিচারক তার জবানবন্দি গ্রহণ করেন। এরপর তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

নিহত মামুনের গ্রামের বাড়ি দিনাজপুর জেলার চিরিরবন্দর থানার মোহনপুর গ্রামে। তার বাবার নাম মাজেদুল ইসলাম।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডআর