ধর্ষণের শিকার নারী-শিশুর পরিচয় প্রকাশ করা যাবে না

ঢাকা, রোববার   ১১ এপ্রিল ২০২১,   চৈত্র ২৮ ১৪২৭,   ২৭ শা'বান ১৪৪২

ধর্ষণের শিকার নারী-শিশুর পরিচয় প্রকাশ করা যাবে না

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:১৮ ৮ মার্চ ২০২১  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

ধর্ষণ ও যৌন নির্যাতনের শিকার নারী ও শিশুর ছবি বা পরিচয় প্রকাশের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে হাইকোর্ট। এখন থেকে কোনো গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভিকটিমের ছবি বা পরিচয় প্রকাশ করা যাবে না মর্মে আদেশ দেয়া হয়েছে।

এ সংক্রান্ত রিট আবেদনের প্রেক্ষিতে বিচারপতি ফারাহ মাহবুব ও বিচারপতি এসএম মনিরুজ্জামানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ সোমবার এ আদেশ দেন। আদালত বলেছে, ভিকটিমের ছবি বা পরিচয় প্রকাশ অমানবিক।

এছাড়া নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ১৪ ধারায় সংবাদ মাধ্যমে নির্যাতিতা নারী ও শিশুর পরিচয় প্রকাশের ব্যাপারে বাধা-নিষেধের কথা বলা হয়েছে। এই ধারা কার্যকরে সরকার কি পদক্ষেপ নিয়েছে সেই ব্যাপারে প্রতিবেদন চেয়েছে হাইকোর্ট। আগামী এক মাসের মধ্যে স্বরাষ্ট্র সচিব, তথ্য সচিব, আইন সচিব, বিটিআরসি চেয়ারম্যান ও প্রেস কাউন্সিল চেয়ারম্যানকে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

ঢাকার কলাবাগানে ধর্ষণ ও হত্যার শিকার হন এক কিশোরী। ওই ঘটনায় কিশোরীর নাম, পরিচয় ও ছবি বিভিন্ন প্রিন্ট, ইলেকট্রনিক ও অনলাইন মিডিয়ায় প্রকাশ করা হয়। এছাড়া বিভিন্ন সময়ে ধর্ষণের শিকার মৃত নারী ও শিশুর পরিচয় ও ছবি হরহামেশাই মিডিয়ায় প্রচার ও প্রকাশ করা হয় উল্লেখ করে হাইকোর্টে এ রিট করেন বেসরকারি মানবাধিকার সংগঠন জাস্টিস ওয়াচ ফাউন্ডেশনের পক্ষে ব্যারিস্টার মাহফুজুর রহমান মিলন।

শুনানিতে তিনি বলেন, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ১৪ ধারায় ভিকটিমের ছবি ও পরিচয় প্রকাশের ক্ষেত্রে বাধা-নিষেধ আরোপ করা হয়েছে। কিন্তু আইনের এই বিধান উপেক্ষা করেই ভিকটিমের ছবি ও পরিচয় হরহামেশা প্রকাশ করা হচ্ছে। এতে ভিকটিম ও তার পরিবার সামাজিকভাবে হেয় হচ্ছে। এ বিষয়ে উচ্চ আদালতের হস্তক্ষেপ প্রয়োজন। শুনানি শেষে হাইকোর্ট অন্তর্বর্তীকালীন আদেশের পাশাপাশি রুল জারি করে। 

রুলে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনের ১৪ ধারার বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে বিবাদীদের নিষ্ক্রিয়তাকে কেন বেআইনি ঘোষণা করা হবে না তা জানতে চাওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে বিচারাধীন মামলায় ধর্ষণ ও যৌন নির্যাতনের শিকার নারী ও শিশুকে দোষী সাব্যস্ত বা চরিত্র হনন করে কোনো বক্তব্য প্রকাশ কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে তাও জানতে চেয়ে রুল জারি করা হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডআর