আপন জুয়েলার্সের অপর দুই মালিকের বিরুদ্ধে চার্জশিট 

ঢাকা, রোববার   ১১ এপ্রিল ২০২১,   চৈত্র ২৯ ১৪২৭,   ২৭ শা'বান ১৪৪২

আপন জুয়েলার্সের অপর দুই মালিকের বিরুদ্ধে চার্জশিট 

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৯:৪৯ ৭ মার্চ ২০২১  

গুলজার আহমেদ ও আজাদ আহমেদ

গুলজার আহমেদ ও আজাদ আহমেদ

শুল্ক ও কর ফাঁকি দিয়ে চোরাচালানের মাধ্যমে স্বর্ণালঙ্কার মজুতের অভিযোগে করা মামলায় আপন জুয়েলার্সের অপর দুই মালিক গুলজার আহমেদ ও আজাদ আহমেদের বিরুদ্ধে পৃথক দুটি চার্জশিট (অভিযোগপত্র) দাখিল করা হয়েছে।

রোববার সংশ্লিষ্ট সাধারণ নিবন্ধন (জিআর) শাখা সূত্রে জানা গেছে, গত ২৮ ফেব্রুয়ারি মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা আরিফ হোসেন আদালতে এ অভিযোগ পত্র দাখিল করেন।

গুলশান থানায় অর্থ পাচার প্রতিরোধ আইনে করা পৃথক দুই মামলায় একটিতে আজাদ আহমেদকে এবং অপরটিতে গুলজার আহমেদ ও আজাদ আহমেদ দুজনকেই আসামি করা হয়েছে।

এদিকে গত ২৮ ফেব্রুয়ারি রমনা থানায় শুল্ক ও কর ফাঁকি মামলায় আপন জুয়েলার্সের আরেক মালিক দিলদার হোসেন সেলিমের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেছেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা দেলোয়ার হোসেন। বর্তমানে মামলাটি বিচারের জন্য প্রস্তুত হয়েছে।

সূত্রে জানা যায়, আপন জুয়েলার্স বিভিন্ন সময় সাড়ে ১৩ মণ সোনা ও পৌনে আট হাজার পিস ডায়মন্ড কিনতে গিয়ে ১৯০ কোটি ৭৮ লাখ টাকা পাচার করেছে। এতে কর ফাঁকির পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ২৭ কোটি ৫২ লাখ টাকা। রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে এসব অর্থপাচার করা হয়।

২০১৭ সালে আপন জুয়েলার্সের পাঁচটি শাখায় একযোগে অভিযান চালায় শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদফতর। অভিযানে আপন জুয়েলার্সের পাঁচটি শাখা থেকে জব্দ করা হয় ৫৩৭ কেজি ৫০০ গ্রাম সোনা ও সাত হাজার ৭৪৩ পিস ডায়মন্ড।

ওই বছরের ১২ আগস্ট আপন জুয়েলার্সের বিরুদ্ধে গুলশান থানায় দুটি, ধানমন্ডি থানায় একটি, রমনা থানায় একটি ও উত্তরা পূর্ব থানায় একটি মামলা করে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদফতর।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএইচ