ফরিদপুরের রুবেল-বরকতের ৫৭০৬ বিঘা সম্পত্তি জব্দ

ঢাকা, রোববার   ১৮ এপ্রিল ২০২১,   বৈশাখ ৬ ১৪২৮,   ০৫ রমজান ১৪৪২

২ হাজার কোটি টাকা পাচার

ফরিদপুরের রুবেল-বরকতের ৫৭০৬ বিঘা সম্পত্তি জব্দ

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১২:৪৫ ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১  

রুবেল ও বরকত। ফাইল ছবি

রুবেল ও বরকত। ফাইল ছবি

দুই হাজার কোটি টাকা পাচারের মামলায় ফরিদপুরের সাজ্জাদ হোসেন বরকত ও তার ভাই ইমতিয়াজ হাসান রুবেলের ৪৮৭ টি তফসিলে পাঁচ হাজার ৭০৬ বিঘা সম্পত্তি জব্দের আদেশ দিয়েছেন আদালত। 

বৃহস্পতিবার ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশের আদালত এ আদেশ দেন। একই সঙ্গে ১৮৮ ব্যাংক হিসাবের পৌনে ১০ কোটি টাকা এবং বাস, ট্রাক, মাইক্রোবাস ও প্রাইভেট কারসহ ৫৫টি গাড়ি জব্দের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

এর আগে মামলার তদন্তের স্বার্থে তাদের তফসিল সম্পত্তি, ব্যাংক হিসাব ও গাড়ি জব্দের জন্য আদালতে আবেদন করেন সিআইডি। পরে আদালত আবেদন মঞ্জুর করে এ আদেশ দেন।

এদিকে গত ৮ অক্টোবর এ মামলায় বরকত ও তার ভাই রুবেলসহ পাঁচ জনের ৮৮ টি ব্যাংক হিসাব জব্দের নির্দেশ দেন আদালত। ব্যাংক হিসাব জব্দ হওয়া অন্য তিনজন হলেন বরকতের স্ত্রী আফরোজ আক্তার পারভীন, রুবেলের স্ত্রী সোহেলী ইমরোজ পুনম ও আব্দুস সাদেক মুকুল।

গত বছরের ২৬ জুন ফরিদপুর শহর আওয়ামী লীগের অব্যাহতিপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন বরকত ও তার ভাই ইমতিয়াজ হাসান রুবেলকে প্রধান আসামি করে অবৈধ উপায়ে দুই হাজার কোটি টাকা আয় ও পাচারের অভিযোগে ঢাকার কাফরুল থানায় মামলাটি দায়ের করে সিআইডি। ২০১২ সালের মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইন সংশোধনী–২০১৫–এর ৪ (২) ধারায় এ মামলা করা হয়।

এ মামলায় আদালতের মাধ্যমে রুবেল ও বরকতকে পাঁচদিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে সিআইডি। ওই সময় এর সঙ্গে জড়িত অনেকের নাম প্রকাশ করেন তারা। 

পরে রুবেল-বরকতের স্বীকারোক্তি ও তথ্যানুযায়ী জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নিশান মাহামুদ শামীমকে গ্রেফতার করা হয়। এর আগে এ মামলায় শহর আওয়ামী লীগের সভাপতি নাজমুল ইসলাম খন্দকার লেভী ও জেলা শ্রমিক লীগের অর্থ সম্পাদক বেল্লাল হোসেনকে গ্রেফতার করা হয়।

গত বছরের ৭ জুন রাতে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সুবল চন্দ্র সাহার বাড়িতে হামলার মামলার আসামি হিসেবে শহরের বদরপুরসহ বিভিন্ন মহল্লায় অভিযান চালিয়ে পুলিশ সাজ্জাদ হোসেন, তার ভাই ইমতিয়াজ হাসানসহ ৯ জনকে গ্রেফতার করে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডআর