গণপিটুনিতে রেনু হত্যা মামলার অভিযোগপত্র আমলে গ্রহণ

ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৯ জানুয়ারি ২০২১,   মাঘ ৫ ১৪২৭,   ০৪ জমাদিউস সানি ১৪৪২

গণপিটুনিতে রেনু হত্যা মামলার অভিযোগপত্র আমলে গ্রহণ

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৫:৫২ ২ ডিসেম্বর ২০২০  

তাসলিমা বেগম রেনু ও মেয়ে তুবা - ফাইল ছবি

তাসলিমা বেগম রেনু ও মেয়ে তুবা - ফাইল ছবি

রাজধানীর বাড্ডায় প্রাইমারি স্কুল গেটে ছেলেধরা সন্দেহে তাসলিমা বেগম রেনুকে গণপিটুনি দিয়ে হত্যা মামলায় অভিযোগপত্র আমলে গ্রহণ করেছেন আদালত। 

বুধবার ঢাকা মহানগর হাকিম মামুনুর রশিদের আদালত আমলে গ্রহণ করেন। একইসঙ্গে পলাতক আসামি মহিন উদ্দিনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি এবং এ বিষয়ে আগামী ৩ জানুয়ারি তামিল প্রতিবেদনের জন্য দিন ধার্য করেন আদালত। 

গত ১০ সেপ্টেম্বর মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের ইন্সপেক্টর আব্দুল হক ১৫ জনের বিরুদ্ধে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতের অভিযোগপত্র দাখিল করেন। এদের মধ্যে দুই জন অপ্রাপ্তবয়স্ক হওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে দোষীপত্র দিয়েছেন তদন্ত কর্মকর্তা।

অভিযোগপতত্রে উল্লেখিত আসামিরা হলেন- ইব্রাহিম ওরফে হৃদয় মোল্লা, রিয়া বেগম ময়না, আবুল কালাম আজাদ, কামাল হোসেন, মো. শাহিন, বাচ্চু মিয়া, মো. বাপ্পি, মুরাদ মিয়া, সোহেল রানা, আসাদুল ইসলাম, বেল্লাল মোল্লা, মো. রাজু ও মহিন উদ্দিন। এদের মধ্যে মহিন উদ্দিন পলাতক রয়েছেন।

জাফর হোসেন পাটোয়ারী ও ওয়াসিম আহমেদ অপ্রাপ্তবয়স্ক হওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে দোষীপত্র দেয়া হয়েছে। আসামিদের মধ্যে ওয়াসিম, হৃদয় এবং রিয়া বেগম আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। এদের মধ্যে রিয়া বেগম, বাচ্চু মিয়া, শাহীন, মুরাদ ও বাপ্পি উচ্চ আদালত থেকে জামিন পেয়েছেন।

গত বছরের ২০ জুলাই মেয়ে তুবার ভর্তির খোঁজখবর নিতেই বাড্ডা প্রাইমারি স্কুলে গিয়েছিলেন রেনু। এ সময় তাকে ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনিতে হত্যা করা হয়। ওই রাতেই রেনুর বোনের ছেলে নাসির উদ্দিন বাদী হয়ে বাড্ডা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলায় অজ্ঞাতনামা ৫শ’ জনকে আসামি করা হয়। পরে সিসিটিভির ফুটেজ দেখে গণপিটুনিতে জড়িত কয়েকজনকে শনাক্তের পর গ্রেফতার করে পুলিশ।

ডেইলি বাংলাদেশ/টিআরএইচ