অ্যাপ ছাড়া মোটরসাইকেলে যাত্রী ওঠালেই ব্যবস্থা নেবে ডিএমপি

ঢাকা, রোববার   ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০,   আশ্বিন ১৩ ১৪২৭,   ১০ সফর ১৪৪২

অ্যাপ ছাড়া মোটরসাইকেলে যাত্রী ওঠালেই ব্যবস্থা নেবে ডিএমপি

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৫:২২ ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২০  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

অ্যাপ ছাড়া মোটরসাইকেল বা প্রাইভেটকারে যাত্রী বহন করলেই আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। এছাড়া যাত্রী হিসেবে অ্যাপ ছাড়া মোটরযানে যাতায়াত না করার জন্যও আহ্বান জানিয়েছে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি)।

ডিএমপি বলছে, অ্যাপ ব্যতিরেকে যারা মোটরযানে যাত্রী হিসেবে উঠবেন তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। পাশাপাশি অ্যাপভিত্তিক মোটরসেবায় জড়িত বাইকাররা যদি অ্যাপ ছাড়া যাত্রী পরিবহন না করেন সে জন্য সংশ্লিষ্টরা যেন কার্যকরী ব্যবস্থা নেন সে বিষয়ে ডিএমপি যোগাযোগ করবে।

রাজধানীর উত্তরায় অ্যাপ ছাড়া যাত্রী পরিবহনে মোটরসাইকেলসহ ছিনতাইয়ের ঘটনায় দু’জনকে গ্রেফতারের পর বৃহস্পতিবার দুপুরে এ তথ্য জানিয়েছে ডিএমপি।

ডিএমপির মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশনস বিভাগ আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন ডিএমপির গোয়েন্দা বিভাগে (ডিবি) নবনিযুক্ত অতিরিক্ত কমিশনার এ কে এম হাফিজ আক্তার। তিনি বলেন, গত ২১ আগস্ট দুপুর দেড়টায় তুরাগ থানাধীন ১৫ নং সেক্টর ৫ নং ব্রিজ সংলগ্ন ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটির গলিতে মোটরসাইকেলসহ পৌঁছামাত্র পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিরা মোটরসাইকেলের গতিরোধ করে।

পরবর্তী সময়ে ভিকটিমকে চাকু দ্বারা বিভিন্ন প্রকার ভয়ভীতি প্রদর্শন করে তার ব্যবহৃত টিভিএস স্ট্রাইকার এবং একটি মোবাইলসেট ছিনতাই করে নিয়া যায়। ওই ঘটনায় তুরাগ থানায় একটি নিয়মিত মামলা হয়। তদন্তে জানা যায়, অ্যাপ ছাড়াই যাত্রী পরিবহন করছিলেন ভুক্তভোগী।

ওই ঘটনায় গোয়েন্দা উত্তরা বিভাগের বিভাগের একটি টিম বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে ছিনতাইকৃত মোটরসাইকেলসহ ছিনতাইকারী চক্রের দু’জনকে রাজধানী ও বাগেরহাট থেকে গ্রেফতার করে। এরা হলেন- মো. মাসুম মোল্লা ও মো. ইমরান। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতাররা ওই ঘটনায় সরাসরি জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন।

হাফিজ আক্তার বলেন, যখন কোনো যাত্রী পাঠাও কিংবা উবারের মতো মোটরসেবায় মোটরসাইকেলে ওঠেন তখন কিন্তু পুলিশ জিজ্ঞাসা করে না কে কীভাবে উঠছে। যখন বিপদ হয় বা দুর্ঘটনা ঘটে তখন পুলিশ জানতে পারে।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, অ্যাপ ব্যতীত মোটরসেবায় চলাচল করা উচিত নয়। কারণ এতে ছিনতাইয়ের মতো সোশ্যাল ক্রাইম বেড়ে যেতে পারে। আমরা অ্যাপসভিত্তিক মোটরসেবার প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে যোগাযোগ করে এ বিষয়ে নিয়ন্ত্রণমূলক কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার জন্য নির্দেশনা দেব।

ডেইলি বাংলাদেশ/ইএ/এসআই