হাটহাজারী মাদরাসা থেকে আনাস মাদানীকে অব্যাহতি

ঢাকা, মঙ্গলবার   ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০,   আশ্বিন ১৪ ১৪২৭,   ১১ সফর ১৪৪২

হাটহাজারী মাদরাসা থেকে আনাস মাদানীকে অব্যাহতি

চট্টগ্রাম মহানগর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০০:২৭ ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২০   আপডেট: ০০:২৯ ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২০

আনাস মাদানী

আনাস মাদানী

ছাত্রদের দাবির প্রেক্ষিতে হাটহাজারী মাদরাসার মহাপরিচালক আল্লামা শাহ আহমদ শফীর ছেলে মাওলানা আনাস মাদানীকে অব্যাহতি দিয়েছে মাদরাসা কর্তৃপক্ষ।

বুধবার রাত ১০টায় মাদরাসার শুরা সদস্য ও মেখল মাদরাসার পরিচালক মাওলানা নোমান ফয়জী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, মাদরাসার মহাপরিচালক আল্লামা শাহ আহমদ শফীর সভাপতিত্বে মাদরাসার সহকারী শিক্ষা সচিব মাওলানা আনাস মাদানীকে অব্যাহতিসহ মোট তিনটি সিদ্ধান্ত নিয়েছে শুরা কমিটি। এখন থেকে মাদরাসার ছাত্রদের কোনো রকমের হয়রানি করা হবে না। আগামী শনিবার মজলিসে শুরার সব সদস্য মিলে বাকী সমস্যাগুলো সমাধান করবেন।

 আরো পড়ুন: হাজারো ছাত্রের বিক্ষোভে উত্তাল হাটহাজারী মাদরাসা

এর আগে দুপুর থেকে আনাস মাদানীকে বহিষ্কারসহ বেশ কয়েকটি দাবি জানিয়ে মাদরাসা মাঠে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ শুরু করে ছাত্ররা। এ সময় হেফাজতে ইসলামের মহাসচিব আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরীসহ কয়েকজন শিক্ষককে অবরুদ্ধ ও লিফলেট আকারে মাদরাসায় দাবিগুলো পেশ করে তারা।

তাদের দাবিগুলো হলো- আল্লামা শাহ আহমদ শফী অক্ষম হওয়ায় মহাপরিচালকের পদ থেকে তাকে সম্মানজনকভাবে অব্যাহতি দিয়ে উপদেষ্টা বানানো, মাদরাসার সহকারী শিক্ষা সচিব মাওলানা আনাস মাদানীকে অনতিবিলম্বে মাদরাসা থেকে বহিষ্কার করা, ছাত্রদের প্রাতিষ্ঠানিক সুযোগ-সুবিধা প্রদান ও সব প্রকার হয়রানি বন্ধ করা, শিক্ষকদের পূর্ণ অধিকার ও নিয়োগ-বিয়োগকে শুরার কাছে পূর্ণ ন্যস্ত করা এবং বিগত শুরার হক্কানী আলেমদের পুনর্বহাল ও বিতর্কিত সদস্যদের পদচ্যুত করা।

ছাত্রদের অভিযোগ, আল্লামা শফীর বার্ধক্যজনিত অসুস্থতার সুযোগে কোনো নিয়মনীতি না মেনেই হাটহাজারী মাদরাসা থেকে শিক্ষক-কর্মচারীদের চাকরিচ্যুত করছেন আনাস মাদানী। সম্প্রতি কয়েকজন ছাত্রকে বহিষ্কার করা হয়। এছাড়া হাটহাজারী মাদরাসা, হেফাজতে ইসলাম ও কওমি মাদরাসা বোর্ডের (বেফাক) ওপর প্রভাব বিস্তারের অভিযোগও উঠেছে আনাস মাদানীর বিরুদ্ধে।

আরো পড়ুন: খুলনায় বিনামূল্যে মোবাইল পেল ১২৫০ শিক্ষার্থী

জানা গেছে, শুক্রবার চট্টগ্রাম সফর করে বাংলাদেশ খেলাফত মজলিশের যুগ্ম-মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হকের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল। সেদিন ফটিকছড়ির বাবুনগর মাদরাসায় আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরীর উপস্থিতিতে আহমদ শফীর নেতৃত্ব নিয়ে প্রশ্ন তোলেন মামুনুল হক। এরপর থেকেই বিষয়টি নিয়ে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম