৫০ বছর পার হলেও শেষ হয়নি একটি ব্রিজের অপেক্ষা

ঢাকা, রোববার   ০৯ মে ২০২১,   বৈশাখ ২৬ ১৪২৮,   ২৬ রমজান ১৪৪২

৫০ বছর পার হলেও শেষ হয়নি একটি ব্রিজের অপেক্ষা

নূর ইসলাম রোমান, তাড়াশ (সিরাজগঞ্জ) ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৩:২৬ ৫ মে ২০২১  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলার সগুনা ইউপির কাটাবাড়ি গ্রামের মাঝ দিয়ে বয়ে যাওয়া নদীর ওপর ৫০ বছরেও তৈরি হয়নি ব্রিজ। একটি ব্রিজের জন্য প্রহর গুনছেন কাটাবাড়ি গ্রামের পূর্ব ও পশ্চিম পাড়ের গ্রামের হাজারো মানুষ। গ্রামবাসীর অভিযোগ, বর্ষাকালে স্রোতকে উপেক্ষা করে ডিঙি নৌকায় পার হয়ে বিভিন্ন স্থানে যেতে হয়। অন্যদিকে শুষ্ক মৌসুমে পায়ে হেঁটে নদী পার হয়ে যেতে হয় বিভিন্ন প্রান্তে।

গ্রামবাসীর সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, কাটাবাড়ি গ্রামের মাঝদিয়ে বয়ে গেছে গোমানী নদী আর এই নদীই স্থানীয়দের যাতায়াতে কাল হয়ে দাঁড়িয়েছে। ভোগান্তির শিকার স্কুলগামী শিক্ষার্থীরাও। বিশেষ করে কোনো নারীর প্রসব বেদনা উঠলে অথবা মুমূর্ষু রোগীকে হাসপাতালে নিতে হলে পড়তে হয় নানা বিড়ম্বনায়। তবে সবচেয়ে বেশি ভোগান্তির শিকার হতে বর্ষাকালে।

স্থানীয় আফসার প্রামাণিক, মহসিন আলী, সোলেমান আলী ও খোদাবক্স ব্রিজ নির্মাণের দাবি জানিয়ে বলেন, এখানে একটি ব্রিজ নির্মিত হলে একদিকে যেমন এলাকার বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের পাঁচ শতাধিক শিক্ষার্থী নিরাপদে আসা-যাওয়া করতে পারবে, অপরদিকে গ্রামের মানুষসহ আশপাশের ১০টি গ্রামের যোগাযোগ ব্যবস্থা, হাটবাজার, অবকাঠামোগত উন্নয়ন ও গ্রামীণ ব্যবসা-বাণিজ্যের প্রসার ঘটবে। তবে ৫০ বছরেও তাদের দাবি পূরণ হয়নি।

কাটাবাড়ি গ্রামের বাসিন্দা ও স্কুলশিক্ষক সিরাজুল হক বলেন, গ্রামের হাজারো মানুষ শাক-সবজিসহ বিভিন্ন চাষাবাদ করেন। দীর্ঘদিন ধরে গ্রাম একটি হলেও দুভাগে বিভক্ত হয়ে আছে মাঝ দিয়ে নদী থাকায়। একটি ব্রিজ হলে এখানকার বাসিন্দাদের জীবনযাত্রা বদলে যাবে। গ্রামের আফসার আলীর বাড়ি থেকে হায়দারের সরকারের বাড়ি পযর্ন্ত একটা ব্রিজ আর দুই কিলোমিটার পাকা সড়ক নির্মাণের দাবি জানান তিনি।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. মনি জানান, উপজেলার একমাত্র অবহেলিত গ্রাম এটি। অথচ এই গ্রামের ফসলি মাঠ থেকে প্রচুর পরিমাণে শাকসবজি উৎপাদিত হয়। যা দেশের বিভিন্ন এলাকায় বিক্রি হয়। অথচ একটি ব্রিজ হলে এলাকার কৃষকরা তাদের উৎপাদিত ফসলের সঠিক দাম পেতেন।

তাড়াশ উপজেলা এলজিইডির সহকারী প্রকৌশলী মো. আনোয়ার হোসেন জানান, সড়ক পাকাকরণের জন্য ও একটা ব্রিজের বিষয়ে আমরা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। নির্দেশ আসলে কাজ শুরু হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএস