‘বাংলার উসাইন বোল্ট’ ইসমাইল হোসেন

ঢাকা, শুক্রবার   ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১,   আশ্বিন ২ ১৪২৮,   ০৮ সফর ১৪৪৩

‘বাংলার উসাইন বোল্ট’ ইসমাইল হোসেন

রাজিবুল ইসলাম ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৫:৫৯ ১৮ এপ্রিল ২০২১   আপডেট: ১৬:০৮ ১৮ এপ্রিল ২০২১

ইসমাইল হোসেন

ইসমাইল হোসেন

বঙ্গবন্ধু ৯ম বাংলাদেশ গেমস-২০২০ এ ১০০ মিটার স্প্রিন্টে সোনা জিতেছেন ইসমাইল হোসেন। স্বর্ণপদকের পাশাপাশি গতবারের চেয়েও উন্নতি করেছেন ‘বাংলার উসাইন বোল্ট’ খ্যাত এই অ্যাথলেট। নিজের ১০.৫৫ সেকেন্ডের রেকর্ড ভেঙে গড়েছেন ১০.৫০ সেকেন্ডের রেকর্ড।

এ নিয়ে পাঁচবারের মধ্যে চারবারই ১০০ মিটার স্প্রিন্টে চ্যাম্পিয়ন হলেন বাংলাদেশ নৌবাহিনীর এই তরুণ। স্বর্ণপদক জয়ের পর  নিজের অনুভূতি জানিয়েছেন ইসমাইল। সে গল্পই তুলে ধরা হলো নিচে।

প্রশ্ন: দ্রুততম মানব হয়ে কেমন লেগেছিল?

ইসমাইল হোসেন: আগের বাংলাদেশ গেমসে লং জাম্পে দ্বিতীয় হয়েছিলাম। প্রথমবার সেরা হতে পেরে আমি ভীষণ আনন্দিত। করোনার মধ্যে পারফরম্যান্স ভালোই হয়েছে। অল্প অনুশীলন করেও দ্রুততম মানব হতে পেরেছি। এখন অনুশীলন করা যায় না ঠিকমতো। শুধু একবেলা অনুশীলন করতে পারি। মাঝেমধ্যে ট্র্যাকে নামতেই পারি না। বিভিন্ন রুটিন থাকে। করোনা শেষে আশা করি ভালো টাইমিং করতে পারব।

ইসমাইল হোসেনপ্রশ্ন: এবার কোন মূলমন্ত্র নিয়ে ট্র্যাকে নেমে ছিলেন?

ইসমাইল হোসেন: সুস্থ থাকতে কেউ আমাকে পেছনে ফেলুক তা চাই না।  সব থেকে বড় চাওয়া ছিল বাংলাদেশ গেমসে আমার একটা গোল্ড থাকবে। আলহামদুলিল্লাহ, সেটা পূরণ হয়েছে। অলিম্পিকের আগে আমাকে অনুশীলনের সুবিধা দেয়া উচিত। তাহলে আশা করি টাইমিংটা আরো ভালো হবে। নৌবাহিনী আমাদের সুযোগ-সুবিধা দিচ্ছে। এখন ফেডারেশন থেকেও সেটা দেয়া হলে ভালো করতে পারব। 

প্রশ্ন: ট্র্যাকে নেমে কোন সমস্যা হয়েছে কি? 

ইসমাইল হোসেন: পায়ে একটু ব্যথা ছিল। প্রতিযোগিতা শেষে চিকিৎসা করাতে হয়েছিল। তা ছাড়া কোনো সমস্যা হয়নি। 

প্রশ্ন: প্রস্তুতি কেমন ছিল?

ইসমাইল হোসেন: যতটুকু দরকার ছিল ততটুকু প্রস্তুতি নিতে পেরেছি। তারপরও চিন্তিত ছিলাম গেমস হবে কি না। সব মিলিয়ে ট্র্যাকে দৌড়াতে পেরেছি। তাতেই খুশি। 

সোনা জয়ের পর ইসমাইলপ্রশ্ন: পদকটি কি করবেন?

ইসমাইল হোসেন: পদকটি মাকে উৎসর্গ করেছি। আমার উৎসাহের পেছনে আছেন মা। সব সময় নামাজ পড়ে আমার জন্য দোয়া করেন। দৌড়ানোর আগে ফোন দিয়ে মাকে বললাম দোয়া করতে। আল্লাহ মায়ের কথা শুনেছেন। তাই মাকেই গোল্ড মেডেলটা উৎসর্গ করলাম।

প্রশ্ন: বাংলাদেশ গেমস নিয়ে আপনার পর্যবেক্ষণ কী?

ইসমাইল হোসেন: করোনার মধ্যে যে বাংলাদেশ গেমস হয়েছে এটাই অনেক বেশি। এজন্য প্রধানমন্ত্রী ও ফেডারেশনকে ধন্যবাদ।

প্রশ্ন: এই অর্জন আপনাকে সামনে এগোতে কতটা প্রেরণা জোগাবে?

ইসমাইল হোসেন: অনেক, অনেক ... বেশি। সামনের গেমসগুলোয় ভালো করার শক্তি জোগাবে এই গোল্ড মেডেল।

দ্রুততম মানব ইসমাইল ও দ্রুততম মানবী শিরিনপ্রশ্ন: সামনে আর কি কি করতে চান?

ইসমাইল হোসেন: আপাতত নিজের জায়গাটা ধরে রাখতে চাই।

ধন্যবাদ আপনাকে।

ইসমাইল হোসেন: আপনাকেও ধন্যবাদ।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএস/এএল