প্রত্যাশার চেয়েও বেশি সাড়া পেয়েছি: ইমতিয়াজ বর্ষণ

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২৪ জুন ২০২১,   আষাঢ় ১০ ১৪২৮,   ১২ জ্বিলকদ ১৪৪২

প্রত্যাশার চেয়েও বেশি সাড়া পেয়েছি: ইমতিয়াজ বর্ষণ

ইসমাইল উদ্দীন সাকিব ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৯:২৪ ১৫ মার্চ ২০২১   আপডেট: ১৩:০৬ ২৫ মে ২০২১

ইমতিয়াজ বর্ষণ

ইমতিয়াজ বর্ষণ

ইমতিয়াজ বর্ষণ। গতবছর করাকালীন সময়ে মুক্তি পাওয়া তার অভিনীত সিনেমা ‘উনপঞ্চাশ বাতাস’ দর্শকমহলে ব্যাপক প্রশংসা কুড়িয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে থিয়েটারে কাজ করেছেন। পরিচালকের সহকারী হিসেবে কাজ করেছেন দীর্ঘদিন। অভিনয় করেছেন বেশ কিছু টেলিভিশন নাটকে।

ঈদের পরই মুক্তি পাবে তার আরেকটি সিনেমা ‘চন্দ্রাবতী কথা’। দীর্ঘ পথচলা ও বর্তমান ব্যাস্ততা নিয়ে কথা বলতে ডেইলি বাংলাদেশ- এর মুখোমুখি হন ইমতিয়াজ বর্ষণ। তার সাক্ষাতকার নিয়েছেন ইসমাইল উদ্দীন সাকিব।

নিজের প্রথম সিনেমায় কেমন সাড়া পেলেন?
ইমতিয়াজ বর্ষণ:
করোনাকালীন সময়ে যে পরিস্থিতি পৃথিবীতে তৈরি হয়েছে সেই সময়ে এই ছবিটা মুক্তি পেয়েছে। দর্শকদের থেকে প্রত্যাশার চেয়েও বেশি সাড়া পেয়েছি। উনপঞ্চাশ বাতাস নিয়ে পরিচালক উজ্জ্বল ভাইয়ের আরো পরিকল্পনা আছে। এটা নিয়ে আরো দূর যাবো আমরা। 

ইমতিয়াজ বর্ষণ

দীর্ঘদিন থিয়েটার করেছেন, থিয়েটার থেকে সিনেমায় আসার গল্পটা জানতে চাই।
ইমতিয়াজ বর্ষণ:
থিয়েটারে আমি অভিনয়ের পাশাপাশি ব্যাকস্টেজে অনেক কিছুই করতাম। তবে আমার মূল লক্ষ্য ছিল অভিনয়। একজন অভিনেতার শেষ গন্তব্য সিনেমা। সেটা এখন যেই মাধ্যম থেকে এসেই হোক না কেনো। সিনেমার উপর এখনো পর্যন্ত আর কোন মাধ্যম নেই পৃথিবীতে। 

অন্য সব অভিনেতার মতো আমারও লক্ষ্য ছিলো সিনেমা। আমি ঐভাবে আমার পথকে তৈরি করে নিয়েছি। আমি ঢাকায় যাই, ঢাকায় গিয়ে প্রথমেই পরিচালকের সহকারী হিসেবে কাজ করি। তারপরে ধীরে ধীরে অভিনয়ে সুযোগ পাই। এর জন্যই আমার এতদূর চর্চা করা। 

নাটকে কি কাজ করা হয়েছে? 
ইমতিয়াজ বর্ষণ:
আমার টেলিভিশন এ করা কাজগুলোর মধ্যে বেশ কিছু ভালো কাজ আছে। সবগুলো উল্লেখযোগ্য জনপ্রিয় হয়েছে এমনটা নয়। ২০১৫ সালে সিনেমায় প্রথম অভিনয় করি। তারপর থেকে বিগত পাঁচ বছরে আমি টেলিভিশনে কাজ করিনি। আমার শুধু একমাত্র ধ্যানজ্ঞান ছিল সিনেমাকে ঘিরেই।

সিনেমাতে অংশগ্রহণ কি সহজ ছিল? 
ইমতিয়াজ বর্ষণ:
আমি প্রথমে থিয়েটার করেছি, এরপর টেলিভিশনে কাজ করেছি। আমাকে সিনেমাতে ভালোবেসে নিয়ে ফেলেছে তা না। আমি প্রতিটা সিনেমাতেই অডিশন দিয়ে সুযোগ পেয়েছি। আমার সৌভাগ্য, যে সকল নির্মাতাদের সঙ্গে কাজ করেছি। উনারা প্রত্যেকেই নতুনদের সুযোগ দিয়েছেন অডিশন এর মাধ্যমে। 

ইমতিয়াজ বর্ষণ

দেশে নাটক ইন্ডাস্ট্রি খুব জনপ্রিয়, ক্যারিয়ার হিসেবে সিনেমা ইন্ডাস্ট্রি একটু ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে যায় না? 
ইমতিয়াজ বর্ষণ:
সিনেমা আসলে জনপ্রিয় ছিল। কিন্তু ভালো সিনেমা বানানোর অভাবে সিনেমার জনপ্রিয়তা পিছিয়ে যাচ্ছে। এখন অভিনয়ের মাধ্যম শুধু সিনেমা কেন্দ্রিক না। পৃথিবীতে এখন ওটিটি প্ল্যাটফর্ম অনেক বেশি। অনলাইন প্লাটফর্মগুলো ব্যাপক হারে উন্নতি করেছে এবং টিভি কন্টেন্টগুলো ওটিটিতে চলে গেছে। এখন টিভি, অনলাইন, সিনেমা সবগুলো মোটামুটি অনুরূপ উচ্চতায় পৌঁছে যাচ্ছে। যে নায়ককে আপনি ওটিটিতে দেখছেন, সে নায়ককে আবার টিভিতেও দেখছেন। এই অস্থির সময়টাতে কেউ একদম বলতেই পারবে না আমি শুধু সিনেমার অভিনেতা। সেটা আপনি দেশের বাইরেও দেখতে পারবেন। অনেক বিখ্যাত অভিনেতা-অভিনেত্রীরা এখন ওটিটি প্ল্যাটফর্মে কাজ করছে। সেক্ষেত্রে আমারও হয়তো অনেক ওটিটি প্লাটফর্মে কাজের সুযোগ হবে, হচ্ছেও এখনো। দেখা যাক কি হয়। 

পাঁচ বছর পর নিজেকে কোথায় দেখতে চান? 
ইমতিয়াজ বর্ষণ:
আমার প্রথম সিনেমা সবে রিলিজ হলো। পাঁচ বছর পর চাই আরো পাঁচটা সিনেমা রিলিজ হোক। আরো বেশ কিছু কাজ করে যেতে চাই যে কারণে আমি মানুষের মাঝে আরো ৫০ বছর বা ১০০ বছর বা হাজার বছর বেঁচে থাকবো। 

বিগত বছরগুলোয় নাটক ইন্ডাস্ট্রিতে যারা এসেছে বেশিরিভাগই ইউটিউব থেকে। মনে হয়না এটা আপনাদের মত মঞ্চ অভিনেতাদের জন্য ক্ষতিকর? 
ইমতিয়াজ বর্ষণ:
এটা নির্ভর করে আপনি নিজেকে কোন জায়গায় নিয়ে যেতে চান! ইউটিউবাররা যারা শুধুমাত্র অভিনয় দিয়ে ইউটিউবিং করে, সে যদি অভিনয়ের ‘অ আ’ না জেনে করে তারও কিন্তু একটা কোন না কোন  অভাব থেকে যায়। আর মঞ্চ অভিনেতা যদি মনে করে শুধু মঞ্চের অভিজ্ঞতা দিয়ে টেলিভিশনে, মিডিয়া ইন্ডাস্ট্রি বা ফিল্মে এসে অনেককিছু করতে পারবে সেটাও কিন্তু ভুল। 

ইমতিয়াজ বর্ষণ

এখানেও কিন্তু চর্চার বিষয় আছে। এখানে অভিনয় জানার সঙ্গে কিছু টেকনিক্যাল বিষয়ও জানা উচিত। সেটা অবশ্য করতে করতে হয়ে যায়। সেক্ষেত্রেও চর্চার বিষয় আছে। চর্চাটা চলমান রাখলে একদিন না একদিন সাফল্য ধরা যায়। এটা হলো প্রতিযোগিতার বাজার। আপনাকে টিকে থাকতে হলে অনেক বেশি দৃঢ় হতে হবে, অনেক বেশি মেধাবী হতে হবে। এখন যারা সস্তা কন্টেন্ট নিয়ে ইউটিউবের মাধ্যমে, অনলাইন প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে জনপ্রিয় হচ্ছে, তাদের জনপ্রিয়তাটা কতদিন টিকবে সেটা আসলে সময় বলে দেবে। 

যারা নিজেদেরকে তৈরি করে জেনে বুঝে জায়গাটাতে আসছে; তাদের অবস্থা একটা সময়ের পর বোঝা যায় কতটুকু নিজেদের ধরে রাখতে পারবে। কতটুকু লম্বা দৌড় দিতে পারবে এই রাস্তায়। আমি কাউকে ছোট করে বলছি না।

সামনে কি কাজ আসছে?
ইমতিয়াজ বর্ষণ:
আমি ভালো স্ক্রিপ্ট পেলে টেলিভিশন বা অনলাইন প্ল্যাটফর্মের জন্য কাজ করবো। এগুলো নিয়েই কথা হচ্ছে। এই মাসের শেষে আমার কিছু শুটিং শুরু হচ্ছে। আর ওটিটি প্ল্যাটফর্মের জন্য কিছু কাজ করছি। ঈদের পর আমার আরেকটি সিনেমা ‘চন্দ্রাবতী কথা’ মুক্তি পাবে। যেটা সরকারি অনুদানের চলচ্চিত্র এবং ‘চন্দ্রাবতী কথা’ পরিচালনা করেছেন এন রাসেদ চৌধুরী। 

ফাঁকে ফাঁকে আরেকটা সিনেমার কাজ করছি। সিনেমাটার নাম ‘কল্কি রহস্য’। পরিচালক পংকজ চৌধুরী রনি। আপাতত এই নিয়ে ব্যাস্ত সময় কাটছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/টিএএস