মোরগের বিরুদ্ধে মামলা করলেন দম্পতি!

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২,   ১৫ আশ্বিন ১৪২৯,   ০২ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

Beximco LPG Gas

মোরগের বিরুদ্ধে মামলা করলেন দম্পতি!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২২:০৩ ১০ আগস্ট ২০২২  

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

‘মোরগটি সকাল ৮টা পর্যন্ত চুপ থাকে। এর আগে ডাকাডাকি শুরু করে না। কারণ রাতে তালাবদ্ধ থাকে। তারপরই শুরু। সারাদিনে ১০০ থেকে ২০০ বার ডাকে। এটা একেবারে অসহনীয়।’

আর তাই মোরগের ডাকে অতিষ্ঠ হয়েই ফ্রেডরিখ-উইলহেম মামলা করে বসলেন। জার্মানির একটি টেলিভিশনকে তারা বলেন, আমরা নিজেদের বাগানটিও ব্যবহার করতে পারি না। এমনকি বাসার জানালাও খুলতে পারি না।

মোরগের এই ডাক রীতিমতো নির্যাতনের শামিল বলেও অভিযোগ করেন ঐ দম্পতি। 

ব্রিটিশ দৈনিক ডেইলি মেইল বলছে, জার্মানির ফ্রেডরিখ-উইলহেম কে (৭৬) এবং তার স্ত্রী জুত্তা মোরগের বিরুদ্ধে মামলা করেন। তারা বলছেন, মাগদা নামের মোরগটি সকাল ৮টা থেকে ডাকাডাকি শুরু করে এবং সারাদিন চলতেই থাকে।

ডেইলি মেইল জানায়, এই দম্পতি পশ্চিম জার্মানির বাড সালজুফ্লেনে তাদের প্রতিবেশীর বাড়ি থেকে মোরগটি অন্যত্র সরিয়ে নেয়ার দাবি জানিয়েছেন। মোরগটির একদিনের ডাকাডাকি রেকর্ড করে আদালতের কাছে উপস্থাপন করেন তারা।

জুত্তা বলেন, অত্যাচারের কথা বর্ণনা করাটা কঠিন। কিন্তু ব্যাপারটি এমনই। আর ফ্রেডরিখ-উইলহেম বলেন, মোরগটির অসহ্য ডাকের কারণে দুই বছর আগে এক প্রতিবেশী বাসা ছেড়ে চলে গেছেন। ফ্রেডরিখ-উইলহেম ও জুত্তার আইনজীবী টরসেন জিসকে বলেন, একটি শান্ত বাড়িতে এভাবে কোনো মোরগ রাখা যায় না।

এদিকে মোরগের মালিক মাইকেল ডি (৫০) বলেন, তার বাসায় কয়েকটি মুরগি আছে। যে কারণে বাসায় একটি মোরগ রাখা জরুরি। ঐ দম্পতির অভিযোগের প্রতিবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, মুরগির জন্যই মোরগ দরকার।

সংবাদমাধ্যমকে তিনি বলেন, ২০১৮ সালে নিজের বাগানের জন্য মাইকেল পাঁচটি মুরগির ছানা কিনেছিলেন। পরে দেখা যায় ছানাগুলোর একটি মোরগ এবং অন্যগুলো মুরগি। সেই মোরগটি ডাকাডাকি শুরু করায় স্থানীয় বাসিন্দারা ক্ষুব্ধ হয়ে যান।

অন্যদিকে উভয়পক্ষের বক্তব্য শোনার পর মোরগটি অন্যত্র সরিয়ে নিতে মালিকের প্রতি নির্দেশ দিয়েছেন দেশটির আদালত।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরআই

English HighlightsREAD MORE »