অন্যের গাড়ি চালিয়ে উপার্জন করা ছেলেটাই আজ কয়েকশো কোটির মালিক 

ঢাকা, রোববার   ০৫ ডিসেম্বর ২০২১,   অগ্রহায়ণ ২১ ১৪২৮,   ২৮ রবিউস সানি ১৪৪৩

অন্যের গাড়ি চালিয়ে উপার্জন করা ছেলেটাই আজ কয়েকশো কোটির মালিক 

ফিচার ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১১:১৫ ২৬ নভেম্বর ২০২১  

অন্যের গাড়ি চালিয়ে উপার্জন করা ছেলেটাই আজ কয়েকশো কোটির মালিক । ছবি সংগৃহীত

অন্যের গাড়ি চালিয়ে উপার্জন করা ছেলেটাই আজ কয়েকশো কোটির মালিক । ছবি সংগৃহীত

মাত্র ১৬ বছর বয়সেই পড়াশোনা বন্ধ হয়ে যায়। তারপর তিনি গাড়ি চালানো শিখে রোজগার শুরু করে। সেই ছেলেই নিজের চেষ্টায় হলেন কয়েক কোটি টাকার মালিক! তিনি আজ ব্রিটেনের প্রথম ১০ ধনীর মধ্যে অন্যতম।

তার নাম স্টিভ পার্কিং। তিনি ব্রিটেনের ইয়র্কশায়ারের বাসিন্দা। ১৯৯২ সালে মাত্র ১৬ বছর বয়সে পড়াশোনার প্রতি আগ্রহ হারান স্টিভ। পরিবারে আর্থিক টানাপড়েনের কারণে স্কুল ছেড়ে উপার্জনের রাস্তায় হাঁটতে শুরু করেন তিনি। তবে কী কাজ করবেন? হাতে কোনো ডিগ্রি ছিল না তার। তাই স্থির করে ফেললেন গাড়ি চালানো শিখবেন। বড় মালবাহী গাড়ি চালাতে শিখে চালকের শংসাপত্র বার করে নিলেন। প্রথম চাকরি পেলেন একটি কাপড় প্রস্তুতকারী সংস্থায়।

তার সংস্থার নাম ক্লিপারখুব পরিশ্রম করতেন স্টিভ। দিনরাত গাড়ি নিয়ে সংস্থার মালপত্র পৌঁছে দিতেন গন্তব্যে। আজ স্টিভ কী করেন? নিজের একটি সংস্থা চালাচ্ছেন। তার সংস্থার নাম ক্লিপার। এটি একটি অনলাইন জিনিসপত্র বেচাকেনার সংস্থা। ১৯৯২ সালে এই সংস্থাটি চালু করেছিলেন তিনি। একটু একটু করে আজ গ্রাহকদের কাছে পরিচিত নাম হয়ে উঠেছে তার সংস্থা। অতিমারির সময়েই গ্রাহকদের আরো কাছে পৌঁছে গিয়েছে ক্লিপার। তার ব্যক্তিগত সম্পত্তির পরিমাণ ৪৫০ কোটি টাকা।

ইয়র্কশায়ারের প্রথম ১০ ধনীর এক জন স্টিভইয়র্কশায়ারের প্রথম ১০ ধনীর এক জন স্টিভ। আগে তাকে লোকে গাড়িচালক হিসাবে চিনতেন। আজ তার বিলাসবহুল জীবনযাত্রা চোখে ধাঁধা লাগিয়ে দেয়। অতিমারিতে যখন বেশির ভাগ ব্যবসায় মন্দা দেখা দিয়েছিল, স্টিভের সংস্থা তখন ৩৯ শতাংশেরও কিছু বেশি ব্যবসা বাড়িয়ে নিয়েছিল। তার সংস্থার বার্ষিক আয় প্রায় সাত হাজার কোটি টাকা। অতিমারিতে বহু সংস্থা ব্যবসায় মন্দার কারণে কর্মী ছাটাই করেছে। স্টিভের সংস্থা কিন্তু দুই হাজার লোককে নিয়োগ করেছে। তার মোট কর্মী সংখ্যা ১০ হাজার।

তিনি ঘোড়া পুষতেও ভালোবাসেনঘোড়দৌড় খুব সখের খেলা তার। ঘোড়া পুষতেও ভালোবাসেন। তার কাছে একাধিক ঘোড়া রয়েছে। তাদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার জন্য একাধিক লোক রয়েছেন। ২০২০ সালে তার ঘোড়া ঈগলস ইয়র্কের ঘোড়দৌড়ে অংশ নিয়েছিল। প্রথম হয়ে জন স্মিথ’স কাপ জিতে মালিককে গর্বিত করেছিল।

সূত্র: আনন্দবাজার 
 

ডেইলি বাংলাদেশ/এসএ