আমেরিকায় বিনা দোষে ৪৩ বছর জেল খাটলেন এক কৃষ্ণাঙ্গ

ঢাকা, রোববার   ০৫ ডিসেম্বর ২০২১,   অগ্রহায়ণ ২১ ১৪২৮,   ২৮ রবিউস সানি ১৪৪৩

আমেরিকায় বিনা দোষে ৪৩ বছর জেল খাটলেন এক কৃষ্ণাঙ্গ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৫:৪০ ২৪ নভেম্বর ২০২১  

কেভিন

কেভিন

হত্যার অভিযোগে শাস্তি হয়েছিল কেভিন স্টিকল্যান্ডের। ভুল শাস্তি। ৪৩ বছর পর মুক্তি পেলেন এই নিরপরাধ কৃষ্ণাঙ্গ ।

চার দশকের বেশি সময় ধরে বিনা দোষে জেল খাটার পরেও ৬২ বছর বয়সী কেভিনকে কোনো ক্ষতিপূরণ দেওয়া হচ্ছে না। মঙ্গলবার বিচারক কেভিনের মুক্তির আদেশ দেন।

১৯৭৯ সালে তিনজনকে হত্যার দায়ে কেভিনকে শাস্তি দেয়া হয়। জুরিরা সবাই ছিলেন শ্বেতাঙ্গ। ৪৩ বছর পর সরকারি আইনজীবীরা চলতি বছরের গোড়ায় জানিয়েছিলেন, কেভিন নিরপরাধ। জুরিদের রায় ভুল ছিল। এরপর বিচারক জেমস ওয়েলশ তাকে অবিলম্বে মুক্তির নির্দেশ দেন।

সংশোধনাগার থেকে মুক্তি পাওয়ার পর কেভিন বলেন, আমি রেগে নেই। আমি জানি, যথেষ্ট হয়েছে। কিন্তু আপনাদের মধ্যে আমি আবেগ তৈরি করতে পেরেছি। এই ধরনের আবেগ সম্ভবত আপনাদের মধ্যে আগে আসেনি। 

তিনি বলেন, আমার আনন্দ, দুঃখ, ভয় সবই হচ্ছে।

কেভিনের বিরুদ্ধে একমাত্র প্রমাণ ছিল প্রত্যক্ষদর্শী সিন্থিয়া স্ট্রিকল্যান্ডের সাক্ষ্য। সিন্থিয়াই ছিলেন একমাত্র প্রত্যক্ষদর্শী।

আদালতে তিনি জানান, কেভিনকে তিনি দেখেছেন। পরে সিন্থিয়া বলেছিলেন, পুলিশ জোর করে তাকে দিয়ে এ কাজ করিয়েছে। তাই তিনি কেভিনের নাম বলেছিলেন। পরে তিনি বারবার এ বিষয়ে সবার দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। ২০১৫ সালে তার মৃত্যু হয়।

এই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত অভিযোগে আরো দুইজনের শাস্তি হয়। তারাও জানিয়েছিলেন, হত্যার সঙ্গে কেভিন কোনোভাবে জড়িত ছিলেন না। তারা অন্য দুইজনের নাম বলেছিলেন। কিন্তু তাদের শাস্তি দেওয়া হয়নি।

প্রথম বিচারের সময় একজন কৃষ্ণাঙ্গ জুরি ছিলেন। তিনি কেভিনকে ছেড়ে দেওয়ার কথা বলেন। দ্বিতীয়বার বিচারের সময় তিনজন জুরিই ছিলেন শ্বেতাঙ্গ। তারা রায় দেন, কেভিন দোষী।

সূত্র: এপি, এএফপি, রয়টার্স

ডেইলি বাংলাদেশ/এমএস