লিবিয়ায় বন্দি মাদারীপুর-গোপালগঞ্জের ৫৭ যুবক, মুক্তির আকুতি

ঢাকা, রোববার   ০৫ ডিসেম্বর ২০২১,   অগ্রহায়ণ ২১ ১৪২৮,   ২৮ রবিউস সানি ১৪৪৩

লিবিয়ায় বন্দি মাদারীপুর-গোপালগঞ্জের ৫৭ যুবক, মুক্তির আকুতি

মাদারীপুর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২০:৩২ ২৩ নভেম্বর ২০২১   আপডেট: ২০:৩৩ ২৩ নভেম্বর ২০২১

বন্দিদের দেশে ফিরিয়ে আনতে মাদারীপুর সরকারি কলেজ মাঠে স্বজনদের মানববন্ধন কর্মসূচি। ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

বন্দিদের দেশে ফিরিয়ে আনতে মাদারীপুর সরকারি কলেজ মাঠে স্বজনদের মানববন্ধন কর্মসূচি। ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

মাদারীপুর সদর, রাজৈর উপজেলা ও গোপালগঞ্জের কোটালিপাড়া উপজেলার ৫৭ জন যুবক লিবিয়ায় বন্দি জীবনযাপন করছেন। বন্দিদের দেশে ফিরিয়ে আনতে মঙ্গলবার বিকেলে যুবকদের পরিবারের লোকজন মাদারীপুর সরকারি কলেজ মাঠে এক মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছেন। 

জানা গেছে, মাদারীপুর সদর, রাজৈর উপজেলা ও গোপালগঞ্জের কোটালিপাড়া উপজেলার ৫৭ জন যুবক ছয় মাস থেকে শুরু করে নয় মাস ধরে লিবিয়ার জাহারা জেলসহ অন্যান্য জেলে আটক রয়েছেন। 

জেলখানায় থেকে ওইসব যুবক দুর্বিসহ জীবন যাপন করছেন। কোনো দিন এক বেলাও খাবার দেয়া হয় না। মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করছেন অনেকে। বন্দিদের দ্রুত দেশে ফিরিয়ে আনার জন্য সরকারের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন পরিবারের সদস্যরা। 

লিবিয়ার জেলে বন্দি মাদারীপুর নয়াচর এলাকার আব্দুল আজিম মাতুব্বরের বাবা মোসলে উদ্দীন মাতুব্বর বলেন, ‘ছেলের সঙ্গে কথা হইছে কয়েকদিন আগে। ছেলে বলে আব্বা খিদার যন্ত্রণায় দাঁড়াইতে পারি না, দাঁড়াইলে পইড়া যাই। টাকা দিছি দালালরে তাও ছাড়ে না। চাই না কামাই, তবুও আমার সন্তান আমার বুকে ফিইরা আসুক।’ 

তিনি আরো বলেন, ‘৬ মাস আগে দালালের মাধ্যমে ছেলেরে লিবিয়া পাঠাইছি। পর পর ৩ বার গেম করাইছে, আমার সাড়ে ১৫ লাখ টাকা চইলা গেছে। ২ বার ছাড়াইছি এই বার জাহারা জেলে আছে। কোনো ভাবেই ছাড়াইতে পারতাছি না। ১ বেলা খাওন দেয় আর হাফ লিটার পানি দেয়, তাও একটা রুটি। টাকা দেই তাও ছাড়তাছে না। প্রধানমন্ত্রীর কাছে আবেদন, এই সমস্ত ছেলেরা বাহির থেকে রেমিট্যান্স পাঠাইলে দেশেরই উন্নতি হইতো। যে ভাবেই গেছে এখন এই সমস্ত ছেলেদের জীবন বাঁচান।’

লিবিয়ায় বন্দি আরেক যুবকের ভাই সেলিম শেখ বলেন, ‘সাড়ে চার লাখ টাকা দিয়া ভাইরে পাঠাইছি। ওইখানে যাইয়া জেলে রাখছে। ছাইড়া দিবো কইয়া এখনো ছাড়ে নাই, খাওন লওন দেয় না। আমি আমার ভাইরে ফেরত চাই।’

লিবিয়া থেকে অবৈধভাবে সমুদ্র পথে ট্রলার যোগে ইতালি যাওয়ার পথে তিউনিসিয়ার ভূমধ্যসাগরে ট্রলার ডুবিতে মাদারীপুর সদর উপজেলার পশ্চিম খাগদী গ্রামের সাব্বির খান ( ২০ ) ও বড়াইলবাড়ী গ্রামের সাকিব তালুকদার ( ২১) শনিবার মারা যান। তাদের মারা যাওয়ার খবর বাড়িতে পৌঁছালে শোকের ছায়া নেমে আসে। 

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকে