আদালতে সু চির সাক্ষ্য, উস্কানির অভিযোগ অস্বীকার

ঢাকা, শনিবার   ০৪ ডিসেম্বর ২০২১,   অগ্রহায়ণ ২০ ১৪২৮,   ২৭ রবিউস সানি ১৪৪৩

আদালতে সু চির সাক্ষ্য, উস্কানির অভিযোগ অস্বীকার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৬:০৮ ২৭ অক্টোবর ২০২১  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

মিয়ানমারের সাময়িক অভ্যুত্থানে উৎখাত হওয়া নেত্রী অং সান সু চির আদালতে দেওয়া প্রথম সাক্ষ্যে তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। জানা গেছে, মিয়ানমারের জান্তা সরকার তার বিরুদ্ধে জনসাধারণের মনে উদ্বেগ সৃষ্টির জন্য উস্কানির অভিযোগ আনে।

সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা তথ্যানুযায়ী, জান্তা সরকার ক্ষমতা দখলের পর থেকেই মিয়ানমারে বিপর্যয় নেমে এসেছে। সর্বত্রই অশান্তি বিরাজ করছে। সামরিক সরকারের পক্ষ থেকে ৭৬ বছর বয়সী অং সান সু চির বিরুদ্ধে আদালতে একাধিক অভিযোগ আনা হয়েছে এবং তার বিচার চলছে। অপরাধ প্রমাণিত হলে সাবেক নেত্রী সু চি কে বছরের পর বছর কারাগারেই দিন অতিবাহিত করতে হবে।

মঙ্গলবার মিয়ানমার নাউ নিউজ এজেন্সি জানিয়েছে, গত ফেব্রুয়ারিতে সু চির দল দুটি বিবৃতিতে  সামরিক শাসনের নিন্দা জানিয়েছে। এমনকি আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোকে জান্তা সরকারের সঙ্গে কাজ না করার আহ্বান জানিয়েছিল। এই ঘটনাকে উস্কানি হিসেবে আখ্যা দিয়েই মূলত জান্তা সরকার সু চির বিরুদ্ধে অভিযোগ আনে। তবে মঙ্গলবার আদালতে দেওয়া সাক্ষ্যে তার বিরুদ্ধে উস্কানিমূলক আচরণের যে অভিযোগ আনা হয়েছে তা অস্বীকার করেছেন সু চি।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে তার আইনজীবী দলের এক সদস্য বলেন, সু চি খুব ভালোভাবেই নিজেকে নির্দোষ প্রমাণ করতে পেরেছেন। তবে শুনানির বিষয়ে আইনজীবী অন্য কোনো তথ্য দেননি। কারণ মামলার শুনানির বিষয়ে সংবাদমাধ্যমরে সঙ্গে কথা বলার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছেন সামরিক বাহিনী।

নভেম্বরে সাধারণ নির্বাচণের পর মিয়ানমারের নতুন পার্লামেন্টে বসার কয়েক ঘন্টা আগে আং সান সু চি এবং বেসামরিক সরকারের সিনিয়র সদস্যদের আটক করে সামরিক বাহিনী।

উল্লেখ্য, গত ১ জানুয়ারি সামরিক অভ্যুত্থানের বিরুদ্ধে দেশব্যাপী শুরু হয় বিক্ষোভ ও আন্দোলন। জান্তাবিরোধী এ বিক্ষোভ দমনে পরে সাধারণ মানুষের ওপর শক্তি প্রয়োগ শুরু হয়। চলমান এ সহিংসতায় দেশটিতে এখন পর্যন্ত এক হাজারেরও বেশি শিশু নিহত হয়েছে।

সূত্র: আল জাজিরা

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএএইচ