পশ্চিম তীরে আরো প্রায় দেড় হাজার অবৈধ বসতি নির্মাণের ঘোষণা ইসরায়েল

ঢাকা, সোমবার   ২৯ নভেম্বর ২০২১,   অগ্রহায়ণ ১৬ ১৪২৮,   ২২ রবিউস সানি ১৪৪৩

পশ্চিম তীরে আরো প্রায় দেড় হাজার অবৈধ বসতি নির্মাণের ঘোষণা ইসরায়েলের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৫:৪৩ ২৫ অক্টোবর ২০২১  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

ইসরায়েল অধিকৃত পশ্চিম তীরে ইহুদি বসতি স্থাপনকারীদের জন্য ১৩ শতাধিক নতুন বসতি নির্মাণের পরিকল্পনা করছে। রোববার ইসরায়েলের গৃহায়ণ মন্ত্রণালয় এ কথা জানায়। মানবাধিকার সংগঠন ও আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের তীব্র সমালোচনার পরও তারা তাদের সিদ্ধান্তে অটল রয়েছে।

সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরার খবরে জানা গেছে, রোববার এ ঘোষণা দিয়ে ইসরায়েলের কট্টর ডানপন্থী প্রধানমন্ত্রী নাফতালি বেনেটের সরকার জানায়, পশ্চিম তীরে ১ হাজার ৩৫৫টি বাড়ি নির্মাণের জন্য তারা টেন্ডার প্রকাশ করেছে। ১৯৬৭ সালে ৬ দিনের আরব-ইসরায়েল যুদ্ধের সময় পশ্চিম তীর দখল করে ইসরায়েল।

দুই হাজারের বেশি বাসিন্দা থাকবে নতুন বসতিগুলোয়। গত আগস্টে পশ্চিম তীরে এসব বসতি নির্মাণের অনুমোদন দেয় ইসরায়েল সরকার। 

তেল আবিব বলছে, পশ্চিম তীরের জর্ডান সীমান্তে নির্মিত এসব বাড়িতে ২ হাজারের বেশি ইহুদি বসবাসের সুযোগ পাবেন।

ইসরায়েলি আগ্রাসনের তীব্র নিন্দা জানিয়ে ফিলিস্তিন বলছে, এ ধরনের উদ্যোগ নেয়া হলে আবারো সহিংসতা ছড়িয়ে পড়বে। ইসরায়েলের বাড়ি নির্মাণে উদ্বেগ জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

ইসরায়েলের এমন উদ্যোগের তীব্র নিন্দা জানিয়েছে জর্ডান। রোববার দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বলেন, ফিলিস্তিনি ভূমি দখল করে বসতি নির্মাণ আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন। এ ধরনের তৎপরতা বন্ধ না হলে অঞ্চলটিতে শান্তি প্রতিষ্ঠা হবে না।

তবে ইসরায়েলের এ ঘোষণার পর মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন প্রশাসন কী প্রতিক্রিয়া জানায়, তা দেখার অপেক্ষায় রয়েছে ফিলিস্তিনিরা। যুক্তরাষ্ট্র এর আগে বলেছে, তারা পশ্চিম তীরে ইসরায়েলের বসতি নির্মাণের একতরফা সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে এবং মনে করে দ্বি-রাষ্ট্র সমাধানের ক্ষেত্রে এটি একটি বড় বাধা।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএএইচ