ঢাকার ইলিশ রফতানির শর্তে শঙ্কায় কলকাতা

ঢাকা, সোমবার   ১৮ অক্টোবর ২০২১,   কার্তিক ৩ ১৪২৮,   ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

ঢাকার ইলিশ রফতানির শর্তে শঙ্কায় কলকাতা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৭:৫৫ ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১   আপডেট: ১৯:০৯ ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

দূর্গাপূজার উপহার হিসেবে পশ্চিমবঙ্গে ইলিশ রফতানির যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ তাতে গতবারের মত এবারও উচ্ছসিত কলকাতা। এবার সেই উচ্ছাসের মাত্রা আরও বেশি, কারণ গতবারের চেয়ে এবার প্রায় দ্বিগুণ ইলিশ ঢাকা থেকে কলকাতা যাচ্ছে।

তবে বাংলাদেশ সরকারের সাম্প্রতিক এক সিদ্ধান্তে সিদ্ধান্তে সেই আশার প্রদীপ নিভে যাওয়ার অবস্থা হয়েছে বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে পশ্চিমবঙ্গের পত্রিকা আনন্দবাজার।

গত সোমবার ২ হাজার ৮০ মেট্রিক টন ইলিশ ভারতে রফতানির অনুমতি দেয় বাংলাদেশের বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। গত বৃহস্পতিবার আরও ২ হাজার ৫২০ মেট্রিক টন ইলিশ রফতানির অনুমতি দেওয়া হয়েছে। এ নিয়ে দুই দফায় ভারতে মোট ৪ হাজার ৬০০ টন ইলিশ রপ্তানির অনুমতি দিলো বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।

তবে এক্ষেত্রে কয়েকটি শর্ত বেঁধে দিয়েছে মন্ত্রণালয়। বলা হয়েছে, রপ্তানি নীতি ২০১৮-২০২১ এর বিধি-বিধান অনুসরণ করতে হবে; শুল্ক কর্তৃপক্ষ দ্বারা রপ্তানিকৃত পণ্যের কায়িক পরীক্ষা করাতে হবে; প্রতিটি কনসাইনমেন্ট শেষে রপ্তানি সংক্রান্ত কাগজপত্র রপ্তানি-২ অধিশাখায় দাখিল করতে হবে; অনুমোদিত পরিমাণের চেয়ে বেশি রপ্তানি করা যাবে না।

অবশ্য এসব শর্ত নয়, ভারতীয়দের জন্য ঝামেলা হয়ে দাঁড়িয়েছে রপ্তানি অনুমতির সময়সীমা। সোমবারের আদেশে অনুমতির মেয়াদ ১০ অক্টোবর পর্যন্ত বলা হয়েছিল। কিন্তু বৃহস্পতিবারের আদেশে তা কমিয়ে ৩ অক্টোবর বলা হয়েছে।

নতুন এই ঘোষণার প্রধান কারণ- আগামী ৪ অক্টোবর থেকে ২২ অক্টোবর পর্যন্ত ১৮ দিন ইলিশ মাছ ধরায় নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে বাংলাদেশের মৎস অধিদফতর। ফলে, ব্যাপারটি দাঁড়িয়েছে এরকম- পশ্চিমবঙ্গে ইলিশ যা রফতানি করার, তা করতে হবে ৩ অক্টোবরের মধ্যে।

পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের ফিশ ইমপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের সচিব সৈয়দ আনোয়ার মকসুদ আনন্দবাজারকে এ সম্পর্কে বলেন, ‘ইলিশ বাজার এবং পরিকাঠামোর যা অবস্থা, তাতে গড়ে এক-এক দিনে এ পার বাংলায় বড়জোর ৫০ মেট্রিক টন পদ্মার ইলিশ ঢুকতে পারে। ৩ অক্টোবরের মধ্যে ঢাকার উপহারের সামান্য ইলিশই ঢুকতে পারবে।’

এই সমস্যা সমাধানে ইতোমধ্যে দিল্লিতে বাংলাদেশ হাইকমিশনার মোহম্মদ ইমরানের সঙ্গে দেখা করেছেন আনোয়ার। তার কাছে আর্জি জানিয়েছেন- আপাতত ৩ অক্টোবর পর্যন্ত যা ইলিশ ঢোকার ঢুকুক। কিন্তু ২২ অক্টোবরের পরে ঢাকার ঘোষণা অনুযায়ী ধাপে ধাপে বাকি ইলিশও ঢুকতে দেওয়া হোক।

গত বুধবার বাংলাদেশ থেকে ৮০ টন ইলিশ ঢুকেছে পশ্চিমবঙ্গে। বৃহস্পতিবার ঢুকেছে আরও ৪০ টন।

কলকাতা ও রাজ্যের অন্যান্য অঞ্চলে বর্তমানে সাইজ অনুযায়ী ৭০০ থেকে ১৩০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে এক একটি ইলিশ। গতবছর দূর্গাপূজা উপলক্ষে পশ্চিমবঙ্গে ২ হাজার ইলিশ পাঠানো হয়েছিল। এবার পাঠানো হচ্ছে ৪ হাজার ৬০০ টন, অর্থাৎ তার দ্বিগুণেরও বেশি ইলিশ।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএএইচ/টিআরএইচ