আমার বাড়িতে বিদ্যুৎ নেই, তাই এলাকাতেও থাকবে না বিদ্যুৎ 

ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৯ অক্টোবর ২০২১,   কার্তিক ৪ ১৪২৮,   ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

আমার বাড়িতে বিদ্যুৎ নেই, তাই এলাকাতেও থাকবে না বিদ্যুৎ 

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০০:০০ ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১  

ট্রান্সফর্মারে তালা ঝুলিয়ে দিচ্ছেন। ছবি: সংগৃহীত

ট্রান্সফর্মারে তালা ঝুলিয়ে দিচ্ছেন। ছবি: সংগৃহীত

প্রবল বর্ষণের কারণে নিজের বাড়িতে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। সেই ক্ষোভেই গোটা এলাকার বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন করে ট্রান্সফর্মারে তালা ঝুলিয়ে দিলেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের এক তৃণমূলনেত্রী। 

রাজ্যের উত্তর ২৪ পরগনার গোপালনগরের ওই নেত্রীর বিরুদ্ধে এমনই অভিযোগ স্থানীয় বাসিন্দাদের। এ নিয়ে থানায় অভিযোগ জানালেও গত মঙ্গলবার রাত পর্যন্ত এলাকায় বিদ্যুৎ সংযোগ চালু করতে ব্যর্থ হয় পুলিশ। যার কারণে এলাকাটি অনেক সময় অন্ধকারে ডুবে থাকে।

স্থানীয়দের অভিযোগ, মঙ্গলবার গোপালনগর ২ নম্বর পঞ্চায়েতের তৃণমূল সদস্যা কাজল মণ্ডলের বাড়িতে বিদ্যুৎ সংযোগ বিছিন্ন হয়ে যায়। সে সময় এলাকার বিদ্যুৎ সংযোগও ছিন্ন করে দেন কাজল।

প্রত্যক্ষদর্শীদের দাবি, ট্রান্সফর্মারে তালা ঝোলানোর সময় কাজল বলেন, ‘আমার বাড়িতে বিদ্যুৎ নেই। তাই এলাকাতেও বিদ্যুৎ থাকবে না।

তৃণমূলনেত্রীর এমন কাণ্ডে মঙ্গলবার বিকেল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত অন্ধকারে ডুবে থাকে গোপালনগর থানার নতুনগ্রাম সুবাসিনী বিদ্যালয়ের আশপাশের বিস্তীর্ণ এলাকা

এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ বাসিন্দারা গোপালনগর থানায় গিয়ে লিখিত অভিযোগ জমা দেন। খবর পেয়ে ট্রান্সফর্মারের তালা খুলে বিদ্যুৎ চালু করতে ব্যর্থ হয় পুলিশ। এলাকার অনেকেই ওই তালা খোলার চেষ্টা করে ব্যর্থ হন।

পুলিশের বিরুদ্ধে কাজলের তাবেদারি করার অভিযোগও করেছেন স্থানীয়দের একাংশ। রাতেই পুলিশের গাড়ি আটকে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন তারা।

বেআইনিভাবে এলাকার বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ করার অভিযোগে কাজলের শাস্তির দাবিও করেন এলাকার বাসিন্দারা। যদিও এ বিষয়ে মন্তব্য করতে অস্বীকার করেছেন কাজল। তবে এ ঘটনায় তৃণমূলের বিরুদ্ধে সরব স্থানীয় বিজেপি নেতারা।

বিজেপি’র বনগাঁ সাংগঠনিক জেলা সভাপতি বনস্পতি দেবের দাবি, এটা রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাস। পুলিশি মদদে সন্ত্রাস চালাতে এবং লুটতরাজের উদ্দেশে বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন করেছিল তৃণমূল। পরিকল্পনা করে দলবদ্ধ ভাবে ওই এলাকায় গিয়েছিল শাসকদলের লোকজন। তা রুখে দিয়েছেন এলাকার মানুষ। তাদের ধন্যবাদ জানাই।

তবে বিজেপি’র এমন দাবি উড়িয়ে দিয়েছে তৃণমূল। বনগাঁ জেলা তৃণমূলের চেয়ারম্যান শঙ্কর দত্ত বলেন, বিজেপি’র কথার উত্তর দেওয়ার প্রয়োজন নেই।

একই সঙ্গে তিনি আশ্বাস দেন, কেউ আইনের ঊর্ধ্বে নয়। যদি কেউ এ কাজ করেন, তবে তা ঠিক হয়নি। বিষয়টি খতিয়ে দেখে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। সূত্র: আনন্দবাজার।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডআর