বিদেশি অভিনেত্রীকে ধর্ষণ ও তিনবার গর্ভপাতে বাধ্য করেন তামিল মন্ত্রী!

ঢাকা, শনিবার   ৩১ জুলাই ২০২১,   শ্রাবণ ১৬ ১৪২৮,   ২০ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২

বিদেশি অভিনেত্রীকে ধর্ষণ ও তিনবার গর্ভপাতে বাধ্য করেন তামিল মন্ত্রী!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৯:৪৩ ২০ জুন ২০২১   আপডেট: ১৯:৪৪ ২০ জুন ২০২১

ছবি: এম মানিকানন্দন

ছবি: এম মানিকানন্দন

বিয়ের প্রলোভনে মালয়েশিয়ান এক অভিনেত্রীকে ধর্ষণ ও একাধিকবার গর্ভপাতে বাধ্য করার অভিযোগে গ্রেফতার হয়েছেন ভারতের দক্ষিণাঞ্চলীয় রাজ্য তামিলনাড়ুর এক সাবেক মন্ত্রী।

তামিলনাড়ু পুলিশের বরাত দিয়ে সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস জানায়, গত বুধবার এই মামলা থেকে আগাম জামিন চেয়ে অল ইন্ডিয়া আন্না দ্রাবিড়া মুন্নেত্রা কাজাগামের (এআইএডিএমকে) সাবেক মন্ত্রী এম মানিকানন্দন আবেদন করেছিলেন মাদ্রাজ হাইকোর্টে। কিন্তু আদালত তা প্রত্যাখ্যান করে।

এর পর থেকেই সাবেক ওই মন্ত্রী আত্মগোপন করে থাকা শুরু করেন। আদালত বলেছে, তার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ তা ভয়াবহ। তাকে জামিন দিলে আগের পদ ব্যবহার করে তথ্যপ্রমাণ নষ্ট করে দিতে পারেন।

তামিলনাড়ুর সাবেক এই মন্ত্রীর বিরুদ্ধে অভিযোগ, বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে পাঁচ বছর ধরে তিনি মালয়েশিয়ান এক অভিনেত্রীকে প্রলুব্ধ করেন। এ সময়ে তার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তোলেন। এক পর্যায়ে তিনি অন্তঃসত্ত্বা হয়ে গেলে তাকে গর্ভপাত করতে বাধ্য করেন এবং হত্যার হুমকি দেন। এসব ঘটনায় ৪৪ বছর বয়সী ওই রাজনীতিকের বিরুদ্ধে প্রতারণা, ধর্ষণ, গর্ভপাত, ভীতি প্রদর্শনের অভিযোগে মামলা হয়েছে।

ওই অভিনেত্রী যখন মালয়েশিয়ান ট্যুরিজম ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশনে কাজ করছিলেন, তখন ২০১৭ সালের মে মাসে তার সঙ্গে পরিচিত হন তামিলনাড়ুর ওই রাজনীতিক। মামলায় বলা হয়েছে, এরপরই মন্ত্রী এম মানিকানন্দন ওই অভিনেত্রীকে প্রতিশ্রুতি দেন তিনি স্ত্রীকে তালাক দেবেন। এরপর ওই অভিনেত্রীকে বিয়েও করতে চান। সেইমতো তাকে নিয়ে একসঙ্গে থাকাও শুরু করেন। চেন্নাই ও দিল্লি সফর করেন।

এ সময়ে ওই মালয়েশিয়ান অভিনেত্রী তিনবার অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েন। প্রতিবারই তাকে গর্ভপাতে বাধ্য করা হয়। এরপর আবার তার সঙ্গে যৌন সম্পর্ক স্থাপন করেন এম মানিকানন্দন। এক্ষেত্রে তার ওপর শক্তি প্রয়োগ করেন এবং নৃশংস আচরণ করেন।

তবে সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছেন মানিকানন্দন। তিনি দাবি করেছেন, ওই যুবতী বেশ কয়েকবার অর্থ দাবি করেন। তা না দেয়ায় তার বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ আনা হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/মাহাদী