অভিমান আর অপমানবোধ থেকেই নিষ্ক্রিয় বিএনপির সিনিয়ররা

ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৫ জুন ২০২১,   আষাঢ় ১ ১৪২৮,   ০৩ জ্বিলকদ ১৪৪২

অভিমান আর অপমানবোধ থেকেই নিষ্ক্রিয় বিএনপির সিনিয়ররা

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:২৭ ১০ জুন ২০২১   আপডেট: ১৫:১১ ১০ জুন ২০২১

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

জীবনের পড়ন্ত বিকেলে এসেও স্থায়ী কমিটির সদস্য হতে না পারায় বিএনপিতে নিষ্ক্রিয় থাকার প্রাথমিক সিদ্ধান্ত নিয়েছেন অন্তত ডজন খানেক সিনিয়র নেতা। অভিমান আর অপমানবোধ থেকেই তারা এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে গুঞ্জন চাউর হচ্ছে বিএনপির রাজনীতিতে।

সামান্য বিতর্কের কারণে স্থায়ী কমিটিতে জায়গা না পাওয়ায় শাহ মোয়াজ্জেম, আব্দুল্লাহ আল নোমান, আবদুল আউয়াল মিন্টু, ব্যারিস্টার শাহজাহান ওমর, শামসুজ্জামান দুদু, জয়নাল আবেদিন ফারুকের মতো সিনিয়র নেতারা চরম ক্ষুব্ধ হয়েছেন।

তাদের দাবি, জ্যেষ্ঠতা ও যোগ্যতাকে মূল্যায়ন না করে স্বজনপ্রীতি ও অর্থের কাছে পরাস্ত হয়ে সেলিমা রহমান ও ইকবাল মাহমুদ টুকুর মতো রাজপথ বিমুখ নেতাকে স্থায়ী কমিটির সদস্যের পদ দিয়েছেন তারেক রহমান।

জানতে চাইলে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার শাহজাহান ওমরের এক ঘনিষ্ঠ স্বজন বলেন, বিগত বিএনপির শাসনামলে ব্যারিস্টার শাহজাহান ওমর প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেছিলেন। স্থায়ী কমিটির পদ পেতে তার যোগ্যতা ও জ্যেষ্ঠতা নিয়ে কোনো ব্যক্তির প্রশ্ন থাকার কথা নয়। অথচ তাকে দেয়া হলো না স্থায়ী কমিটির পদ। এর চেয়ে বড় অপমান তার জন্য আর কী হতে পারে? আত্মীয়-স্বজনদের কাছে তিনি এখন মুখ দেখাতে পারছেন না।

তিনি আরো বলেন, শাহজাহান ওমরের কথা বাদই দিলাম। কিন্তু মোয়াজ্জেম-নোমানরা কী করেছেন, যে তাদের স্থায়ী কমিটিতে অন্তর্ভুক্ত করা হলো না?

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিএনপির আরেক অভিমানী নেতা বলেন, রাজনীতি করতে গেলে ভুল-ত্রুটি হয়ে যায়। সেটির জন্য তো সারাজীবন খোঁটা দেয়ার মানে হয় না। ক্ষমতায় থাকাকালীন কিছু ভুল ছিল আমাদের, সেটার প্রায়শ্চিত্ত তো করছি এক যুগ ধরে। এসময় যদি দলেও অবমূল্যায়িত হই, তাহলে তো রাজনীতি করার কোনো মানে হয় না।

তিনি বলেন, স্থায়ী কমিটির পদ বিতরণের বিষয়টি অনেকটা মনোপলির মতো। এখানে তারেক রহমান সর্বেসর্বা। তার ইচ্ছার বাইরে কারো কোনো তদবিরে কাজ হবে না। কিন্তু অনেক সিনিয়র ও ডেডিকেটেড নেতা থাকার পরও সেলিমা-টুকু কীভাবে স্থায়ী কমিটির সদস্য হলেন, সেটি অনেকের কাছেই বোধগম্য নয়। যথাযথ মূল্যায়িত না হলে মন তো খারাপ হবেই। আর এসব কারণেই বিএনপির রাজনীতিতে নিষ্ক্রিয় নেতাদের তালিকা দিন দিন ভারী হচ্ছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এএএম/টিআরএইচ/এইচএন