ধেয়ে আসছে শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় ‘টাউকটে’

ঢাকা, শনিবার   ১৯ জুন ২০২১,   আষাঢ় ৭ ১৪২৮,   ০৭ জ্বিলকদ ১৪৪২

ধেয়ে আসছে শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় ‘টাউকটে’

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১০:৪৫ ১৬ মে ২০২১  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

ভারতের দিকে ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় ‘টাউকটে’। ভয়ঙ্কর রূপ নিয়ে এই ঝড় আছড়ে পড়তে পারে গুজরাটের উপকূলে।

আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, আরব সাগরে নিম্নচাপ ঘনীভূত হয়েছে। শক্তি বাড়িয়ে সেই নিম্নচাপই ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়ে আগামী মঙ্গলবার বা বুধবার আছড়ে পড়তে পারে এটি। প্রাণহানি ও ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কায় এরইমধ্যে আশ্রয়কেন্দ্রে সরিয়ে নেয়া শুরু হয়েছে বাসিন্দাদের।

এরইমধ্যে আবহাওয়া অফিস দিউ উপকূলসহ গুজরাটের একাধিক এলাকায় ‘রেড অ্যালার্ট’ জারি করেছে। কেরালার কোচি উপকূল থেকে মানুষকে সরানোর কাজ শুরু হয়েছে।

জানা গেছে, সোমবার রাতে ঘূর্ণিঝড়ের দাপট সব থেকে বেশি থাকবে। ঘণ্টায় ১৫০-১৬০ কিলোমিটার বেগে বইবে ঝড়। কখনো কখনো তা ঘণ্টায় ১৭৫ কিলোমিটারে পৌঁছে যেতে পারে।

শনিবার রাত পর্যন্ত পাওয়া খবর অনুসারে এই ঘূর্ণিঝড় উত্তর-উত্তর পশ্চিম দিকে যাত্রা শুরু করেছে। এর গতিবেগ এখন ঘণ্টায় ১২ কিলোমিটার। গোয়া থেকে ২২০ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণ পশ্চিমে অবস্থান করছে এটি।

শক্তিশালী‘টাউকটে’ নামটি মিয়ানমারের দেয়া। এর অর্থ হল অতি উচ্চ স্বরযুক্ত টিকটিকি।

চলতি বছরে ভারতে এটিই প্রথম ঘূর্ণিঝড়। এর তীব্রতা গত বছরের সুপার সাইক্লোন আমফানের মতো হবে কিনা তা জানা যায়নি। চলতি বছরের প্রথম ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে এরইমধ্যে কেরালাসহ বিভিন্ন ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে দেখা দিয়েছে ভারী বৃষ্টিপাত।  তলিয়ে গেছে বহু ঘরবাড়ি।  বৃষ্টি ও ঝোড়ো হাওয়ায় কেরালায় বেশ কয়েকটি বাড়ি ভেঙে পড়ার খবর পাওয়া গেছে। বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন রয়েছে বহু এলাকা। 

সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়াটুডে তথ্যানুযায়ী, কেরালা, কর্ণাটক ও গোয়ার উপকূলের জেলাগুলোতে ভারী বৃষ্টির কারণে ভূমিধ্বসের আশঙ্কা রয়েছে। ক্ষয়ক্ষতি ও প্রাণহানির আশঙ্কায় সরিয়ে নেয়া হয়েছে উপকূলের বাসিন্দাদের। জরুরি সহায়তার জন্য খোলা হয়েছে কয়েকশ' অস্থায়ী শিবির।

ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলায় গুজরাট, কেরালা, কর্ণাটক, তামিলনাড়ু ও মহারাষ্ট্রে জাতীয় দুর্যোগ মোকাবিলা বাহিনীর ৫০ টিরও বেশি দল মোতায়েন করা হয়েছে। জরুরি উদ্ধার অভিযানের জন্য প্রস্তুত রাখা হয়েছে বিমান বাহিনীর ১৬টি বিমান ও ১৮টি হেলিকপ্টার। এছাড়া, বাড়তি সতর্কতার জন্য নৌবাহিনীর বেশ কয়েকটি ইউনিটকে প্রস্তুত থাকতে বলা হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএএইচ