৯/১১’র মধ্যে আফগানিস্তান থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহার

ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৮ মে ২০২১,   জ্যৈষ্ঠ ৪ ১৪২৮,   ০৫ শাওয়াল ১৪৪২

৯/১১’র মধ্যে আফগানিস্তান থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১২:২৯ ১৪ এপ্রিল ২০২১  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

চলতি বছরের আগামী ১১ সেপ্টেম্বরের মধ্যে মার্কিন সেনারা আফগানিস্তান ছাড়বেন বলে ঘোষণা দিতে যাচ্ছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। মার্কিন গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানিয়েছেন দেশটির কর্মকর্তারা।

গত বছরের ২৯ ফেব্রুয়ারি কাতারের রাজধানী দোহায় শান্তি চুক্তি স্বাক্ষরের পর ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রশাসন ঘোষণা দেয়, তালেবান যদি তাদের প্রতিশ্রুতি বজায় রাখে তাহলে যুক্তরাষ্ট্র ও ন্যাটো জোট আফগানিস্তান থেকে পরবর্তী ১৪ মাসের (২০২১ সালের মে) মধ্যে সকল সেনা প্রত্যাহার করে নেবে।

চুক্তির আওতায় আরও ছিল, তালেবানরা তাদের নিয়ন্ত্রিত অঞ্চলে আল কায়দাকে কর্মকাণ্ড চালাতে দেবে না এবং জাতীয় শান্তি প্রক্রিয়ার ব্যাপারে আলোচনায় বসবে।

তালেবানকে দেয়া ট্রাম্প প্রশাসনের ওই প্রতিশ্রুতি পূরণ ‘কষ্টকর’ হবে বলে বাইডেন আগেই জানিয়েছিলেন।

ওয়াশিংটন এবার সেনা প্রত্যাহারের শেষদিন হিসেবে ৯/১১ কে বেছে নিয়েছে। ২০ বছর আগে এই দিনেই পেন্টাগন ও ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারে ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলা হয়েছিল।

যুক্তরাষ্ট্র এবং সামরিক জোট নেটোর কর্মকর্তারা বলছেন, আফগানিস্তানে সহিংসতা কমানোর ক্ষেত্রে তালেবানরা এখন পর্যন্ত তাদের দেয়া প্রতিশ্রুতি রাখতে পারেনি।

তবে সেনা প্রত্যাহারের সময়কালে তালেবানরা যদি মার্কিন বাহিনীর ওপর হামলা চালায় তাহলে কট্টরপন্থি এ সশস্ত্র গোষ্ঠী ‘জোরালো প্রতিক্রিয়া’ দেখবে বলে সতর্ক করেছেন বাইডেন প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা।

এদিকে তালেবানরা জানিয়েছে, আফগানিস্তান থেকে সব বিদেশি সেনা প্রত্যাহারের আগে তারা আফগানিস্তান নিয়ে কোনো সম্মেলনে যোগ দেবে না।

তুরস্কে আগামী মাসে আফগানিস্তানের ভবিষ্যৎ নিয়ে একটি সম্মেলনটি হওয়ার কথা। তালেবানরা অংশ না নিলে ওই সম্মেলন নাও হতে পারে।

বুধবার বাইডেনের ঘোষণার দিনই ব্রাসেলসে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্থনি ব্লিংকেন এবং প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন নেটো মিত্রদের কাছে আফগানিস্তান থেকে সেনা প্রত্যাহারে যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থানের বিষয়টি সবিস্তারে বলবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

আফগানিস্তানে ২০ বছর ধরে চলা যুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের ট্রিলিয়ন ট্রিলিয়ন ডলার খরচ হয়েছে, প্রাণ গেছে ২ হাজারের বেশি মার্কিন সেনার। ওয়াশিংটন এখন এই যুদ্ধ থেকে সরে এসে ‘সত্যিকারের হুমকিগুলোর’ দিকে মনোযোগ দিতে চায় বলে মত বিশ্লেষকদের।

সূত্র: বিবিসি

ডেইলি বাংলাদেশ/মাহাদী