‘আমার ৭ বছর ফিরিয়ে দাও’, শ্বশুরবাড়ির সামনে অভাগা স্বামীর চিৎকার

ঢাকা, রোববার   ১৭ জানুয়ারি ২০২১,   মাঘ ৩ ১৪২৭,   ০২ জমাদিউস সানি ১৪৪২

‘আমার ৭ বছর ফিরিয়ে দাও’, শ্বশুরবাড়ির সামনে অভাগা স্বামীর চিৎকার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:৪৫ ৫ ডিসেম্বর ২০২০  

ছবিঃ সংগৃহীত

ছবিঃ সংগৃহীত

স্বামীর সঙ্গে সংসার করতে চেয়ে শ্বশুরবাড়ির সামনে স্ত্রী, এমন ঘটনার দেখা আগেও মিলেছে। কিন্তু স্ত্রীকে ফিরে পেতে মরিয়া স্বামী শ্বশুরবাড়ির সামনে অভিনব উপায়ে প্রতিবাদ করছেন, এমন দৃশ্য খুব একটা চোখে পড়ে না।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকা’র এক প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, শনিবার এমনই এক ঘটনা ঘটেছে ভারতের উত্তর চব্বিশ পরগনার অশোকনগরে। 'বউ ফেরত চাই' সম্বলিত প্লাকার্ড হাতে স্ত্রীর বাড়ির সামনে এভাবেই প্রতিবাদ করতে বসেন এক স্বামী। আর এই ঘটনা দেখে অবাক স্থানীয় বাসিন্দারা। কাকে সমর্থন করবেন ভেবে কূল পাচ্ছেন না তারা।

জানা গেছে, ওই যুবকের নাম সৌমেন দত্ত। অশোকনগরের মানিকতলায় বাড়ি তার। দেবীনগরের গার্গীর সঙ্গে দীর্ঘ সাত বছরের সম্পর্ক তার। শুরু থেকেই এই সম্পর্কে আপত্তি ছিল গার্গীর পরিবারের। সৌমেনের দাবি, বাড়ির অমত থাকায় গার্গী নিজেই রেজিস্ট্রি বিয়ে করতে চান। সেই অনুযায়ী কয়েক বছর আগে আইনি বিয়ে‌ সেরে ফেলেন তারা। কিন্তু মানছে না শ্বশুরবাড়ি। মেয়েকে আটকে রেখে দিয়েছে তারা। চোখের দেখাও দেখতে দিচ্ছে না। অগত্যা শ্বশুরবাড়ির সামনে প্রতিবাদ করতে বসলেন যুবক। তার দাবি, বউ ফেরত চাই নতুবা ফিরিয়ে দাও আমার ৭ বছর।

গার্গীর পরিবার যদিও সৌমেনের দিকেই পাল্টা আঙুল তুলেছেন। মেয়েটির মায়ের অভিযোগ, মেয়েকে ভুলিয়ে ভালিয়ে রেজিস্ট্রি করেছেন সৌমেন। সৌমেন মাত্র উচ্চমাধ্যমিক পাশ। তেমন রোজগারও নেই তার। তারা এই সম্পর্ক মানেন না। গার্গী এখন পড়াশোনা করছেন। উচ্চশিক্ষিত হয়ে ভাল চাকরি করবেন। সৌমেনের সঙ্গে কোনোভাবেই তার জীবন মিলবে না।

তবে শ্বশুরবাড়ি প্রত্যাখ্যান করলেও, নাছোড়বান্দা সৌমেন। তার সাফ কথা, তাহলে আমার জীবনের সাত বছর ফিরিয়ে দিতে হবে। কোনো মহিলার সঙ্গে এমন ঘটলে যেমন ব্যবস্থা নেয়া হয়। আমার ক্ষেত্রেও তেমন ব্যবস্থা নিতে হবে। আমার ন্যায্য বিচার চাই।

তার দাবি, ফোনেও তার সঙ্গে গার্গীকে কথা বলতে দেয়া হচ্ছে না। এমনকি গার্গীর মা এবং ভাই তাকে ফোনে হুমকি দিচ্ছেন বলেও অভিযোগ করেন সৌমেন। তারা গার্গীর সঙ্গে তার সাত বছরের সম্পর্ক এবং রেজিস্ট্রি বিয়ে সব কিছুই অস্বীকার করছেন।

তবে বিষয়টি যখন এলাকায় শোরগোল পড়ে যায় তখন এতে হস্তক্ষেপ করে সমাধানের আশ্বাস দেয় পুলিশ।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচএফ