সব প্রস্তুতি শেষ, এখন কেবল প্রয়োগের পালা ফাইজারের ভ্যাকসিন

ঢাকা, বুধবার   ২০ জানুয়ারি ২০২১,   মাঘ ৬ ১৪২৭,   ০৫ জমাদিউস সানি ১৪৪২

সব প্রস্তুতি শেষ, এখন কেবল প্রয়োগের পালা ফাইজারের ভ্যাকসিন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৫:০৩ ৪ ডিসেম্বর ২০২০  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

মার্কিন ওষুধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান ফাইজার ও তাদের জার্মান অংশীদার বায়োএনটেকে’র উদ্ভাবিত করোনা ভ্যাকসিন প্রয়োগের সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে যুক্তরাজ্য। এখন কেবল তা প্রয়োগের জন্য অপেক্ষা করছে দেশটির জনগন।

গত বুধবার ব্রিটিশ সরকার দেশটির জনগণকে ফাইজার-বায়োএনটেক’র কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন প্রয়োগের অনুমোদন প্রদানের পর শুক্রবার এর প্রথম চালান যুক্তরাজ্যে এসে পৌঁছায়।

সংবাদমাধ্যম বিবিসি’র খবরে বলা হয়েছে, যুক্তরাজ্যে পৌঁছার পর ভ্যাকসিনগুলোকে অজ্ঞাত স্থানে রাখা হয়েছে। সেখান থেকেই দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে সেগুলো বিতরণ করা হবে।

যুক্তরাজ্য সরকার এই ভ্যাকসিনের চার কোটি ডোজ অর্ডার করেছে, যা দেশটির দুই কোটি মানুষের ওপর প্রয়োগের জন্য যথেষ্ট।

ইংল্যান্ডের ডেপুটি চীফ মেডিক্যাল অফিসার অধ্যাপক জোনাথন ফন-ট্যামের দাবি, প্রথম ধাপের ভ্যাকসিনদানের কাজ শেষ করতে পারলে দেশে করোনা সংক্রান্ত জটিলতা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি ও মৃত্যুর সংখ্যা ৯৯ শতাংশ পর্যন্ত কমানো যেতে পারে।

বিবিসিকে তিনি বলেন, অগ্রাধিকারের প্রথম তালিকায় যারা আছেন তারা সবাই ভ্যাকসিন নিলে এটা সম্ভব এবং এটা খুবই কার্যকর হবে। জোনাথন ফন-ট্যাম জানান, যত ‘দ্রুত’ ও ‘বেশি’ সম্ভব ভ্যাকসিন বণ্টন করা দরকার। তবে এক্ষেত্রে কিছু বিষয়ে শিথিলতা আনার কথাও বললেন তিনি।

ফাইজার ও বায়োএনটেকের ভ্যাকসিন উৎপাদন করা হচ্ছে বেলজিয়ামের ল্যাবে। সেখান থেকে ইউরোটানেল হয়ে ভ্যাকসিন আনা হয়েছে যুক্তরাজ্যে।

এই চালানের ভ্যাকসিন কারা পাবেন তা দেশটির ভ্যাকসিনদান কমিটির সুপারিশ এবং সরকারের সিদ্ধান্তের ওপর নির্ভর করছে। তবে অগ্রাধিকারের তালিকায় সবার ওপরে রয়েছেন কেয়ার হোমসে থাকা বয়স্ক জনগণ এবং কেয়ার হোমের স্টাফরা। এরপরই থাকছেন যাদের বয়স ৮০ এর ওপরে এবং স্বাস্থসেবা কর্মীরা।

গত মাসের মাঝামাঝিতে যুক্তরাষ্ট্রের ফাইজার ও জার্মানির বায়ো-এনটেক চূড়ান্ত পরীক্ষার প্রাথমিক ফল তুলে ধরে জানায়, তাদের ভ্যাকসিন মানুষকে করোনা থেকে নিরাপদ রাখতে ৯০ শতাংশ কার্যকর।

পরে তারা চূড়ান্ত প্রতিবেদনে জানায়, ভ্যাকসিনটি বয়স্কদের ক্ষেত্রে ৯৪ শতাংশ কার্যকর এবং এই ভ্যাকসিনের কোনো পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া নেই। এই ভ্যাকসিন প্রয়োগ হতে যাওয়া প্রথম দেশ যুক্তরাজ্য।

ডেইলি বাংলাদেশ/মাহাদী