নাবালিকাদের যৌন নির্যাতনের ভিডিও ডার্ক ওয়েবে বিক্রি করেন প্রকৌশলী

ঢাকা, সোমবার   ২৫ জানুয়ারি ২০২১,   মাঘ ১১ ১৪২৭,   ১০ জমাদিউস সানি ১৪৪২

নাবালিকাদের যৌন নির্যাতনের ভিডিও ডার্ক ওয়েবে বিক্রি করেন প্রকৌশলী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০৯:৪১ ১৮ নভেম্বর ২০২০   আপডেট: ১০:০৫ ১৮ নভেম্বর ২০২০

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

পঞ্চাশ জনের বেশি নাবালিকাকে ধর্ষণ করে সেই ভিডিও, ছবি তুলে ডার্ক ওয়েবে বিক্রি করতেন এক সরকারি প্রকৌশলী। শুধু তাই নয় নির্যাতিতাদের মুখ বন্ধ রাখতে দিতেন দামী উপহার।

মঙ্গলবার ভারতের কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা (সিবিআই)র জালে ধরা পড়ল উত্তরপ্রদেশের সেই সরকারি প্রকৌশলী। নিজের অপকর্মের কথা স্বীকার করেছে সে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদে এই চক্রের বাকিদের নাম জানার চেষ্টা করছে সিবিআই।

আরো পড়ুন: ভারত-নেপালে কঙ্কাল পাচার করতো ওই চক্র

উত্তরপ্রদেশের বান্দ্রা, চিত্রকূট এবং হামিরপুর থেকে একাধিক নাবালিকাকে যৌন নির্যাতনের খবর আসছিল। এর প্রেক্ষিতে বছরের শুরুতে সিবিআইয়ের কাছে এ নিয়ে অভিযোগ দায়ের হয়। তারই ভিত্তিতে তদন্তে নেমেছিল সিবিআইয়ের বিশেষ দল।

অবশেষে ভারতের বান্দ্রা থেকে অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে তারা। জানা গেছে, অভিযুক্তর বাড়িতে তল্লাশি করে আট লাখ টাকা, বৈদ্যুতিক গ্যাজেটস, ৮টি মোবাইল, সেক্স টয়েজ, নাবালিকাদের যৌন নির্যাতন করার সামগ্রী, একাধিক ল্যাপটপ উদ্ধার হয়েছে।

আরো পড়ুন: পাগলী বলে পাননি আশ্রয়, তবুও আয়ের টাকা দান করেন মসজিদ-এতিমখানায়

অভিযুক্ত ব্যক্তি উত্তরপ্রদেশে সেচ দফতরে জুনিয়র ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে কর্মরত। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ, ১০ বছরে ৫ থেকে ১৬ বছর বয়সী প্রায় ৫০ জন নাবালিকাকে ধর্ষণ, যৌন হেনস্তা করেছে সে। এমনকি, ধর্ষণ বা লালসা মেটানোর সেই সব ভিডিও মোবাইল বা ল্যাপটপে রাখতো। পরে সেই ছবি, ভিডিও ডার্ক ওয়েবে বিক্রিও করতো।

সিবিআই জানিয়েছে, অভিযুক্তর মেইল অনুসন্ধান করে এক ভয়ঙ্কর তথ্য উঠে এসেছে। দেশি ও বিদেশি নাবালিকাদের যৌনতার ভিডিও, ছবি সরবরাহ করত সে। এর বিনিময়ে মোটা টাকাও নিত এবং সেই টাকা দিয়ে দামী উপহার দিয়ে নির্যাতিতাদের মুখ বন্ধ রাখতো। 

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএস