করোনার টিকা উৎপাদনে সংকটে পড়তে পারে ভারত: বিল গেটস

ঢাকা, মঙ্গলবার   ০১ ডিসেম্বর ২০২০,   অগ্রহায়ণ ১৭ ১৪২৭,   ১৪ রবিউস সানি ১৪৪২

করোনার টিকা উৎপাদনে সংকটে পড়তে পারে ভারত: বিল গেটস

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২৩:২৬ ২০ অক্টোবর ২০২০   আপডেট: ২৩:২৭ ২০ অক্টোবর ২০২০

বিল গেটস

বিল গেটস

ভারত করোনা ভ্যাকসিন নিয়ে গবেষণা ও এর ব্যাপক উৎপাদনের ক্ষেত্রে ভবিষ্যতে সমস্যার মুখে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন মাইক্রোসফটের প্রতিষ্ঠাতা বিল গেটস। সোমবার ‘গ্র্যান্ড চ্যালেঞ্জেস অ্যানুয়াল মিটিং ২০২০’ নামক একটি অনুষ্ঠানে ভারত সম্পর্কে এই মন্তব্য করেন তিনি।

বিল গেটস বলেন, ভারত গত দুই দশকে জনগণের স্বাস্থ্যের উন্নতিতে ব্যাপক পদক্ষেপ নিয়েছে যা অত্যন্ত অনুপ্রেরণাকারী। এখন ভারতের করোনার ভ্যাকসিন নিয়ে গবেষণা ও উত্পাদন দেশটির জন্য গুরুত্বপূর্ণ হবে। কিন্তু করোনার মতো মহামারিকে ঠেকাতে সমস্যার মুখে পড়বে ভারতের গবেষণা এবং ভ্যাকসিন উৎপাদন ব্যাবস্থা। বিশেষ করে ব্যাপকহারে ভ্যাকসিন উৎপাদনের ক্ষেত্রে এই অসুবিধা দেখা দিতে পারে বলে আশঙ্কা জানান তিনি।

বিল গেটস জানান, বৈশ্বিক এই মহামারিকে শেষ করতে বিশ্বব্যাপী বিজ্ঞানীরা এখন বিপুল চ্যালেঞ্জের মুখে দাঁড়িয়ে। ফার্মাসিউটিক্যাল সংস্থাগুলোও এমন উত্পাদন উপায়ে সহযোগিতা করছে যা বাস্তবে এর আগে কখনও দেখা যায়নি।

করোনার এমআরএনএ টিকা তৈরির ক্ষেত্রে দারুণ আশা দেখা দিয়েছে বলে জানান বিল গেটস। হয়তো সর্বপ্রথম এমআরএনএ প্রযুক্তিতেই করোনার ভ্যাকসিন তৈরি হবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি। তবে সেই ভ্যাকসিন ব্যাপকহারে উৎপাদন করতে গেলে গবেষকদের বেশ কিছু সমস্যায় পড়তে হতে পারে সে বিষয়েও উল্লেখ করেন তিনি।

রোগ নির্ধারণের বিভিন্ন প্রযুক্তির উদ্ভাবনের দিকেও জোর দেয়ার কথা উল্লেখ করেছেন বিল গেটস। তিনি বলেন, রোগ নির্ধারণের পদ্ধতি আমাদের হতাশ করেছে।

উপসর্গহীন করোনা রোগীদের সম্পর্কে বলতে গিয়ে তিনি বলেন, বর্তমানে ব্যবসার মডেল হচ্ছে যাদের করোনার উপসর্গ আছে তাদের চিহ্নিত করা। কিন্তু আমাদের এটি বদলানো দরকার। আমাদের আরো সংবেদনশীল ও সুনির্দিষ্টভাবে রোগ নির্ধারণ পদ্ধতির প্রয়োজন। এছাড়া এগুলো যাতে সহজে ব্যবহার করা যায় সে দিকেও খেয়াল রাখতে হবে বলে জানান তিনি।

আগামী বছরের মধ্যে একাধিক করোনার ভ্যাকসিন বিজ্ঞানীদের হাতে চলে আসবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন বিল গেটস। বৈজ্ঞানিক ভ্রাতৃত্ববোধের সহযোগিতার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, বিজ্ঞানীদের আন্তর্জাতিক দলগুলো ভ্যাকসিনের ক্লিনিকাল ট্রায়ালগুলোতে পুরো গতির সঙ্গে সহযোগিতা করছে। বিজ্ঞান যে গতিতে করোনার বিরুদ্ধে লড়াই চালাচ্ছে তা নিয়েও সন্তোষ প্রকাশ করেছেন তিনি।

সূত্র- হিন্দুস্থান টাইমস

ডেইলি বাংলাদেশ/এসএমএফ