সুপারসনিক ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র ‘ব্রহ্মসের’ সফল পরীক্ষা চালালো ভারত

ঢাকা, রোববার   ২৫ অক্টোবর ২০২০,   কার্তিক ১০ ১৪২৭,   ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

সুপারসনিক ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র ‘ব্রহ্মসের’ সফল পরীক্ষা চালালো ভারত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২২:২৬ ১৮ অক্টোবর ২০২০   আপডেট: ২২:৩৭ ১৮ অক্টোবর ২০২০

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

শব্দের চেয়ে দ্রুতগতিসম্পন্ন সুপারসনিক ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র ‘ব্রহ্মসের’ সফলভাবে পরীক্ষা চালিয়েছে ভারত। রোববার আরব সাগরের ভারতীয় নৌবাহিনীর স্টেলথ ডেস্ট্রয়ার আইএনএস চেন্নাই থেকে ছোড়া ক্ষেপণাস্ত্রটি পূর্বনির্দিষ্ট লক্ষ্যবস্তুকে নিখুঁতভাবে আঘাত করতে সক্ষম হয়েছে বলে জানিয়েছে ভারতের প্রতিরক্ষা গবেষণা ও উন্নয়ন সংস্থা (ডিআরডিও)।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক সূত্রে জানা গেছে, শব্দের চেয়ে তিনগুণ গতি সম্পন্ন এই ক্ষেপণাস্ত্রের প্রাথমিক পাল্লা ২৯০ কিলোমিটার। তবে সেটি বাড়িয়ে ৪০০ কিলোমিটার পর্যন্ত করা যায়।

ডিআরডিও’র চেয়ারম্যান জি সতিশ রেড্ডি ব্রহ্মসের সফল পরীক্ষার জন্য সংস্থার বিজ্ঞানী ও ভারতীয় নৌবাহিনীকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। এছাড়া এ সফলতার জন্য অভিনন্দন জানিয়েছেন দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং।

ভারত ও রাশিয়ার যৌথ উদ্যোগে নির্মীত ব্রহ্মস ক্ষেপণাস্ত্রের স্থল, নৌ ও বায়ুসেনার জন্য তিনটি পৃথক সংস্করণ রয়েছে। প্রতিটি সংস্করণেরই একাধিকবার পরীক্ষা সফল হয়েছে। ভারতীয় বায়ুসেনার সুখোই-৩০ এমকেআই যুদ্ধবিমান ব্রহ্মসের বিমান সংস্করণটি ব্যবহার করে। কয়েকটি আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমের দাবি, চীনকে চাপে রাখতে ব্রহ্মসের স্থল সংস্করণটি ভিয়েতনাম সেনাকে দিয়েছে ভারত।

চীনের সঙ্গে সাম্প্রতিক সংঘাতের প্রেক্ষিতে ব্রহ্মসের নৌ-সংস্করণের এই পরীক্ষা খুব গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করছেন প্রতিরক্ষা বিশেষজ্ঞদের একাংশ। তাদের মতে চীনের নৌবাহিনীর বিশাল তিনটি বিমানবাহী যুদ্ধজাহাজের মোকাবিলায় কার্যকরী হবে এই ক্ষেপণাস্ত্র। গত ৩০ সেপ্টেম্বরও উড়িষ্যার বালেশ্বর উপকূলে ব্রহ্মসের সফল পরীক্ষা করেছিলো ডিআরডিও।

জানা গেছে, ৬০ হাজার টনেরও বেশি ওজনের যুদ্ধজাহাজকে সাধারণ অ্যান্টি-শিপ মিসাইল দিয়ে আঘাত করা কঠিন। কারণ বিশাল ওই যুদ্ধজাহাজগুলোতে অ্যান্টি-শিপ মিসাইলের আঘাত সহ্য করে নেয়ার মতো চেম্বারসহ বিভিন্ন রক্ষাকবচ থাকে। চীনের বিমানবাহী যুদ্ধজাহাজ এয়ারক্র্যাফ্ট ক্যারিয়ার তিনটিরই ওজন ৬০ হাজার টনের বেশি। তাই তাদের ধ্বংস করতে ‘এয়ারক্র্যাফ্ট ক্যারিয়ার কিলার’ ক্ষেপণাস্ত্র প্রয়োজন। বছর কয়েক আগেই তাই ভারত  ‘এয়ারক্র্যাফ্ট ক্যারিয়ার কিলার’ হিসেবে ব্রহ্মসের সংস্কারের চেষ্টা শুরু করেছিলো।

সূত্র- আনন্দবাজার

ডেইলি বাংলাদেশ/এসএমএফ