অনুমতি নিয়েই ৯ জনকে হত্যা করা হয়েছে, দাবি ‘টুইটার কিলারের’ আইনজীব

ঢাকা, বুধবার   ২৮ অক্টোবর ২০২০,   কার্তিক ১৩ ১৪২৭,   ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

অনুমতি নিয়েই ৯ জনকে হত্যা করা হয়েছে, দাবি ‘টুইটার কিলারের’ আইনজীবীর

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৯:০৯ ১ অক্টোবর ২০২০  

ছবি: তাকাহিরো শিরাইশি

ছবি: তাকাহিরো শিরাইশি

নয় ব্যক্তিকে হত্যার দায় স্বীকার করেছেন জাপানের আলোচিত ‘টুইটার কিলার’ খ্যাত তাকাহিরো শিরাইশি। তবে তার আইনজীবীর দাবি অনুমতি নিয়েই তাদেরকে হত্যা করেছেন তার মক্কেল।

আদালতে বিচার চলাকালে তিনি জানান, টুইটারে অনেকেই আত্মহত্যার ইচ্ছা প্রকাশ করতেন, তাকাহিরো বেছে বেছে তাদেরই খুন করেছেন। তাই তার বিরুদ্ধে শাস্তি কমানো উচিৎ।

জাপানি সংবাদমাধ্যম এনএইচকে'র প্রতিবেদনে বলা হয়, হত্যার পর প্রমাণ লুকাতে মরদেহ টুকরো টুকরো করে কেটে ফেলতেন তাকাহিরো। তারপর বাক্সে ভরে বাড়িতেই রেখে দিতন সেগুলো।

তাকাহিরো শিরাইশি’র এমন হত্যাকাণ্ডের কথা পুলিশ জানতে পারে তিন বছর আগে। ২০১৭ সালে জাপানের ২৩ বছর বয়সী এক নারী টুইটারে লেখেন, তিনি আত্মহত্যা করতে চান। তারপর থেকেই নিখোঁজ ছিলেন তিনি। পরে ওই নারীর ভাই সেই টুইটারে খোঁজ করে সন্দেহজনক এক ব্যক্তির খোঁজ পান। ওই ঘটনার পর পুলিশ তদন্ত করে ২৯ বছর বয়সী তাকাহিরোকে গ্রেফতার করে।

জাপান পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, তাকাহিরোর শিকার ১৫ থেকে ২৬ বছর বয়সী ছেলেমেয়েরা। তিনি টুইটারে খুঁজে দেখতেন, কারা আত্মহত্যার ইচ্ছা প্রকাশ করেছে। তাদের বলতেন, আমি আপনাকে মরতে সাহায্য করব। কাউকে বলতেন, আমিও আপনার সঙ্গে আত্মহত্যা করতে চাই। তার বিরুদ্ধে ধর্ষণেরও অভিযোগ আছে।

সূত্র: এএফপি

ডেইলি বাংলাদেশ/মাহাদী