‘আমার বউকে ফিরিয়ে দাও’-দাবিতে অনশনে যুবক

ঢাকা, রোববার   ২৫ অক্টোবর ২০২০,   কার্তিক ১০ ১৪২৭,   ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

‘আমার বউকে ফিরিয়ে দাও’-দাবিতে অনশনে যুবক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৯:৩২ ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০  

‘আমার বউকে ফিরিয়ে দাও’-দাবিতে অনশনে যুবক

‘আমার বউকে ফিরিয়ে দাও’-দাবিতে অনশনে যুবক

বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকার অনশন-এমন খবর পত্রিকায় প্রকাশিত হলে তোলপাড় সৃষ্টি হয়। ঠিক উল্টো খবর হয়তো কেউ পত্রিকার পাতায় কখনো দেখেননি। সেই দুর্লভ খবরটি প্রকাশিত হয়ে গেল পত্রিকায়। এবার রেজিস্ট্রি করা স্ত্রীকে আটক রাখায় স্ত্রী ফেরত চেয়ে শ্বশুর বাড়িতে অনশনে বসেছেন এক যুবক। এ নিয়ে এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে।

সম্প্রতি ভারতের পশ্চিমবঙ্গের নদিয়ার হরিণঘাটা এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে।

স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম জানায়, ২৮ বছরের বাবু মল্লিক নদিয়ার বিরোহীপাড়ার বাসিন্দা। দীর্ঘদিন ধরে সোনাখালি গ্রামের বাসিন্দা সংগীতা ঘোষের সঙ্গে তিনি প্রেম করছিলেন। কিন্তু সংগীতার পরিবার তাদের মেলামেশা মেনে নেয়নি।
 
ওই যুবকের দাবি, গত আগস্ট মাসে পরিবারকে না জানিয়েই বিয়ের জন্য রেজিস্ট্রি সেরে ফেলেন বাবু-সংগীতা। মালাবদলের শেষ করলেও সিঁদুর পরানোর বিষয়টি বাকি ছিল। কারণ তারা ভেবেছিল, তাদের রেজিস্ট্রি ও মালাবদল মেনে নেবে পরিবার। তাই সামাজিক বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হবেন তারা। কিন্তু ঘটে গেছে উল্টো ঘটনা।

সংগীতার পরিবারের সদস্যরা রেজিস্ট্রির বিষয়টা জানার পর নিজের মেয়ের ওপর অত্যাচার শুরু করে। এক পর্যায়ে সংগীতাকে গৃহবন্দী করে রাখা হয়। প্রথমদিকে লুকিয়ে বাবুকে ফোন করতেন ওই তরুণী। কিন্তু শেষ কিছুদিন ধরে তাও বন্ধ হয়ে যায়।
সংবাদ মাধ্যম জানায়, স্ত্রীর সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধের কারণে দিশেহারা হন বাবু। তাই স্ত্রীকে ফিরে পেতে অনশনের পথ বেছে নেন তিনি। সোমবার ভোরের আলো ফুটতেই প্ল্যাকার্ড, বেশ কিছু ছবি ও রেজিস্ট্রির নথি নিয়ে সোনাখালি গ্রামে শ্বশুরবাড়িতে হাজির হন বাবু।

সেখানেই অনশনে বসেন ওই যুবক। প্ল্যাকার্ডে লেখা ছিল, ‘আমার বউকে ফিরিয়ে দাও।’ যুবক স্বামীর দাবি, তার বউকে আটকে রেখে অত্যাচার করা হচ্ছে। ওকে ভুল বোঝানো হচ্ছে। তার সাফ কথা, স্ত্রীকে না নিয়ে বাড়ি ফিরবেন না।

এদিকে জামাইয়ের অভিযোগ মানতে চাননি সংগীতার পরিবারের সদস্যরা। তাদের দাবি, মেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছিল। সেই কারণেই মেয়ের মন ভাল করতে কিছুদিনের জন্য স্বজনদের বাড়িতে পাঠানো হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকেএ