লন্ডনে থানার ভেতরে পুলিশ কর্মকর্তাকে গুলি করে হত্যা

ঢাকা, বুধবার   ২৮ অক্টোবর ২০২০,   কার্তিক ১৪ ১৪২৭,   ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

লন্ডনে থানার ভেতরে পুলিশ কর্মকর্তাকে গুলি করে হত্যা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২১:৫৩ ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

যুক্তরাজ্যের রাজধানী লন্ডনে দায়িত্ব পালনকালে সন্দেহভাজন আসামির গুলিতে প্রাণ হারিয়েছেন এক পুলিশ কর্মকর্তা। আটককৃত এক ব্যক্তিকে তল্লাশি চালানোর সময় ওই পুলিম কর্মকর্তাকে পাঁচটি গুলি করা হয়।

শুক্রবার শহরটির দক্ষিণাঞ্চলীয় ক্রয়ডন পুলিশ স্টেশনে এ ঘটনা ঘটে বলে সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে।

গুরুতর আহত পুলিশ কর্মকর্তাকে থানার মধ্যেই প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়। পরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।

এদিকে পুলিশের ওপর হামলা চালানোর পর ২৩ বছর বয়সী সন্দেহভাজন অপরাধী নিজের ওপরও গুলি চালায়। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

সন্দেহভাজন ব্যক্তিকে আটকের পর নেয়া হয় দক্ষিণ লন্ডনের ক্রয়ডন কাস্টডি সেন্টারে। সেখানে তল্লাশি চালানোর সময় পুলিশ কর্মকর্তার ওপর গুলি চালানোর ঘটনা ঘটে। সকালে ঘটনাস্থল থেকে আলামত সংগ্রহ করেছে ফরেনসিক কর্মীরা।

লন্ডন মেট্রোপলিটন পুলিশ জানিয়েছে, উইন্ডমিল রোডে অবস্থিত ওই থানায় কর্মকর্তা গুলিবিদ্ধ হলেও সে সময় পুলিশের কোনো অস্ত্র খোয়া যায়নি। নিহত কর্মকর্তার পরিবারকে বিশেষজ্ঞ কর্মকর্তারা সহায়তা দিচ্ছেন বলেও জানানো হয় মেট্রোপলিটন পুলিশের ওই বিবৃতিতে। গুলিবিদ্ধ আহত তরুণকে হত্যাকাণ্ডে সন্দেহভাজন হিসেবে আটক করা হয়েছে।

আটক হওয়ার পরও কোনো সন্দেহভাজন অস্ত্র নিয়ে থানা ভবনে কীভাবে প্রবেশ করতে পারে জানতে চাইলে মেট্রোপলিটন পুলিশের সাবেক এক সুপারিনটেনডেন্ট বিবিসিকে বলেন, ‘এটা নির্ভর করে যে সেই ব্যক্তিকে হয়তো থানার বাইরে থেকে আটক করা হয়েছে আর গাড়িতে করে নিয়ে আসা হয়েছে। আবার এমনও হতে পারে কোনো ব্যক্তি হয়তো থানার অভ্যন্তরে অস্ত্র নিয়ে ঢুকে পড়েছে। ফলে বিস্তারিত না জেনে এই ক্ষেত্রে কী ঘটেছে তা বলা যায় না।’

ওই থানায় পূ্র্বে কর্মরত পুলিশ কর্মকর্তা ক্যাথেরিন টাকার বলেন, ‘ওই পুলিশের সঙ্গে যা ঘটেছে তা সত্যিই অগ্রহণযোগ্য, কিন্তু ওই অপরাধীর জন্যই আমার কষ্ট হচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘দুঃখজনকভাবে, ক্রয়ডনে এই গুলির ঘটনায় আমি অবাক হইনি। সেখানে পুলিশ ও তরুণদের মধ্যে উত্তেজনা আছে। বিশেষ করে তাদের থামানো ও তল্লাশি নিয়ে এবং যেভাবে সেখানকার জনগোষ্ঠীর সঙ্গে পুলিশ সম্পর্কযুক্ত তা নিয়ে উত্তেজনা রয়েছে।’

ডেইলি বাংলাদেশ/মাহাদী