দক্ষিণ কোরিয়ার ‘এল‌জি ফোন পাগল’

ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৮ মে ২০২১,   জ্যৈষ্ঠ ৪ ১৪২৮,   ০৫ শাওয়াল ১৪৪২

দক্ষিণ কোরিয়ার ‘এল‌জি ফোন পাগল’

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৬:১০ ১৫ এপ্রিল ২০২১  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

‌দক্ষিণ কো‌রিয়ার প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান এলজি নিজেদের স্মার্ট‌ফোন ব্যবসা গুটিয়ে নেয়ার ঘোষণা দিয়েছে। এই খবর বেশ আহত করেছে রাইয়ু হিউয়ান-সু নামের এক য‌ুবককে। নিজেকে ‘এলজি ফোন পাগল’ দাবি করা এ মানুষটি জানালেন, তি‌নি নিজের এলজি স্মার্টফোন বাদ দিতে নারাজ।

দক্ষিণ কোরিয়ার রাইয়ু গত ২৩ বছরে প্রায় ৯০টির মতো এলজি ডিভাইস সংগ্রহ করেছেন। তার বর্তমান বয়স ৫৩ বছর। দক্ষিণ সিওলের আনইয়াংয়ে নিজ বাড়িতে রাইয়ু’র একটি ঘর রয়েছে ডিভাইসের জন্য। সেখানে ফোনগুলো সারাইয়ের যন্ত্রাংশ ও টুল রয়েছে।

তরুণ বয়স পার করেই এল‌জি স্মার্টফোনের প্রেমে প‌ড়ে রাইয়ু। তার মতে, ডিভাইসগু‌লোর ডিজাইন ও স্বকীয় ফিচারই তাকে বেশি টে‌নে‌ছে। এছাড়া এলজি’র অডিও সি‌স্টেম তার কাছে সবচে‌য়ে সেরা মনে হয়।

দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিষ্ঠান এলজি ফোন তৈরি করছে প্রায় ২৫ বছর ধরে। এক সময় এলজিই সর্বপ্রথম আলট্রা-ওয়াইড এঙ্গেল ক্যামেরাসহ বেশ কয়েকটি সেলফোন উদ্ভাবন করেছিল। অ্যাপল ও স্যামসাংয়ের পর এলজিই উত্তর আমেরিকার তৃতীয় জনপ্রিয় স্মার্টফোন ব্র্যান্ডে। এমন সিদ্ধান্তের ফলে উত্তর আমেরিকাতে প্রতিষ্ঠানটি ১০ শতাংশ শেয়ার ছেড়ে যাচ্ছে। ২০১৩ সালে স্যামসাং আর অ্যাপলের পাশাপাশি বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম স্মার্টফোন প্রস্তুতকারক ছিল এলজি।

গত ছয় বছরে এ খাতে প্রায় ৪৫০ কোটি ডলার ক্ষতি হয়েছে প্র‌তিষ্ঠান‌টির। মোবাইল বিভাগে প্রতিনিয়ত লোকসানের কারণে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এর মাধ্যমে এলজিই প্রথম কোনো বৃহত্তম স্মার্টফোন ব্র্যান্ড হিসেবে ‘মার্কেট আউট’ হচ্ছে।

এ প্রসঙ্গে রাইয়ু বলছেন, আমার মতে ওরা গুণগত মান বাদ দিয়ে (স্যামসাংয়ের সঙ্গে) পাল্লা দেয়ার চেষ্টা করছিল, প্রতিষ্ঠান নকশা এবং অন্যান্য ব্যাপারে অনেক বেশি মনোযোগ দিচ্ছিলো।

রাইয়ু’র এলজি ফোন ছাড়ার কোনো ইচ্ছা নেই। ‌তি‌নি বলেন, আমি ঠিক জানি না কবে যন্ত্রাংশ শেষ হয়ে যাবে, কিন্তু যতদিন যন্ত্রাংশের সরবরাহ চলবে ততদিন আমি ব্যবহার চালিয়ে যেতে চাই।

ডেইলি বাংলাদেশ/এনকে