বাংলাদেশে অফ-শোর ডেভেলপমেন্ট সেন্টার স্থাপনের আহ্বান

ঢাকা, শনিবার   ০৬ মার্চ ২০২১,   ফাল্গুন ২১ ১৪২৭,   ২১ রজব ১৪৪২

বাংলাদেশে অফ-শোর ডেভেলপমেন্ট সেন্টার স্থাপনের আহ্বান

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৭:৫৩ ২৬ জানুয়ারি ২০২১   আপডেট: ১৫:৩২ ২৭ জানুয়ারি ২০২১

বক্তব্য রাখছেন জুনাইদ আহমেদ পলক। ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

বক্তব্য রাখছেন জুনাইদ আহমেদ পলক। ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

বাংলাদেশের তরুণদের কাজে লাগাতে জাপানি আইটি উদ্যোক্তাদের বাংলাদেশে অফ-শোর ডেভেলপমেন্ট সেন্টার স্থাপনের আহ্বান জানিয়েছেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। পাশাপাশি বাংলাদেশি আইটি প্রতিষ্ঠানগুলোকে জাপানে ব্যবসা সম্প্রসারণের ওপরেও গুরুত্বারোপ করেছেন তিনি।

মঙ্গলবার জাপানের বাংলাদেশ দূতাবাস ও বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস) এর যৌথ উদ্যোগে এক উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধান অতিথির বক্তৃতায় জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, বাংলাদেশ বিশ্বের অন্যতম দ্রুত বর্ধনশীল দেশ। ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামের সমন্বিত উন্নয়ন সূচকে অনেক বড় দেশকে ছাড়িয়ে বাংলাদেশ বর্তমানে ৩৪তম অবস্থানে রয়েছে। আগামী ২০৩০ সাল নাগাদ বাংলাদেশ হবে বিশ্বের ২৪তম বৃহৎ অর্থনৈতিক দেশ।

তিনি আরো বলেন, অক্সফোর্ড ইন্টারন্যাশনাল ইনস্টিটিউটের তথ্য অনুযায়ী, গ্লোবাল অনলাইন ওয়ার্কফোর্সে বাংলাদেশের অবস্থান দ্বিতীয়। এ সাফল্য অর্জনে চালিকাশক্তি হিসেবে ভূমিকা রাখছে দেশের সব খাতে আইসিটির স্মার্ট ব্যবহার।

প্রযুক্তি জ্ঞানসম্পন্ন দক্ষ মানবসম্পদ তৈরির লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করা হচ্ছে উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, আইসিটি খাতে বিনিয়োগে আগ্রহী কোম্পানিগুলোকে ব্যয় সাশ্রয়ী সেবা দিতে ৩৯টি হাই-টেক পার্ক নির্মাণ করা হচ্ছে। ৬৪টি জেলায় শেখ কামাল আইটি ইনকিউবেশন সেন্টার, স্কুল অব ফিউচার ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ১৩ হাজার শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব স্থাপন করা হচ্ছে। তিনি বলেন, ২০২৫ সালে আইটি খাত হতে ৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার আয়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে।

জাপান বাংলাদেশের দীর্ঘ পরীক্ষিত বন্ধু ও উন্নয়ন সহযোগী উল্লেখ করে পলক বলেন, জাপানি তথ্যপ্রযুক্তি কোম্পানির সঙ্গে সংযোগ স্থাপন, ব্যবসা সম্প্রসারণ এবং বাংলাদেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের উন্নয়ন ও বিকাশে বিটুবি ম্যাচমেকিং প্রোগ্রাম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সিনিয়র সচিব এন এম জিয়াউল আলম, বাংলাদেশে নিযুক্ত জাপানের রাষ্ট্রদূত মি. ইতো নাওকি, জাপানে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত শাহাবুদ্দিন আহমেদ, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. জাফর উদ্দিন, বাংলাদেশে নিযুক্ত জাপান ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন এজেন্সি (জাইকা) এর কান্ট্রি রিপ্রেজেনটেটিভ মি. হায়াকাওয়া ইউহু প্রমুখ বক্তৃতা করেন।

পরে প্রতিমন্ত্রী বিটুবি ম্যাচমেকিং প্রোগ্রাম আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডআর/এসআর/এইচএন