বাংলাদেশের ১০ ছবি আন্তর্জাতিক অঙ্গনে

ঢাকা, রোববার   ২৯ নভেম্বর ২০২০,   অগ্রহায়ণ ১৫ ১৪২৭,   ১২ রবিউস সানি ১৪৪২

বাংলাদেশের ১০ ছবি আন্তর্জাতিক অঙ্গনে

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৭:১০ ১০ অক্টোবর ২০২০  

নোয়াখালীর নিঝুম দ্বীপ থেকে ছবিটি তুলেছেন সুলতান আহমেদ নিলয়। এই ছবিটি নির্বাচিত দশটি ছবির মধ্যে তৃতীয় স্থান লাভ করেছে। নিলয় এক শীতের সকালে নিঝুম দ্বীপে হরিণের সন্ধানে যাওয়ার সময় এই অসাধারণ দৃশ্যটি ধারণ করেন

নোয়াখালীর নিঝুম দ্বীপ থেকে ছবিটি তুলেছেন সুলতান আহমেদ নিলয়। এই ছবিটি নির্বাচিত দশটি ছবির মধ্যে তৃতীয় স্থান লাভ করেছে। নিলয় এক শীতের সকালে নিঝুম দ্বীপে হরিণের সন্ধানে যাওয়ার সময় এই অসাধারণ দৃশ্যটি ধারণ করেন

দেশের সংরক্ষিত প্রাকৃতিক বনাঞ্চল ও জীববৈচিত্র্যের ছবি নিয়ে উইকিপিডিয়ার প্রতিযোগিতা ‘উইকি লাভস আর্থ ২০২০’। এ বছর বাংলাদেশ থেকে ৩০৪ জন অংশগ্রহণকারী মোট এক হাজার ৮৯৪ টি ছবি জমা দিয়েছিলেন। এবার বাংলাদেশ পর্বে ১০টি আলোকচিত্র নির্বাচন করা হয়েছে।

বাংলাদেশের ছবি নির্বাচনে বিচারক হিসেবে ছিলেন নেদারল্যান্ডের বিচারক অ্যগনাস মঙ্কেবান এবং যুক্তরাজ্যের সিমাও। বিচারকরা তিনটি ধাপে ছবিগুলো পর্যালোচনা করে এই দশটি ছবি নির্বাচন করেছেন।

বিজয়ী এই ১০টি আলোকচিত্র আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করবে। আন্তর্জাতিক এ প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশ ছাড়াও ৩৩টি দেশ অংশ নিয়েছিল। অংশগ্রহণকারী প্রতিটি দেশ নির্বাচিত ছবিগুলো আন্তর্জাতিক বিচারক বোর্ডের কাছে পাঠানো হয়েছে। সেসব পর্যালোচনা করে আন্তর্জাতিকভাবে ১৫টি আলোকচিত্রকে বিজয়ী ঘোষণা করা হবে।

বাংলাদেশ পর্বের সেরা ১০ আলোকচিত্র এক নজরে দেখে নিন—

হসাতছড়ি জাতীয় উদ্যান থেকে কাঠ শালিকের এই ছবিটি তুলেছেন তৌহিদ পারভেজ বিপ্লব

জুয়েল নবাব নামে পরিচিত প্রজাপতির এই ছবিটিও সাতছড়ি জাতীয় উদ্যান থেকে ধারণ কারা। ছবিটি তুলেছেন সাইফুল ইসলাম

সাতছড়ি জাতীয় উদ্যান থেকে কাঠ শালিকের এই ছবিটিও তুলেছেন তৌহিদ পারভেজ বিপ্লব

নীলটুনি যা দুর্গা টুনটুনি বা মধুচুষকি নামেও পরিচিত। লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান থেকে ছবিটি তুলেছেন পুলক চন্দ্র শীল

আমুর শাহিন নামের এই পাখিটি লালপা তুরমুতি নামেও পরিচিত। পাখিগুলো প্রতি বছর ঝাঁকবেধে বাংলাদেশের উপর দিয়ে উত্তর চীন থেকে দক্ষিণ আফ্রিকাতে যাতায়াত করে। বরগুনা জেলার টেংরাগিরি বন্যপ্রাণ অভয়ারণ্য থেকে ছবিটি তুলেছেন তৌহিদ পারভেজ

ঢাকার জাতীয় উদ্ভিদ উদ্যান থেকে মাছরাঙ্গার মাছ শিকারের দৃশ্যটি ধারণ করেছেন দিপু দত্ত

সিলেটের গোয়াইনঘাটে অবস্থিত রাতারগুল জলাবনের এই ছবিটি তুলেছেন নেওয়াজ শরীফ

দাগিলেজা সবুজ বোরা সাপের ফড়িং শিকারের দৃশ্য। মো. মেহেদী হাসান মোবাইল ফোনের সঙ্গে সেলফি স্টিক লাগিয়ে ছবিটি ধারণ করেছেন। দশটি নির্বাচিত ছবির মধ্যে একমাত্র এই ছবিটি মোবাইল ফোনের ক্যামেরা দিয়ে ধারণ করা

যমুনা সেতু পশ্চিম পাড় ইকোপার্ক থেকে নৌকায় সারিবন্ধভাবে মাছ ধরার দৃশ্যটি ধারণ করেছেন আশরাফুল ইসলাম শিমুল

ডেইলি বাংলাদেশ/এনকে