মিষ্টিকুমড়া যারা খাবেন, যারা খাবেন না

ঢাকা, সোমবার   ২৩ মে ২০২২,   ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯,   ২১ শাওয়াল ১৪৪৩

Beximco LPG Gas

মিষ্টিকুমড়া যারা খাবেন, যারা খাবেন না

স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২৩:৫০ ১৩ মে ২০২২   আপডেট: ২৩:৫২ ১৩ মে ২০২২

মিষ্টিকুমড়া। ছবি: সংগৃহীত

মিষ্টিকুমড়া। ছবি: সংগৃহীত

সুস্বাদু একটি সবজি হচ্ছে মিষ্টিকুমড়া। যা পুষ্টিগুণেও অনন্য। ছোট থেকে বড় সবাই এই সবজিটি খেয়ে দারুণ ভালোবাসেন। মিষ্টিকুমড়া অতি উপকারী পুষ্টি গুণাগুণ এবং ওষুধি গুণাগুণসম্পন্ন সবজি।

বাজারে মিষ্টিকুমড়া বছরজুড়েই পাওয়া যায়। তাই আপনি চাইলে এর পুষ্টিগুণ পেতে পারেন সারাবছরই। মিষ্টিকুমড়ার পাতা, খোসা থেকে শুরু করে বীজ পর্যন্ত সব উপাদানই শরীরের জন্য উপকারী।

মিষ্টিকুমড়ার পুষ্টিগুণ

মিষ্টিকুমড়ায় আছে ভিটামিন এ বা বিটা ক্যারোটিন, ভিটামিন বি কমপ্লেক্স, ভিটামিন সি, ভিটামিন ই, পটাশিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম, ক্যালসিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ, আয়রন, জিংক, কপার, ফসফরাস, ক্যারোটিনয়েড এবং অন্যান্য অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট। এসব উপাদান আমাদের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে বাড়িয়ে তোলে এবং পুষ্টির ঘাটতি পূরণ করে। প্রতি ১০০ গ্রাম মিষ্টিকুমড়ায় আছে খাদ্যশক্তি ২৬ ক্যালরি, শর্করা ৫ গ্রাম, আমিষ ১ গ্রাম, আঁশ ০.৫ গ্রাম, চর্বি ০.১ গ্রাম, ভিটামিন সি ৯ মিলিগ্রাম, ভিটামিন এ ৭ হাজার ২০০ মাইক্রোগ্রাম, পটাশিয়াম ৩৪০ মিলিগ্রাম, সোডিয়াম ১ মিলিগ্রাম, ক্যালসিয়াম ২৪ মিলিগ্রাম, ফসফরাস ৪৪ মিলিগ্রাম, লৌহ ০.৮, জিংক ০.৩ মিলিগ্রাম।

মিষ্টিকুমড়ার উপকারিতা

মিষ্টিকুমড়ায় থাকা ভিটামিন সি দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। এর অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, ভিটামিন ই মানবদেহে ক্যান্সার ও আলঝেইমার রোগের ঝুঁকি কমিয়ে দেয়। এছাড়া দাঁত ও হাড়ের গঠন, হজমে সহায়তা, হাই প্রেশার কমাতে, চোখ ভালো রাখতে, হাঁপানি প্রতিরোধ করতে, হার্ট, আলসার ইত্যাদি অসুখ সারাতে ভূমিকা পালন করে থাকে। কুমড়ার বিচিতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে জিংক, যা প্রোস্টেটের সমস্যা প্রতিরোধ করে। এতে ট্রিপটোফেন নামে অ্যামিনো অ্যাসিড রয়েছে, যা খেলে রাতে অনেক ভালো ঘুম হবে। তাই একে প্রকৃতিপ্রদত্ত স্লিপিং পিল বলা হয়ে থাকে। মিষ্টিকুমড়ায় থাকা আঁশ দেহের কোলেস্টেরলের মাত্রা ঠিক রেখে স্ট্রোকের ঝুঁকি কমায়। মিষ্টিকুমড়া ও এর বীজ গর্ভবতী মায়েদের রক্তস্বল্পতা রোধ করে অকালপ্রসবের আশঙ্কা কমিয়ে দেয়।

যারা খেতে পারবে 

নির্দিষ্ট পরিমাণে মিষ্টিকুমড়া কমবেশি দৈনিক সবাই খেতে পারবে। মিষ্টিকুমড়া স্বাদে মিষ্টি বলে অনেক ডায়াবেটিস রোগী এটি খান না। কিন্তু তাদের এ ধারণাটি ভুল। মিষ্টিকুমড়া ডায়াবেটিস প্রতিরোধের জন্য দারুণ কাজ করে থাকে। এটি নিম্ন ৩ জিআইয়ের বলে রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখে। তবে ডায়াবেটিস রোগীদের দৈনিক সর্বোচ্চ ৯০ গ্রামের বেশি মিষ্টিকুমড়া খাওয়া যাবে না। 

কারা এড়িয়ে চলবেন

যাদের অ্যালার্জির সমস্যা রয়েছে, তারা মিষ্টিকুমড়া এড়িয়ে চলতে পারেন।

লেখক: পুষ্টিবিদ, লেজার ট্রিট

ডেইলি বাংলাদেশ/এএ

English HighlightsREAD MORE »